women

ওয়েবডেস্ক: অবসরকালীন জীবনের জন্য সঞ্চয়ের দিকটা আগেভাগেই ভেবে রাখা একশো শতাংশ বুদ্ধিমানের কাজ। পুরুষ-মহিলা নির্বিশেষে ভবিষ্যৎ খরচের আগাম বন্দোবস্ত নিতান্ত জরুরি। তবুও বেশ কয়েকটি বিশেষ পার্থক্যের নিরিখে স্বনির্ভর মহিলাদের সঞ্চয়ের পরিমাণ পুরুষের তুলনায় বেশি হওয়াই বাঞ্চনীয়।

আয়ের পার্থক্য

এ দেশে এখনও পর্যন্ত পুরুষের তুলনায় মহিলাদের আয় কম। গড় হিসাবে দেখা গিয়েছে, মহিলারা পুরুষের তুলনায় ২০ শতাংশ কম আয় করেন। মনস্টার স্যালারি ইনডেক্স অনুসারে ওই তথ্য জানা গিয়েছে। দেখা গিয়েছে, এক জন পুরুষের গড় আয় যেখানে প্রতিঘণ্টায় ২৩১ টাকা, সেখানে সম পরিমাণ সময় ব্যয় করেও একজন মহিলার আয় ১৮৪.৮০ টাকা। মাত্র দু-বছরের অভিজ্ঞতা সঞ্চয় করে যেখানে পুরুষ ৭.৮ শতাংশ অধিক আয় করতে পারে, সেখানে এক জন মহিলা ওই আয় বৃদ্ধি করতে এক জন মহিলার সময় লেগে যায় ১১ বছর।

কর্মক্ষমতার মেয়াদের পার্থক্য

এক জন মহিলা কোনো পুরুষের থেকে কর্মক্ষেত্রে কাজের জন্য তুলনামূলক ভাবে কম সময় পান। এর জন্য রয়েছে গর্ভধারণ বা পিরিয়ড সংক্রান্ত ছুটি নেওয়া। আবার সন্তানপ্রসবের জন্য যদি কাজ ছাড়তে হয়, সেখানেও নতুন কাজে যোগ দিয়ে অনেক সময় পুরনো হারেই আয় হয়।

আয়ুর তারতম্য

পরিসংখ্যান বলছে, পুরুষের তুলনায় মহিলাদের গড় আয়ু অনেকটাই বেশি। দেখা গিয়েছে, পৃথিবীতে মহিলাদের গড় আয়ু ৬৯.৯ বছর। সেই জায়গায় পুরুষের গড় আয়ু ৬৬.৯ বছর। ভারতে আবার ৬০ বছর বয়সে অবসর নেওয়ার পর পুরুষের ক্ষেত্রে গড় আয়ু ৭৭.২ বছর, মহিলাদের ক্ষেত্রে সেই আয়ু ৭৮.৬ বছর। ফলে অবসরের পর মহিলাদের খরচের পরিমাণ অনেকটাই বেশি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here