Sahre Market Sensex Nifty

ওয়েবডেস্ক: গত জুন মাসের ঘটনা। জানুয়ারিতে সেনসেক্স সর্বকালীন সেরা উচ্চতা ছুঁয়ে এসে ধুঁকছিল। তেমনই এক সময় ভারতের শেয়ার বাজারে এক অতি-অতি পরিচিত নাম তথা বিলিওনেয়ার বিনিয়োগকারী টেলিভিশন সাক্ষাৎকারে বললেন, ভারতবর্ষের প্রকৃত উন্নয়নের জন্য প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আরও পাঁচ বছর সময় লাগবে। এবং তিনি স্পষ্টতই জানিয়ে দেন, ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদীর প্রত্যাবর্তন সম্পর্কে নিশ্চিত।

Share

সেই সাক্ষাৎকার একটি টেলিভিশন চ্যানেল থেকে ছড়িয়ে পড়ল শত-মিডিয়ায়। নির্বাচন থেকে ১১ মাস দূরে দাঁড়িয়ে (যেহেতু ২০১৯-এর মে-এপ্রিলে ভোট হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে) তিনি বলেছিলেন, শেয়ার বাজার অভাবনীয় এবং অভূতপূর্ব উত্থানের প্রহর গুনছে। বর্তমানে সূচক একটা সংশোধনের মধ্যে দিয়ে চলছে ঠিকই, তবে কয়েক দিনের মধ্যেই অবস্থা পুরো বদলে যাবে। এ দেশের শেয়ার বাজার ইতিহাস সৃষ্টি করবে।

তিনি জোরের সঙ্গে বলেন, “আমি বিশ্বাস করি গ্রস ডোমেস্টিক প্রোডাক্ট (জিডিপি)-র এই স্তরে দাঁড়িয়ে ভারতের শেয়ার বাজার এখানে দাঁড়িয়ে থাকতে পারে না”।

ব্যস, কোনো কোনো মহল থেকে চাউর হয়ে যায়, ২০১৯-এ লোকসভা ভোটের আগে সেনসেক্স পৌঁছে যাবে ৪০ হাজার পয়েন্টের ধাপ। এ ক্ষেত্রে স্বীকৃত বিনিয়োগকারীর বক্তব্য অতিসরল বিনিয়োগকারীদের মোবাইলে এসএমএস মারফত চালান করা শুরু করে দিল সেই সব ছদ্মবেশি দালালরা। তাদের একটাই বক্তব্য-বিনিয়োগের এই তো সময়। কিনে নিন, কিনে নিন, যত পারেন শেয়ার কিনে নিন। তারা নামও বাতলে দিল এসএমএস-এ বা ফোন করে। শুরু হয়ে গেল বাজারের কারসাজি

বাজারে বিনিয়োগ বাড়ছে, শুধু দেশি খুচরো বিনিয়োগকারী নয়, বিদেশি বিনিয়োগকারী সংস্থাগুলিও হামলে পড়ল। আর তারপর তো যা হল, তা ওই ধনকুবেরের কথা ইতিহাস। আর একাংশ বিনিয়োগকারীর কাছে সর্বনাশ।

শেষাংশ পড়ুন www.khaboronline-এ।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন