petrol

ওয়েবডেস্ক: ২০১৩ সালের ১৪ সেপ্টেম্বর দিনটা মনে পড়ে?

ওই দিনই সারা দেশে পেট্রোলের দাম ইতিহাস সৃষ্টি করেছিল। জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি নিয়ে কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছিল একাধিক রাজনৈতিক দল। এমনকী অবিলম্বে পেট্রোল-ডিজেলের দাম না কমানো হলে দেশ জুড়ে বন্‌ধের হুমকি দিয়েছিল বেশ কয়েকটি দল। তবে সে সব এখন অতীত। কারণ, পাঁচ বছর আগের সেই ইতিহাস স্মৃতির অতলে যাওয়াটা অস্বাভাবিক নয়। কিন্তু নতুন ইতিহাস তৈরি হতে চলল বলে।

বিশ্ববাজারে জ্বালানির দাম বাড়লেও নির্দিষ্ট কিছু কারণে দাম নিয়ন্ত্রণের চরম কৌশল ধারণ করেছিল কেন্দ্র। আপাতত সেই কারণসমূহের সমাপ্তি ঘটতেই নতুন করে দাম বাড়ছে জ্বালানির। শনিবারও কলকাতায় পেট্রোলের দাম বেড়েছে ৩০ পয়সা। এ ভাবে এগোতে থাকলে কয়েক দিনের মধ্যেই যে কলকাতায় পেট্রোলের দাম আরও একটা ইতিহাস রচনা করে ফেলবে, তা বলাই বাহুল্য।

নীচের তালিকায় দেখুন কতটা ফারাক রয়েছে নতুন ইতিহাস রচনায়-

শহর নন-ব্র্যান্ডেড পেট্রোলের দর (টাকা) ১৯.০৫.২০১৮ ১৪.০৯.২০১৩
দিল্লি ৭৫.৯১ ৭৬.০৬
কলকাতা ৭৮.৫৯ ৮৩.৬৩
মুম্বই ৮৩.৭৫ ৮৩.৬২
চেন্নাই ৭৮.৭৮ ৭৯.৫৫
     

 

উল্লেখ্য, কর্নাটক বিধানসভা নির্বাচনের আগে ডিজেল ও পেট্রোলের দাম আর যাতে না বাড়ে, সে দিকে লক্ষ্য রেখেই বিশেষ পদক্ষেপ নিয়েছিল কেন্দ্র সরকার। বৃহৎ জ্বালানি বিপণনকারী সংস্থাগুলিকে নিজেদের লভ্যাংশ থেকে লিটার প্রতি ১ টাকা কমানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। তার পরেও আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দামের ওঠাপড়া এবং অভ্যন্তরীণ কর কাঠামোকেই এই মূল্য বৃদ্ধির নেপথ্য কারণ হিসাবে দেখা হচ্ছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here