খবর অনলাইন ডেস্ক: চলতি বছরের শুরু থেকেই আকাশ ছুঁতে চলেছে ডিজেলের দাম। জ্বালানি খরচে ভারসাম্য রাখতে ভাড়া বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে পণ্য পরিবহণকারী গাড়ির। এর জেরেই এক ধাক্কায় অনেকটাই বাড়তে চলেছে প্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম।

একটি মহলের দাবি, শেষ কয়েক সপ্তাহ ধরে ডিজেলের দাম প্রতি লিটারে বেড়েছে চার টাকার কম-বেশি। সাযুজ্য রাখার তাগিদে কোথাও কোথাও পরিবহণের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে প্রায় ২০ শতাংশ।

বিশেষ করে পরিকাঠামো, খনন এবং কাঁচামাল সরবরাহ-সহ কয়েকটি ক্ষেত্রে পরিবহণের ভাড়া বাড়ানো হয়েছে। সংশ্লিষ্ট মহলের দাবি, এখনই ডিজেলের দাম কমানোর ব্যবস্থা না করা হলে সমস্ত ক্ষেত্রেই এর জোরালো প্রভাব পড়তে পারে। যা সরাসরি মুদ্রাস্ফীতিকে প্রভাবিত করবে।

দাবি উঠছে ভ্যাট, শুল্ক হ্রাসের

ট্রান্সপোর্টাররা ডিজেলের উপর ভ্যাট ও শুল্ক কমানোর দাবি জানাচ্ছে সরকারকে। তারা বলেছে, ডিজেলকে এ বার জিএসটি-র আওতায় আনা হোক। প্রতিদিন ডিজেলের মূল্য সংশোধন করা উচিত নয়। তবে প্রধানমন্ত্রী ডিজেলকে জিএসটির আওতায় আনার ইঙ্গিত দিয়েছেন। কিন্তু এটা যে এত তাড়াতাড়ি কার্যকর করা হবে, সেটাও ভাবা যাচ্ছে না। গত দেড় মাসে ডিজেলের দাম প্রায় ২৫ থেকে ৩০ শতাংশ বেড়েছে।

অন্যদিকে ডিজেলের তুলনায় পেট্রোলের দাম বেড়েছে আরও বেশি। তাতে অবশ্য পরিবহণে কোনো ফারাক পড়ে না। কারণ, ট্রাক বা অন্য পণ্য পরিবহণকারী গাড়িগুলি ডিজেলে চলে। যে কারণে জ্বালানির দাম বেড়ে যাওয়ায় পণ্যেরও দাম বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

ট্রান্সপোর্টাররা বলছেন, ডিজেলের দাম কমপক্ষে ২০ শতাংশ না কমালে খরচ নিয়ন্ত্রণ করা কঠিন হয়ে দাঁড়াবে।

ডিজেলের দাম না কমালে কী হবে

অর্থনৈতিক বিশ্লেষকরা বলছেন, ডিজেলের দাম না কমালে শুধু যে খাবার-দাবারের দাম বাড়বে তেমনটা নয়। এর ফলে পুরো অর্থনীতি ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। যা জিডিপি বৃদ্ধিকে প্রভাবিত করতে পারে।

অর্থাৎ, পেট্রোল, ডিজেলের দাম যত বাড়বে, ততই বাড়বে মুদ্রাস্ফীতি। নিয়ন্ত্রণ না করা হলে সমস্ত ক্ষেত্রের তার নেতিবাচক প্রভাব পড়তে বাধ্য।

ডাক ভারত বন্‌ধের

পেট্রোল-ডিজেলের লাগামহীন মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে শুক্রবার ভারত বন্‌ধের ডাক দিয়েছে অল ইন্ডিয়া ট্রেডার্স কনফেডারেশন (সিএআইটি)। সংগঠনের তরফে বলা হয়েছে, দেশের প্রায় দেড় হাজার জায়গায় বিক্ষোভ সমাবেশের আয়োজন করা হবে। এই কর্মসূচির মধ্যে দিয়েই তারা কেন্দ্র, রাজ্য সরকার ও জিএসটি কাউন্সিলের কাছে তাদের দাবি তুলে ধরবে।

বন্‌ধের আহ্বান জানিয়ে সংগঠন একটি বিবৃতিতে বলেছে, ৪০ হাজারের বেশি ব্যবসায়ী সংগঠনের অন্তর্ভুক্ত ৮ কোটির বেশি ব্যবসায়ী জিএসটি বিধিতে বেশ কিছু সংশোধনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাবে। একই সঙ্গে পেট্রোল-ডিজেলের মূল্যবৃদ্ধির মতো গুরুত্বপূর্ণ বিষয়টিও তাদের কর্মসূচিতে ঠাঁই পেয়েছে।

আরও পড়তে পারেন: বেলাগাম পেট্রোল, ডিজেলের দাম, অভিনব প্রতিবাদে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

dailyhunt

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন