sbi

ওয়েবডেস্ক: ১১ হাজার থেকে কয়েক কদম পিছনে দাঁড়িয়ে ভারতীয় শেয়ার বাজারের সূচক নিফটি ফিফটি কোন পথ ধরতে চলেছে, তার আগাম ইঙ্গিত মিলে গিয়েছে গত বুধবারেই। সারা দিনের কেনাবেচায় ৫০ পয়েন্টের উপর পার্থক্য রইল সর্বনিম্ন এবং সর্বোচ্চ চুড়ার। তবুও বাজার বন্ধ হওয়ার সময় দেখা গেল নিফটি মাত্র ১.০৫ পয়েন্টে বেড়ে বন্ধ হল। এ থেকেই স্পষ্ট সংকুচিত হওয়ার পথ ধরল নিফটি, আর তারই সঙ্গে স্টক মার্কেটের শরিকরাও।

নিফটির এখন লক্ষ্য় রয়েছে যে ভাবে হোক ১১,১৭১-এর রেকর্ড ভেঙে ফেলা। যার থেকে বর্তমানে খুব একটা দূরে নেই সে। এবং এ কথা হলফ করে বলা যায়, আগামী কয়েকটি ট্রেডিং সেশনের মধ্যে নিফটি সেই রেকর্ড ভাঙবেই ভাঙবে। গত পাঁচ মাস ধরে সেই প্রস্তুতিই চলেছে ভিতরে ভিতরে। বুধবার নিফটি বন্ধ হয়েছে ১০,৯৪৮.৩০ পয়েন্টে। বৃহস্পতিবারের বিশ্লেষণ বলছে, নীচের দিকে ১০,৯৬৫ এবং উপরে ১১,১৫০ পয়েন্টের মধ্যে অনায়াসে বিচরণ করতে পারে নিফটি। প্রশ্ন থাকতেই পারে, এ দেশের শেয়ার বাজারে সূচকের এই চরম উত্থানেও স্টকের দামে কেন সে ভাবে প্রভাব পড়ছে না?

আরও পড়ুন: বাজারের গতি স্পষ্ট, কিন্তু বিধি বোঝা দায়!

উদাহরণ হিসাবে অনেকেই তুলে ধরছেন, স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার কথা। ৩৫১.৩০ টাকায় ঘুরে আসা এসবিআইয়ের স্টক এখন ঘুরছে ২৬০ টাকায়। অথচ সূচক কিন্তু চড়চড় করে উঠছে। সংস্থার অভ্যন্তরীণ বিষয়, বাজারের সঙ্গে তাল না মিলিয়ে আচমকা বিনিয়োগ বৃদ্ধিতে দাম বেড়ে যাওয়া, সংকুচিত হওয়ার মুখে কোনো নেতিবাচক ঘটনার শিকার হওয়া-ইত্য়াদি বহুবিধ কারণে এসবিআইয়ের মন্দ দশা চলছে বলে মনে করেন ট্রেডপণ্ডিতরা। তবে পাশাপাশি তাঁরা এমনটাও মনে করছেন, জুলাইয়ে এসবিআই পৌঁছতে পারে ২৯০ টাকায়। তবে পাশাপাশি তাঁরা এটাও বলছেন, পরিস্থিতি ঘোরালো হয়ে উঠলে হয়তো নীচের দিকে ২২৭ টাকা পর্যন্ত নামতে পারে এই রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাঙ্কের স্টকের দাম। তবে বাজারের ট্রেন্ড বলছে, দ্বিতীয়টির সম্ভাবনা সামান্য মাত্র।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here