child

ওয়েবডেস্ক: বিমা বা ইনসুরেন্স পলিসি সম্পর্কে কম-বেশি অনেকেরই ধারণা রয়েছে। সরকারি এবং বেসরকারি স্তরে বিভিন্ন রকমের বিমা পলিসি ছড়িয়ে পড়েছে বাজারে। তবে সবার শীর্ষস্থানটি যে দখল করে রেখেছে জীবনবিমা, সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু আর পাঁচ‌টা পসিলির পাশাপাশি সন্তানের ভবিষ্যৎ সুরক্ষিত করার বিভিন্ন প্রকল্পের দিকেও নজর দেওয়া অত্যন্ত জরুরি। কারণ সেখানে রয়েছে একাধিক সুবিধা। তবে পলিসি সংক্রান্ত নথিপত্র সঠিক ভাবে পড়ে নেওয়ার পরই বিনিয়োগের দিকে এগনো উচিত।

এক নজরে কয়েকটি সুবিধা

  • চাইল্ড ইনসুরেন্স পলিসির সব থেকে বড়ো গুরুত্বপূর্ণ দিকটি হল মেয়াদ পূরণ হওয়ার আগে থেকেই একাধিক সুবিধা প্রাপ্তি।
  • সন্তানের স্বাভাবিক-সুস্থ জীবনের কথা ভেবে তার খাদ্য, বস্ত্র বা বাসস্থানের চিন্তা তো পিতা-মাতার কাছে অবশ্য পালনীয় কর্তব্য। পাশাপাশি জন্মের পর তার জন্য বিমা করণের মাধ্যমে তার ভবিষ্যতকে কেন সুরক্ষিত করা হবে না? সমাজে চলনশীল থাকার জন্য সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলির মধ্যে একটি হল আর্থিক নিশ্চয়তা। চাইল্ড ইনসুরেন্স প্ল্যানের মাধ্যমে সেই বিষয়টিকেই সুনিশ্চিত করা সম্ভব।
  • শুধুমাত্র পূর্ব নির্ধারিত মেয়াদের জন্য নয়, ম্যাচুরিটি হওয়ার পরই তার মেয়াদ সম্প্রসারণের সুযোগ দিচ্ছে কয়েকটি সংস্থা।
  • আয়কর আইনের ৮০সি ধারায় বার্ষিক হিসাবে সর্বাধিক এক লক্ষ টাকার প্রিমিয়াম সম্পূর্ণ ভাবে করমুক্ত হতে পারে।
  • চাইল্ড ইনসুরেন্স পলিসির প্রিমিয়াম জমা দেওয়ার জন্য বাড়তি দিন বরাদ্দ করে থাকে কয়েকটি সংস্থা। সে ক্ষেত্রে প্রিমিয়াম জমার শেষ দিন থেকে সর্বাধিক ৩০ দিন পর্যন্ত ছাড় পাওয়া যায়।
  • প্রিমিয়ামের অর্থ জমা করার সুযোগ রয়েছে বার্ষিক, অর্ধ বার্ষিক, ত্রৈমাসিক বা সরাসরি বেতন থেকে জমা করার সুযোগও। তবে সংস্থা বিশেষে এই পদ্ধতির হেরফের হতে পারে।
  • অনেক ক্ষেত্রে শিশুর অভিভাবকের (যাঁর আয়ের উপর শিশু নির্ভরশীল) মৃত্যু হলে অসমাপ্ত প্রিমিয়ামের ক্ষেত্রে বিশেষ ছাড়ের ব্যবস্থা রেখেছে সংস্থাগুলি।
  • এ ছাড়া থাকতে পারে আরও বহুবিধ সুবিধা, কথা বলুন এজেন্টের সঙ্গে। বিনিয়োগ আপনার নিজস্ব সিদ্ধান্তের উপর নির্ভরশীল।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here