ATM

ওয়েবডেস্ক: এ মুহূর্তে সারা দেশে অটোমেটেড টেলার মেশিন  বা এটিএম-এর সংখ্যা প্রায় ২ লক্ষ ৩৮ হাজার। আগামী বছরের মার্চ মাসের মধ্যে এই বিশাল সংখ্যক এটিমের মধ্যে থেকে ৫০ শতাংশ (সংখ্যার বিচারে ১,১৩,০০০ টি) অকেজো হয়ে যেতে পারে আশঙ্কা প্রকাশ করল কনফে়ডারেশন অব এটিএম ইন্ড্রাস্টি বা ক্যাটমি।

সংগঠন জানিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী জনধন যোজনা-সহ অন্যান্য সরকারি ক্ষেত্রে গ্রাহকরা এখন যে ভাবে এটিএম থেকে ভরতুকির টাকা তুলতে পারেন, আগামী দিনে সেই পরিষেবা ব্যাহত হতে পারে। কারণ, শহর-গ্রাম নির্বিশেষে মেয়াদ ফুরনো ওই সমস্ত এটিএম কাউন্টারে তখন শাটার ফেলে রাখা ছাড়া আর অন্য কোনো উপায় থাকবে না।

এ ব্যাপারে ক্যাটমির মুখপাত্র বুধবার জানান,  এটিএম হার্ডওয়্যার এবং সফটওয়্যার আপগ্রেডের জন্য জন্য কেন্দ্রীয় নিয়ন্ত্রক সংস্থা যে নির্দেশিকা প্রকাশ করেছে, তা মেনে চলার ব্যাপারে জোর দিচ্ছে সংগঠন। কিন্তু আগামী মার্চ মাসের মধ্যে তা সম্ভব নয় ধরে নেওয়া যেতে পারে। কারণ,  নগদ টাকা লোড করার ক্ষেত্রে ক্যাসেট সোয়াইপ পদ্ধতি মেনে চলার নির্দেশ দিয়েছে নিয়ন্ত্রক সংস্থা।

আরও পড়ুন: প্রতিবাদ সত্ত্বেও পাবলিক বাসে হস্তমৈথুন করা যুবককে কষিয়ে থাপ্পড় মারল বালিকা, ঠুঁটো জগন্নাথ সহযাত্রীরা

এ ভাবে এই বিশাল সংখ্যক এটিএম বন্ধ হলে যে শুধুমাত্র গ্রাহক সমস্যায় পড়বেন তা নয়। এর ফলে কয়েক লক্ষ কর্মীও তাঁদের কাজ হারাবেন। যা দেশের সামনে সমূহ সমস্যার সৃষ্টি করতে পারেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here