sensex bse

বিশেষ প্রতিনিধি: সোমবার ভারতীয় শেয়ার বাজার যে এতটাই নীচে নেমে যাবে, তার কোনো যুক্তিগ্রাহ্য টেকনিক্যাল কারণ অনুসন্ধান করতে পারেননি বিনিয়োগকারীরা। না, শেয়ার বাজারের ওঠা-পড়া নিয়ে কোনো কল্পনা খাটে না। তবুও সোমবার যখন বিশ্ববাজারের সূচকগুলি হু-হু করে বাড়ল, তেলের দাম নিয়ে দুশ্চিন্তা যখন কিছুটা হলেও স্থিমিত হল, গত কয়েক দিন যখন ডলারের তুলনায় টাকার দাম ক্রমশ বাড়ন্ত-তেমন একটা পরিস্থিতিতে দিনের কোনো একটা সময়ে সেনসেক্স চারশো পয়েন্টের বেশি পড়ে গেল। তবে কি সেই পিএনবি কাণ্ডের জের?

উত্তরে বলা যায়, সেও তো তিন দিন ধরে বাজারকে গিলে গেল। তবুও খিদে মিটল না!

সোমবার পড়ন্ত বেলায় সেনসেক্স গিয়ে ঠেকেছিল ৩৩,৬১০ পয়েন্টে। অর্থাৎ শুক্রবারের থেকে প্রায় ৪০০ পয়েন্ট নীচে। নিফটিও নামত নামতে ১০,৩১৮, মানে ১৩৪ পয়েন্টর খাদে গিয়ে পড়েছে। কিন্তু বাজার বন্ধ হওয়ার ঠি আগে সেনসেক্স ২৩৬ এবং নিফটি ৭৩ পয়েন্ট পড়ে গিয়ে ঘুমোতে যায়।

আরও পড়ুন: পিএনবি-কাণ্ড: হিরে ব্যবসায়ী ও শেয়ার বাজারের দালালদের মধ্যে ছিল গোপন আঁতাঁত!

অধিকাংশ বিনিয়োগকারীর মতমত, পিএনবি কাণ্ড তো রয়েছেই, তার উপর যুক্ত হয়েছে ইপিএফ নিয়ে ব্যাঙ্কের সিদ্ধান্ত। আগামী কয়েক দিন ব্যাঙ্কগুলি বহুবিধ নতুন নীতি গ্রহণ করতে পারে। কিন্তু সব থেক বড়ো কারণ হতে পারে, বিনিয়োগকারীদের বিশ্বাসে ফাটল। যা ধরিয়ে দিয়েছে পিএনবি কাণ্ডে অভিযুক্ত নীরব মোদীর মামা মেহুল চোকসি। যে নিজের অলঙ্কার ব্যবসার মাধ্যমে শেয়ার বাজারের দালালদের সঙ্গে যোগসাজশ করে বিনিয়োগকারীদের অর্থ নিয়ে নয়ছয় করেছে।

শেয়ার বাজার যে একাধিক সরকারি নজরদার সংস্থার নিয়ন্ত্রণে থেকেও ওই ধরনের কু-কর্মের শরিক হয়ে যাচ্ছে, তার একটা বড়ো নমুনা পেশ করেছে পিএনবি কাণ্ড। যে কারণে, আপাত ভাবে শেয়ার বাজার সম্পর্কে আচমকা অবিশ্বাস সৃষ্টি হয়ে গিয়েছে বিনিয়োগকারীদের মনে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here