sensex modi

বিশেষ প্রতিনিধি: কর্নাটক রাজ্য বিধানসভার নির্বাচন আগামী ১২ মে। ফলাফল কী হতে চলেছে, তা নিয়ে তৈরি হওয়া উত্তেজনা-অনুভূতিকে কাজে লাগিয়ে শেয়ার বাজারে পসার জমাচ্ছেন ব্রোকাররা। কিন্তু তাদের আসল লক্ষ্য অবশ্যই ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচন।  একাধিক ব্রোকার এবং বাণিজ্যিক সংস্থা এখন থেকেই ওই লোকসভা ভোটের আবেগ কাজে লাগতে ময়দানে নেমে পড়েছে।

আইএল অ্যান্ড এফএস তাদেরই একটি। ওই সংস্থার দাবি, ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে যদি নরেন্দ্র মোদী সরকার পুরর্নির্বাচিত হয়, তা হলে ভারতীয় শেয়ার বাজার চড়চড়িয়ে বাড়তে থাকবে। শেয়ার সূচক ১১ হাজার পয়েন্ট ছুঁয়ে ফেলার ঐতিহাসিক রেকর্ড তখন অতীতে পরিণত হবে, রচিত হবে নতুন ইতিহাস। কারণ নিফটি তখন ছুঁয়ে ফেলবে ১৩ হাজারের মাইলস্টোন। আর যদি জনগণের রায়ে মোদী সরকারকে বিদায় নিতে হয়, তা হলে কী হবে

ওই সংস্থার দাবি, এক ঝটকায় নিফটি পড়বে এক হাজার পয়েন্টেরও বেশি। অর্থাৎ, বর্তমানে ১০ হাজারের উপরে থাকা নিফটি ৯,০০০-এর খাদে গিয়ে পড়বে।

আরও পড়ুন: শেয়ার বাজারে বাড়ছে অস্থিরতা, সংবেদনশীলতার কেন্দ্রে কর্নাটক নির্বাচন

তবে একটা কথা না বললেই নয়, এই সংস্থাটি কিন্তু মোদীর শাসনের পুনস্থাপন বা প্রস্থানে নিফটির এই উত্থান-পতনের নেপথ্য তেমন কোনো টেকনিক্যাল বিশ্লেষণের পরোয়া করেনি। শুধু মাত্র পাঁচ বছরে মোদী সরকারের কাজের বা বিশেষ করে অর্থনৈতিক সংস্কারের ভূমিকার কথা তুলে ধরেই এই ভবিষ্যদ্বাণী করেছে।

শেয়ার বাজারে পূর্বাভাস কোনো কোনো ক্ষেত্রে প্রয়োজ্য হলেও ভবিষ্যদ্বাণী বলে কোনো বিষয় এখনও পর্যন্ত সর্বজন স্বীকৃত নয়। কারণ, কোনো ব্যক্তি বা সংস্থা শেয়ার বাজার নিয়ে ভবিষ্যদ্বাণী করলেই বিনিয়োগকারীরা বুঝে যান, তাদের ভবিষ্যদ্বাণীর মধ্যে নিশ্চয় কোনো ব্যক্তিগত স্বার্থ জড়িয়ে রয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here