sensex bse

২০১৮ সালে রেকর্ড পরিমাণ বাড়তে পারে বিএসই সূচক। গত এক বছরে প্রায় ৭০০০ পয়েন্ট বা ২৬ শতাংশ বৃদ্ধি ঘটে পার করেছে ৩৩ হাজারের ঘাট। সেই সূত্র ধরেই বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, আগামী এক বছরের মধ্যে সূচক হয়তো বা চল্লিশ হাজারে পৌঁছে যেতে পারে।যদিও মাঝেমধ্যে সংশোধন বা কারেকশন ঘটবে বাজারের নিজের নিয়মেই। শেয়ার বাজারে অবশ্য জ্যোতিষ-গিরির কোনও জায়গা নেই। তবুও বাজারের মতিগতি দেখে তেমনটাই ধারণা তাঁদের।

এ সপ্তাহে কেন এতটা দুর্বলতার স্বীকার হল সেনসেক্স বা নিফটি ?

গতকাল ছিল নভেম্বরের ফিউচার এবং অপশনের এক্সপায়ারির দিন। চিরাচরিত সূত্র অনুয়াযী, প্রফিট বুকিংয়ের একটা প্রভাব তো ছিলই। এছাড়া ছিল আমেরিকাকে উত্তর কোরিয়ার হুঙ্কার, গুজরাত বিধানসভা নির্বাচন এবং জিডিপির হার ঘোষণা ইত্যাদি ঋণাত্মক অনুঘটকের কারসাজি। তাহলে কি আজকেও সেনসেক্সকে দেখা যাবে লাল রঙে ঢাকতে ? বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ইন্ট্রাডে ট্রেডারদের জন্য ক্ষণিকের স্বস্তি এনে দিতে পারে আজকের দিন। তেমন কোনও বড়সড় ঘটনা না ঘটলে তাঁদের একেবারে হাত গুটিয়ে বসে থাকতে হবে না আজ।মানে, কারেকশনের আবহেই মাঝেমধ্যে সবুজ মাঠে খেলার সুযোগ মিলতে পারে ইন্ট্রাডে টেডারদের জন্য।তবে পুরোটাই নির্ভর করছে বাজারের মর্জির উপর।

শর্ট টার্মের বিনিয়োগকারীরা নজরে রাখতে পারেন ব্যাঙ্ক অব বরোদাকে। আশা করা যাচ্ছে, খুচরো পরিসরে ৯-১০ শতাংশ বৃদ্ধি পেতে পারে বিওবি-র লোন গ্রোথ। আবার আশানুরূপ ভাবে বাড়তে পারে ঋণ-পরিশোধের পরিমাণও।নেট ইন্টারেস্ট মার্জিন বা এনআইএম-ও আগামী বছরে ২.৩ থেকে ২.৫ শতাংশে উন্নীত হতে পারে। সব মিলিয়ে ১৬৯.৭০ টাকার এলটিপি(গতকালের শেষ কেনাবেচার দর) হয়তো কয়েক মাসের মধ্যেই পৌঁছে যেতে পারে ২৩০ টাকায়। অর্থাৎ বিওবি-তে বিনিয়োগের সিদ্ধান্ত নিলেও নেওয়া যেতে পারে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here