RD

ওয়েবডেস্ক: ব্যাঙ্ক বা পোস্ট অফিসের দীর্ঘ মেয়াদি ফিক্সড ডিপোজিটের বিকল্প সঞ্চয় প্রকল্প রেকারিং ডিপোজিট বা আরডি। এর সব থেকে বড়ো সুবিধা, একই সঙ্গে সমস্ত টাকা জমা দেওয়ার হ্যাপা নেই। প্রত্যেক মাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা জমা করলেই চলে।

মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার পর আর পাঁচটা মেয়াদি সঞ্চয় প্রকল্পের মতোই মূল টাকার উপর সুদ-সহ মোট পরিমাণ অর্থ সঞ্চয়কারীর হাতে তুলে দেওয়া হয়। তবে প্রতি মাসে নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ জমা করার আরডি বাজার চলতি হলেও বিভিন্ন পরিমাণের টাকা জমা দেওয়ার মতোও ভিন্ন আরডি চালু করেছে কোনো কোনো সংস্থা।

অনলাইনে কী ভাবে খোলা যায় আরডি অ্যাকাউন্ট

অনলাইনে আরডি অ্যাকাউন্ট খোলার জন্য আপনার কাছে থাকতে হবে নেট ব্যাঙ্কিং পরিষেবার সুবিধা। সংশ্লিষ্ট ব্যাঙ্কের নিজস্ব ওয়েবসাইটে লগইন করার পর নতুন আরডি অ্যাকাউন্ট খোলার আবেদন জানানোর সুবিধা পাওয়া যাবে ওই ওয়েবসাইটেই। সাধারণত সমস্ত ব্যাঙ্কের ওয়েবসাইটেই আরডি অ্যাকাউন্ট খোলার সময় সকাল ৮টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত। নিজের সেভিংস অ্যাকাউন্টে থাকা নাম, ব্রাঞ্চের নাম এবং অ্যাকাউন্ট নম্বরই ওই নতুন আরডি অ্যাকাউন্টটিকে নিয়ন্ত্রণ করে।

আপনি যদি এসবিআইয়ের গ্রাহক হন তা হলে নিচের পদ্ধতি মেনে চলে অনলাইনে আরডি খুলতে পারেন:

১. নেট ব্যাঙ্কিংয়ে লগ-ইন করুন। সেখানে দেখানো ই-আরডি (আরডি)/ই-এসবিআই ফ্লেক্সি ডিপোজিট-এ ক্লিক করুন।

২. আপনার যদি একাধিক সেভিংস/কারেন্ট অ্যাকাউন্ট থাকে তা হলে যেটির সঙ্গে আরডি সংযুক্ত করতে চান, সেটিকে সিলেক্ট করুন।

৩. মাসিক কত টাকা জমা দেবেন সেই পরিমাণ পছন করুন। সঙ্গে মেয়াদ

৪. প্রবীণ নাগরিক হলে নির্দিষ্ট জায়গায় ক্লিক করুন।

৫. মেয়াদ পূরণের মোট অর্থ সেভিংসে নিতে চান না কি ফিক্সড করতে চান, তা জানিয়ে দিন।

৬. শর্তাবলি পড়ে নিয়ে সাবমিট-এ ক্লিক করুন।

৭. পরের পাতায় আসবে নাম, নমিনি-সহ যাবতীয় তথ্য পূরণ করার ফর্ম।

৮. সেগুলি দেওয়ার পর কনফার্ম করুন। এর পরই রেফারেন্স নম্বর এবং ই-আরডি নম্বর চলে আসবে।

৯. এর পরই আপনি আরডি-র যাবতীয় তথ্য ডাউনলোড করে প্রিন্ট আউট নিতে পারবেন।

১০. এ ছাড়া নির্দেশনা মূলক অংশটি ভালো করে পড়ে নেওয়ার পর গোটা পদ্ধতি নিজে হাতেই করতে পারেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here