chinese president xi zhinping

ওয়েবডেস্ক: সীমান্ত নিয়ে সম্পর্ক যতই নরম-গরম হোক না কেন, একটা বিষয়ে ভীষণ ভাবে মিল দেখা গেল ভারত-চিনে। দিল্লির তখতে বসার পরই নরেন্দ্র মোদীর প্রথম উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপগুলির মধ্যে একটি ছিল স্বচ্ছ ভারত অভিযান। এক দিকে সার্বিক স্বাস্থ্য সচেতনতা অন্য দিকে পর্যটনশিল্পকে ঢেলে সাজতে এই প্রকল্প যথেষ্ট মাইলেজ এনে দিয়েছে প্রধানমন্ত্রী মোদীকে। কতকটা একই ঢঙে দেশের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্য ও পর্যটকদের দৃষ্টি আকর্ষণের তাগিদে শৌচাগার সংস্কারে বিশেষ ভাবে আগ্রহী হয়ে উঠেছেন চিনের রাষ্ট্রপতি জিনপিং।

জানা গিয়েছে, চিনে শৌচাগার সংস্কারের বিশেষ একটি প্রকল্প ‘টয়লেট রেভেলিউশন’ হাতে নেওয়া হয়েছিল গত ২০১৫-তে। কিন্তু সেই প্রকল্পে আশানুরূপ অগ্রগতি হয়নি বলে খবর রয়েছে চিনা সরকারের কাছে। যে কারণে স্বয়ং রাষ্ট্রপতি জিনপিং বলেছেন, শৌচাগারের সমস্যা কোনো ছোটোখাটো বিষয় নয়। ফলে এই বিষয়টি নিয়ে হেলাফেলার প্রশ্নই ওঠে না।শহর হোক বা গ্রাম, একটি প্রকৃত সমাজ গ‌ড়ে তুলতে হলে যথাযথ ভাবে পরিচ্ছন্নতার দিকে সজাগ দ‌ৃষ্টি দেওয়া প্রয়োজন। আদতে চিনের বিভিন্ন জায়গায় সাধারণের জন্য নির্মিত শৌচাগারগুলির দুরবস্থা দেখে যথেষ্ট বিব্রত সে দেশের রাষ্ট্রপতি। চিনের জাতীয় পর্যটন বিভাগের তরফে জানানো হয়েছে, গত দু-বছরে এ ধরনের প্রায় ৭০ হাজার  শৌচাগারের সংস্কার সম্ভব হয়েছে্। স্থির হয়েছে, আগামী দু’ বছরে আরও ৬৪ হাজার শৌচাগারের আধুনিকীকরণের কাজ সম্পন্ন হবে।

তবে শুধু শৌচাগার নয়, চিনের গ্রামাঞ্চলে শৌচকর্মের ছবিটা এ দেশের তুলনায় মোটেই ভালো জায়গায় দাঁড়িয়ে নেই। ঝোপঝাড় থেকে শুরু করে খোলা জায়গায় অগভীর গর্ত খুঁড়ে বিশেষ কম্মটি সারার চল রয়েছে সেখানেও। এ বিষয়ে জিনপিংয়ের দেশের মানুষকে সচেতন করে তোলার বাড়তি দায়িত্ব নিয়েছে সে দেশের পর্যটন বিভাগ। তারা বিভিন্ন জেলার স্থানীয় প্রশাসনিক কর্তাদের নিয়ে আলোচনায় বসছেন। ইতিমধ্যেই চিনে ব্যবহৃত ‘স্কোয়াট্টি পট্টিজ’ নিয়ে ইন্টারনেট দুনিয়ায় সমালোচনার ঝড় উঠেছে। বিদেশি পর্যটকরা ব্লগে মলত্যাগের এই বিশেষ বস্তুটিকে নিয়ে আশঙ্কার কথা স্পষ্ট ভাবেই জানিয়েছেন।যার জবাব দিতে সরকারি ভাবেও ইন্টারনেটকে ব্যবহার করা হচ্ছে।

উল্লেখ্য, গত ২০১৪ সালে খোলা জায়গায় মল-মূত্র ত্যাগ বন্ধ করতে মোদী যে স্বচ্ছ ভারত পরিকল্পনা নিয়েছিলেন তা সম্পূর্ণ হতে চলেছে আগামী ২০১৯-এ। কাকতালীয় হলেও চিনের রাষ্ট্রপতিও সে দেশের প্রশাসনকে ওই একই উদ্দেশ্য সফল করতে সময়সীমাও বেঁধে দিয়েছেন একই।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here