sensex share buy

ওয়েবডেস্ক: গুজরাতের মতোই চরম টানাপোড়নের সৃষ্টি হল কর্নাটক বিধানসভা নির্বাচনকে ঘিরে। ফারাকটা শুধু এই যা, গুজরাতে ছিল শাসন ক্ষমতা ধরে রাখার লড়াই, অন্য দিকে কর্নাটকে বিজেপিকে লড়তে হচ্ছে নতুন করে সাম্রাজ্য গড়ে তুলতে। তবে গুজরাত আর কর্নাটকের এই লড়াইয়ের মধ্যে তুল্যমূল্য বিচার না করেও বলা যায়, শেয়ার বাজারের কাছে দু-টি নির্বাচনই প্রায় সমান গুরুত্ব বহন কর চলেছে। কারণ গুজরাতে যদি হয় দু-দশকের শাসন ক্ষমতা ধরে রাখার লড়াই তা হলে কর্নাটকের ক্ষেত্রে এর সুদূরপ্রসারী ফলাফল, বিশেষ করে ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে এর প্রভাব।

বাজার ভালো সময়ের ইঙ্গিত দিচ্ছে না কি ভালো সময়ের দিকে যাত্রা শুরু করে দিয়েছে, তা কোনো কালেই সংজ্ঞা মেনে নির্ণয় করা সম্ভব নয়। তবুও বলা যায়, বাজারের গতি ফিরে আসছে, কর্নাটক বিধানসভা ভোটকে সামনে রেখে বাজার যে আরও একটু উপরের দিকে উঠে আগামী ১৫ মে ফলাফল ঘোষণার দিন বেশ জমাটিয়া খেলা দেখাবে, তা এক প্রকার নিশ্চিত।

তবে টেকনিক্যাল চাট বলছে, নিফটি যে হারে গত সোমবার এগোলো তাতে খুব একটা আশ্বস্ত হওয়ার কিছু নেই। অন্তত ১০,৭৮০ পয়েন্টের উপরে যত দিন না নিফটি স্থায়ী হচ্ছে, তত দিন পর্যন্ত নিশ্চিন্ত হওয়ার মতো একটা জায়গায় পৌঁছনো সম্ভব নয়। আর নীচের দিকে?

গত মঙ্গলবার নিফটি ১০,৭৫৮ পয়েন্টের সর্বোচ্চ চুড়ো ছুঁয়ে আসার পর বন্ধ হয়েছে অনেকটাই নীচে নেমে (১০,৭১৭ পয়েন্ট)। অর্থাৎ নিজেকে উপরের দিকে তুলে রাখার আপ্রাণ চেষ্টা চালাচ্ছে ভারতীয় শেয়ার বাজারের এই সূচক। কিন্তু শর্ট টার্ম বিনিয়োগকারীদের জন্য বলা যেতে পারে ১০,৬০০ পয়েন্টের নীচে নিফটি নেমে গেলে কিন্তু সতর্ক হয়ে যাওয়াই ভালো।

মঙ্গলবার নিফটির রেজিস্ট্য়ান্স ধরা পড়ছে ১০,৭৫৫ এবং ১০,৭৮৫ অন্য দিকে সাপোর্ট ১০,৬৯০ এবং ১০,৬৬০।

স্বাভাবিক ভাবেই মনে করা হচ্ছে, বুধবারের বাজারও যথেষ্ট অস্থির থাকবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here