খবর অনলাইন: চোদ্দো বছর পর গুলবার্গ গণহত্যা মামলায় সাজা ঘোষণা হল। যারা দোষী সাব্যস্ত হয়েছে, তাদের মধ্যে ১১ জনের হয়েছে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, ১২ জনের সাত বছর আর ১ জনের ১০ বছরের জেল হয়েছে। সাজাপ্রাপ্তদের মধ্যে রয়েছেন বিশ্ব হিন্দু পরিষদের নেতা অতুল বৈদ্য। ২০০২ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি গুজরাত দাঙ্গার সময় প্রায় শ’ চারেক মানুষের এক উন্মত্ত জনতা আমদাবাদের গুলবার্গ সোসাইটিতে হামলা চালিয়ে ৬৯ জনকে পুড়িয়ে মেরে দেয়। নিহতদের মধ্যে ছিলেন কংগ্রেসের প্রাক্তন বর্ষীয়ান সাংসদ এহসান জাফরি। এই মামলায় ৬৬ জন অভিযুক্তের মধ্যে মাত্র ২৪ জনকে দোষী সাব্যস্ত করে বিশেষ আদালত। বাকিরা তথ্যপ্রমাণের অভাবে ছাড়া পেয়ে যান। এঁদের মধ্যে রয়েছেন বিজেপি কাউন্সিলর বিপিন পটেল।

এ দিকে রায় নিয়ে অসন্তুষ্ট এহসান জাফরির স্ত্রী জাকিয়া জাফরি। তাঁর প্রশ্ন, “এ কোন ধরনের বিচার ? কেন বেছে বেছে শাস্তি দেওয়া হল ?” তিনি বলেন, সমস্ত অভিযুক্তকেই যাবজ্জীবন দেওয়া উচিত ছিল। তাঁর আইনজীবীদের সঙ্গে পরামর্শ করে তিনি পরবর্তী পদক্ষেপ ঠিক করবেন। তাঁর ছেলে তনভি জাফরিও বলেছেন, অন্য অভিযুক্তদের খালাস পাওয়ার বিষয়টিকে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে মামলা দায়ের করা হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here