sensex,Nikkei 225,Dow Jones Industrial Average

কয়েকটা সপ্তাহ পার করতে পারলেই নতুন আর একটা বছর। তবে তার আগেই আছে বড়োদিন। বছরের এই বিশেষ সময়টিতে প্রায় প্রতি বছরই সারা বিশ্বের শেয়ার বাজার মোটের উপর ভালো ফলাফল করে থাকে। এ বার যে তার ব্যতিক্রম ঘটবে তেমন কোনও নিশ্চয়তা নেই। আবার প্রতিবারের মতো এ বার বাজার বিনিয়োগকারীদের মুখে বাড়তি হাসি ফোটাবে তেমনও কোনো পাকা খবর নেই। তবে কিছু একটা হলেও হতে পারে। ট্রেড পণ্ডিতরা বলছেন, গুজরাত বিধানসভা নির্বাচনেরও একটা ব্যাড এফেক্ট দেখা গিয়েছে বিগত দুই দশক ধরে। তাঁদের মতে, অতীতে দেখা গিয়েছে গুজরাতের ফলাফল ঘোষণার এক মাসের মধ্যে বাজার প্রায় এক হাজার পয়েন্ট পড়েছে।

এ যেন সেই ঋতু মেনে চলা আবহাওয়ার পরিবর্তন। এবারও অবশ্য গুজরাতে বিজেপি ফিরছে, তেমন একটা আভাষ প্রত্যেকটা সমীক্ষক সংস্থা তাদের এক্সিট পোলে জানিয়েছে ভোট শেষ হতেই। এখন ফলাফলের জন্য অপেক্ষা করতে হবে ১৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত। আর বাজারের সেই তথাকথিত এক হাজার পয়েন্ট পতনের জন্য আরও এক মাস পথ চেয়ে বসে থাকতে হবে। তার আগে কিছু একটা কেনাকাটা করা যেতেই পারে। অন্তত যদি আপনি ঝুঁকির বিনিয়োগে আগ্রহী থাকেন।

এখন রঙের বাজারে সব থেকে চর্চিত নাম এশিয়ান পেইন্টস। এত সব নতুন প্রডাক্ট সংস্থা বাজারে এনেছে এবং আগামী দিনে নিয়ে আসতে চলেছে যে, বিদেশি বিনিয়োগকারীরাও এই স্টকটি নিয়ে উৎসাহিত। জিএসটি-র হার পরিবর্তনের সুফল পাচ্ছে বা পেতে চলেছে রঙের বাজার। ফলে ১১২০ টাকার কাছাকাছি কিনে নিলে নতুন বছর বা তার আগেই হয়তো ৩-৪ শতাংশ বাড়তি দরে বেচে দেওয়া যেতে পারে। অর্থাৎ শেয়ার পিছু ন্যূনতম ৩০ টাকা লাভ নিশ্চিত। আর যদি ইন্ট্রা ডে করেন তাহলেও বিফলে যাবে না আপনার বিনিয়োগ। শেয়ার পিছু কম করে পাঁচ টাকা লাভ করা খুবই সহজ।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here