PNB-Nirav Modi fraud
ফাইল ছবি

বিশেষ প্রতিনিধি: পঞ্জাব ন্যাশনাল ব্যাঙ্কের ১১৫০০ কোটি টাকা জালিয়াতি ঘটনার পরই উঠে এল আরও এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। শেয়ার বাজারের নিয়ন্ত্রক সংস্থা সেবি সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ঘটনার রেশ ধরেই সামনে আসছে কয়েকজন হিরে ব্যবসায়ীর সঙ্গে স্টক মার্কেটের দালালদের গোপন বোঝাপড়ার বেশ কিছু বিষয়।

প্রাথমিক ভাবে নীরব মোদী ও তার মামা মেহুল চোকসির গীতাঞ্জলি জেমসের শেয়ার সংক্রান্ত্র কিছু তথ্যে চোখ বুলিয়ে সেবির আধিকারিকদের মনে হয়েছে, স্টকটিকে সামনে রেখে সাধারণ বিনিয়োগকারীদের বোকা বানানোর ষড়যন্ত্র চলেছে । হিরে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে শেয়ার বাজারের দালালরা সংগঠিত ভাবে এই ষড়যন্ত্র চালিয়েছে।

ব্যাঙ্কগুলির নিয়ন্ত্রক সংস্থা ইতিমধ্যেই নিজেদের তত্ত্বাবধানে পিএনবির হিরে ও অন্যান্য বহুমূল্যবান গয়নার মূল্যায়ন করছে। বর্তমানে প্রায় সমস্ত ব্যাঙ্কই গ্রাহকদের সঙ্গে সরাসরি এই ধরনের ব্যবসা করে থাকে। একই ভাবে কর্পোরেট অ্যাফেয়ার্স মন্ত্রকের তরফে মোদী এবং চোকসির মালিকানাধীন সমস্ত সংস্থার যাবতীয় নথি ঘেঁটে গরমিল খোঁজার চেষ্টা চালাচ্ছে। তারা জানিয়েছে, এখনও পর্যন্ত এই দুই করিৎকর্মার নামে মন্ত্রকের কাছে ডজনখানেক নিবন্ধীকৃত সংস্থার হদিশ মিলেছে।

মোদী যেসব প্রতিষ্ঠানের ডিরেক্টর সেগুলি হল, ফায়ারস্টার ডায়মন্ড প্রাইভেট লিমিটেড, ফায়ারস্টার ডায়মন্ড ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট লিমিটেড, রাধাশীর জুয়েলারি কোম্পানি এবং জুয়েলারি সলিউশন্স ইন্টারন্যাশনাল তার সরাসরি সহযোগিতার নিয়ে চলত যে চারটি অংশীদারী সংস্থা, সেগুলির মধ্যে রয়েছে পাঞ্চজন্য ডায়মন্ডস এলএলপি, নিশাল এন্টারপ্রাইজ এলএলপি, প্যারাগন জুয়েলারি এলএলপি এবং প্যারাগন মার্কেনডাইজিং।

কেট উইনসলেট, প্রিয়াঙ্কা চোপড়া, করিনা কাপুর, আলিয়া ভাট এবং শিল্পা শেঠী-সহ বেশ কিছু চলচ্চিত্র তারকা মোদীর তৈরি গহনা পেয়েছেন, যা তাঁর ওয়েবসাইটে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী জানা গিয়েছে। স্বাভাবিক ভাবেই নেপথ্যে যা থাক, বহর-কদরে ক্রমশ বৃদ্ধি পেতে থাকা ওই গয়না সংস্থাকে সামনে রেখেই হিরে ব্যবসায়ী এবং শেয়ার মার্কেটের দালালরা নির্দ্বিধায় চালিয়ে গিয়েছে বিনিয়োগকারীগের ঠকানোর ষড়যন্ত্র। সেবি স্টক মার্কেট থেকে ওই গয়না সংস্থার যাবতীয় তথ্য সংগ্রহে সে সব তথ্যই প্রকাশ্যে নিয়ে আসতে চলেছে।

 

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন