gold price

ওয়েবডেস্ক: এখন সোনার দামও নির্ভর করে বিশ্ববাজারের উপর। শুক্রবার জানা গিয়েছে, বিগত আড়াই থেকে দু’মাস সময়কালে সব থেকে বেশি পতনের সাক্ষী হল সোনার দাম।

আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে সোনার দাম ওঠা-নামা করায় ভারতেও এই সময়কালের মধ্যে খাদে নেমেছে সোনার দর। এর কারণ অবশ্যই ডলারের ঊর্ধ্বগামিতা। প্রায় .০২ শতাংশ পড়ে গিয়ে শুক্রবার ওই দর দাঁড়িয়েছে, প্রতি আউন্সে (২৮.৩৪৯৫ গ্রাম) ১,৩২৮.৯০ ডলার (৮৬০৫৮.২৪ টাকা)।

এক সপ্তাহের মধ্যেই সোনার দরে পতন হয়েছে ১.৪ শতাংশ। বিশেষজ্ঞদের মতে, এই দাম আগামী কয়েক দিনে আরও নামতে পারে। কারণ আমেরিকার ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাঙ্কের ঋণনীতির সঙ্গে সাযুজ্য রাখতে ডলারের দাম যেভাব চড়া হারে বেড়ে চলেছে, তার আঁচ লাগছে সোনার গায়ে। ফলে বহুমূল্যের এই ধাতু সেই তাপে গলে না গেলেও হ্রাস পাচ্ছে তার দাম।

সিঙ্গাপুরের গোল্ড সিলভার সেন্ট্রাল সংস্থার ম্যানেজিং ডিরেক্টর ব্রায়ান ল্যান জানিয়েছেন, ফেড রিজার্ভ সুদের হার অপরিবর্তিত রাখছে না, এমন আভাস মিলতেও ডলারের দামও অক্সিজেন পেয়েছে। কারণ সুদের হার বাড়লে দ্রব্যমূল্য বাড়বে, যে কারণে ডলারের দাম এখন থেকেই চড়ছে। এই ট্রেন্ড যে আরও সপ্তাহখানেক বজায় থাকবে, সে বিষয়ে তিনি নিশ্চিত।

এমনও জানানো হয়েছে, সোনার দাম আগামী কয়েক দিনের মধ্যে যতই বাড়ুক তা আউন্স ১,৩৫৪ ডলারের উপরে উঠবে না।

কিন্তু এই ভরা বিয়ের মরশুমে এ রাজ্যে যে প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে তা হল, বিশ্ববাজারে কমলেও কলকাতায় কেন কমছে না? নিয়মিত সোনার দাম প্রকাশ করে এমন একটি সংস্থা জানাচ্ছে, শেষ ১০ দিনে কলকাতায় সোনার দাম ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী। গত ১৩ ফেব্রুয়ারি এক গ্রাম ২২ ক্যারাট সোনার দাম ছিল ২৯,৭৯০ টাকা, ২৩ ফেব্রুয়ারি ওই পৌঁছেছে ৩০,০৮০ টাকায়। অর্থাৎ শেষ ১০ দিন গ্রাম প্রতি সোনার দাম বেড়েছে ২৯০ টাকা।