car insurance

ওয়েবডেস্ক: ক্ষতিপূরণ পাওয়ার জন্যই তো আগাম বিমা করানো, তা হলে ক্ষতি হয়ে যাওয়ার পর কেন মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে বিমা সংস্থা? গাড়ি চুরি যাওয়ার পর এমনই প্রশ্ন উঠে আসছে ভুক্তভোগীদের মুখে। কারণ, তাঁরা এমন অনাহূত ঘটনার জন্যই বিমা করানোর জন্য গ্যাঁটের কড়ি খরচ করেছেন!

বিমা সংস্থাগুলি হোক বা নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইন্সুরেন্স রেগুলেটরি অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট অথরিটি বা আইআরডিএ সর্বদা বলে থাকে, বিমা করানোর আগে ভালো করে পড়ে দেখবেন বিমা সংস্থার সমস্ত নথিপত্র। সেখানে যেন এমন কিছু শর্ত না থেকে যায়, যার ফলে বছরের পর প্রিমিয়াম জমা দিলেও কাজের সময় পুরোটাই ব্যর্থ না হয়ে যায়। কিন্তু এ কথা বারবার শোনার পরেও সেই সমস্ত তথ্য বিশদে জানার প্রয়োজনীয়তা মনে করেন না অনেকেই। আর বিপদে পড়লে তার ঘাড়ের উপর হাজির হয় আর এক বিপদ। যেমন ধরুন গাড়ির আসল চাবি।

আরও পড়ুন: নতুন ১০০ টাকার নোট শীঘ্রই আনছে আরবিআই, প্রকাশিত হল নমুনা

সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন বিমা সংস্থার তরফে বিমাকারীকে যে চুক্তিপত্রে স্বাক্ষর করিয়ে নেওয়া হয়, সেখানে স্পষ্টতই লেখা থাকে- গাড়ি চুরি হয়ে যাওয়ার পর ক্লেম করার সময় সঙ্গে অবশ্যই দু’টি আসল চাবি নিয়ে আসতে হবে। মনে রাখা ভালো- নকল নয় কিন্তু। অর্থাৎ, গাড়ি চুরির নেপথ্যে অন্য কোনো কারণ যাতে জড়িয়ে না থাকে সে জন্যই বিমা সংস্থা দু’টি আসল চাবি দাবি করে থাকে। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে অনেক সময়ই হয় উল্টো। গাড়ির মালিক নিজের অজান্তে প্রায়শই একটি চাবি হারিয়ে ফেলেন।

স্বাভাবিক ভাবেই যে সংস্থাগুলি বিমা করানোর সময় আসল দু’টি চাবি জমা করার শর্ত আরোপ করে, তারা আইনের আঙুল দেখিয়ে বিমাকারীকে খোলা দরজা দেখিয়ে দিতে পিছপা হন না।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here