মহারাষ্ট্র ও মধ্যপ্রদেশে শিল্প গড়ছে বাবা রামদেবের কোম্পানি। 

মহারাষ্ট্রে ভেষজ ও খাদ্যভিত্তিক শিল্প গড়ছে বাবা রামদেবের ‘পতঞ্জলি আয়ুর্বেদিক লিমিটেড’। ফুড পার্ক তৈরি করতে নাগপুরের মিহানে ২৩০ একর জমি পেয়েছে এই কোম্পানি।

মধ্যপ্রদেশের অর্থ ও শিল্পমন্ত্রী রাজেন্দ্র শুক্লও জানিয়েছেন, সে রাজ্যে পতঞ্জলি খাদ্যপ্রক্রিয়াকরণ শিল্প গড়ছে।

মিহানের ২৩০ একর জমিতে কৃষিজ, বনজ, ভেষজ ও খাদ্যভিত্তিক শিল্পোদ্যান গড়ে তোলার লক্ষ্যে মহারাষ্ট্র এয়ারপোর্ট ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি (এমআরডিসি)তিন বার টেন্ডার চেয়ে নোটিস দেয়। প্রথম দু’ বার গত মে ও জুলাই মাসে। কিন্তু কেউ টেন্ডার জমা না দেওয়ায় তৃতীয় বার টেন্ডার ডাকা হয় চলতি আগস্টে। তৃতীয় বারের ডাকে একমাত্র বাবা রামদেবের ‘পতঞ্জলি আয়ুর্বেদিক লিমিটেড’ই প্রযুক্তিগত ভাবে এবং অন্য সব দিক থেকে উপযুক্ত সংস্থা হিসাবে বিবেচিত হয় বলে সরকার নিয়ন্ত্রিত এমআরডিসি-র তরফে জানানো হয়েছে। 

যোগ্যতার মাপকাঠি হিসাবে বেশ কিছু শর্ত দিয়েছিল এমআরডিসি। প্রথমত কৃষিজ, বনজ, ভেষজ ও খাদ্যভিত্তিক শিল্পে গত তিন বছর ধরে বছরে অন্তত ৩০০ কোটি টাকার ব্যবসা করতে হবে। এ ছাড়াও বিগত আর্থিক বছরে অন্তত ৭৫ কোটি টাকার সম্পদ থাকতে হবে। দু’টি শর্তই পূরণ করে পতঞ্জলি।

এমআরডিসি জানায়, শর্ত দেওয়া হয়েছিল, নির্বাচিত সংস্থাকে প্রতি বছর অন্তত ১০০ কোটি টাকার কাঁচামাল মিহান এলাকার কৃষক ও উপজাতি সম্প্রদায়ের কাছ থেকে কিনতে হবে এবং কৃষিজ ব্যবসায় দক্ষ করে তোলার জন্য মহারাষ্ট্রের কমপক্ষে ১০০০ জন কৃষককে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। রামদেবের কোম্পানি এই দু’টি শর্তও মেনে নিয়েছে।

ও দিকে মধ্যপ্রদেশেও খাদ্যপ্রক্রিয়াকরণ শিল্প গড়ে তোলার জন্য সেখানকার রাজ্য সরকারের কাছ থেকে ডাক এসেছে বলে পতঞ্জলির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। এ ব্যাপারে পতঞ্জলির ম্যানেজিং ডিরেক্টর আচার্য বালকৃষ্ণনকে চিঠি দিয়েছেন মধ্যপ্রদেশের অর্থ ও শিল্পমন্ত্রী রাজেন্দ্র শুক্ল।     

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here