ওয়েবডেস্ক: জিও-র গ্রাহকদের সুখের দিন হয়তো এবার শেষ হতে চলেছে। প্রথমে বিনা পয়সায় পরে খুব কম খরচে ফোরজি ডাটা পরিষেবা বাজারে এনে ভারতের টেলিকম দুনিয়ার ভোল বদলে দিয়েছিল রিলায়েন্স জিও। মোবাইলে ইন্টারনেট ব্যবহারকারীর সংখ্যাও বেড়ে গেছিল হুহু করে। জিও-র সঙ্গে তাল মেলাতে অন্যান্য টেলিকম সংস্থাও বাজারে সস্তার ডাটা পরিষেবা নিয়ে আসে। সব মিলিয়ে এই মুহূর্তে ভারতের ৪০শতাংশ এলাকায় মোবাইল ডাটা পরিষেবা রয়েছে। সব মিলিয়ে একটি উন্নয়নশীল ফোরজি রাষ্ট্র থেকে উন্নত ফোরজি রাষ্ট্র হওয়ার পথে এগিয়ে চলেছে ভারত।

আর সেখান থেকেই আসছে খারাপ খবর। লন্ডনের ‘ওপেন সিগন্যাল’ সংস্থার একটি রিপোর্ট থেকে জানা যাচ্ছে, ভারত একটি উন্নত ফোরজি রাষ্ট্রে পরিণত হবে ২০১৮ সালে। ২০২০ সালের মধ্যে ভারতের ৮০ শতাংশ এলাকায় মোবাইল ডাটা পরিষেবা পৌঁছে যাবে। এই পরিস্থিতিতে ২০১৮ সালের এপ্রিলের পর থেকে ডাটা ব্যবহারের খরচ বাড়াবে রিলায়েন্স জিও। আর সে্টা হলেই অন্যান্য টেলিকম সংস্থাগুলিও হাঁফ ছাড়বে। প্রতিযোগিতার বাজারে সকলেই লড়তে পারবে নিজের শক্তি নিয়ে।

ওই রিপোর্টে আরও জানা গেছে জিও যে এলটিই প্রযুক্তি দিয়ে পরিষেবা দেয়, সেই প্রযুক্তির মান ভারতে বেশ ভাল। ৯১.৬ শতাংশ ক্ষেত্রে মানুষ সিগন্যাল পান। ৮৪ শতাংশ ক্ষেত্রে অন্যের সিগন্যালের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপন করতে পারেন। তবে ভারতে যে ফোরজি পরিষেবা রয়েছে, সেটির মান মোটেই ভালো নয়। খুব কম সময়ের মধ্যে বহু মানুষ ফোরজি ডাটা ব্যবহার শুরু করেছেন। সেই মতো পরিকাঠামো তৈরি হয়নি। ফোরজি পরিষেবায় কোনো কিছু ডাউনলোড করতে ভারতে গড়ে ৬.১ এমবিপিএস স্পিড পাওয়া যায়। সেখানে যে কোনো উন্নত দেশের গড় এর থেকে ১০ এমবিপিএস-এরও বেশি।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here