sbi bank EMI

ওয়েবডেস্ক: রিজার্ভ ব্যাঙ্ক নিজের সুদের হার পরিবর্তন না করলেও ব্যাঙ্ক থেকে ঋণ গ্রহীতাদের আশ্বস্ত হওয়ার কোনো কারণ নেই। আগেই জানা গিয়েছিল, বেশ কয়েকটি ব্যাঙ্ক মর্টগেজ ও গাড়ি ঋণের ক্ষেত্রে সুদের হার বাড়াতে পারে। প্রাথমিক ভাবে কয়েকটি বে-সরকারি ব্যাঙ্ক ওই ঘোষণা করলেও এ বার রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কগুলিও সেই পথ ধরতে চলেছে বলে সূত্রের খবর। যার ফলে যাঁরা প্রথম বার ঋণ নিতে চলেছেন, তাঁদের ক্ষেত্রে যেমন ওই বাড়তি হারে সুদ দিতে হতে পারে তেমনই পুরনো ঋণ গ্রহীতাদেরও ইএমআই বাড়তে পারে বলেই মনে করা হচ্ছে।

যে কোনো ব্যাঙ্কের কাছেই এখন পাখির চোখ-আমানত বৃদ্ধি। গ্রাহকের কাছ থেকে যত বেশি টাকা নিজেদের হেফাজতে রাখা যায়, সে দিকেই নজর রয়েছে তাদের। ফলে সেভিংস অথবা স্থায়ী আমানতে বিনিয়োগের পরিমাণ বাড়াতে খুব শীঘ্রই ওই খাতে সুদের হার বাড়াতে চলেছে ব্যাঙ্কগুলি। বিপরীত দিকে গ্রাহককে জমা রাখা টাকার উপর যে বর্ধিত হারে সুদ দেওয়া হবে, তা আসবে কোথা থেকে? এমন প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে গিয়ে সমাধান হিসাবে উঠে এসেছে ঋণের সুদে বাড়তি হার জুড়ে দেওয়ার পরিকল্পনা। ফলে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক রেপো রেট এবং রিভার্স রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখলেও ব্যাঙ্কগুলি কিন্তু হাত গুটিয়ে বসে থাকতে চাইছে না।

দেশের আর্থিক পরিস্থিতির সঙ্গে সামঞ্জস্য রাখতে গিয়ে রিজার্ভ ব্যাঙ্ক তার ঋণদাতাদের উপর বার বার কোপ বসিয়েছে। যার নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে বিভিন্ন ব্যাঙ্কের উপরেই। স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার মতো বৃহত্তম ব্যাঙ্ককেও বাধ্য করা হয়েছে ঋণের উপর সুদের হার নিয়ন্ত্রণে ত্যাগ স্বীকার করতে। তবে বেস রেটকে এমসিএলআরের উপরে রেখে নিষ্কৃতি পাওয়ার চেষ্টা করেছে ব্যাঙ্কগুলি। এসবিআইয়ের ক্ষেত্রেও এক বছরের জন্য এমসিএলআর যখন ৭.৯৫ শতাংশে বেঁধে রাখা হয়েছে তখন বেস রেট করা হয়েছে ৮.৬৫ শতাংশ। অর্থাৎ ৭০ বিপিএস-এর পার্থক্য বজায় রাখা সম্ভব হয়েছে। তবে জানুয়ারিতে ফের ৩০ বিপিএস কমানো হয়েছে।

স্বাভাবিক ভাবেই ব্যাঙ্কগুলি চাইছে ভাণ্ডারের আয়তন বৃদ্ধি করতে। সে ক্ষেত্রে আমানতকারীদের আকর্ষণই মোক্ষম পন্থা হতে পারে। এমসিএলআরের হার যাতে ঊর্ধ্বমুখী চাপ তৈরি করতে না পারে, সে দিকে তাকিয়েই ঋণের উপর বাড়তি হার সংযোজনের মাধ্যমে পরিস্থিতি সামাল দেওয়ার পরিকল্পনা নেওয়া হতে পারে।

আরও পড়ুন:  আরবিআইয়ের অপেক্ষায় না থেকে এই দুই ঋণের ক্ষেত্রে সুদের হার বাড়াচ্ছে ব্যাঙ্ক

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here