Sensex share
জয়ন্ত মণ্ডল

দিওয়ালি শেষ। এক ঘণ্টার মহরতের খেল দেখানোও শেষ। এ বার আবার সেই পুরনো গতে শেয়ার বাজারের সূচকগুলির ওঠা-নামা। যার ইঙ্গিত মিলে গিয়েছে গত শুক্রবারেই। শুরুতেই ধাক্কা। ফের সবুজে ফেরা। কিন্তু দিনের শেষে যে-কে-সেই। সেনসেক্স প্রায় ৮০ পয়েন্টের ঘা খেয়েছে। তবে নিফটির কথা বলতে গেলে একটা কথাই বলা চলে, যতক্ষণ না ৫০ স্টকের এই সূচক ১০,৬৫০ পয়েন্ট পার হয়ে থিতু হচ্ছে ততক্ষণে স্বস্তি দেবে না বিনিয়োগকারীদের।

এমনিতে সোমবারের জন্য নিফটির রেজিস্ট্যান্স দেখা যাচ্ছে, ১০,৬৫০ এবং ১০,৬৯০ পয়েন্ট। হ্যাঁ, ওই ব্যাপারটা বাদ দিলে চলে না যে দিওয়ালির আগে একটু পড়া দামে স্টক কিনে শর্টটার্মে ছেড়ে দেওয়ার চিন্তা মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে। ঠিক কথা। বেশ কিছু স্টক এই ক-দিনে ২-৪ শতাংশ পর্যন্ত উপরের দিকে দৌড় দিয়েছে। ওই সমস্ত স্টকে বিনিয়োগকারীরা লাভের কড়ি ঘরে তুলতেই চাইবেন। কিন্তু আরও একটু সময় দিলে যে বাজার আরও বেশি রিটার্ন দিতে পারে, তেমন মতের সমর্থনে হাজারো যুক্তি হাজির।

নিফটি সোমবার খুব বড়োজোর নামতে পারে ১০,৫৪০ পয়েন্ট পর্যন্ত। শুক্রবার বন্ধ হয়েছে ১০,৫৮৫-তে। যদিও বাজার খোলার পর চলে গিয়েছিল অনেক নীচে। কিন্তু নীচের দিকে যত টানই থাকুক, নিফটির নিম্নগতির থাকবে প্রচণ্ড মন্থর। সেটা তো দিওয়ালি এবং মহরতের রেকর্ড পরিমাণ বিনিয়োগের প্রভাব থাকছেই, তার সঙ্গে রয়েছে বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম-সহ একাধিক কারণ। ঠিক একই কারণে, উপরের দিকে নিফটি গতি সামান্যতমও হলেও বেশি থাকার সম্ভাবনা প্রকট। ফলে পুরনো যা কেনা রয়েছে, তা আরও একটু বেশি লাভের জন্য ধরে রাখা বা এই মুহূর্তে বাজার পড়ে গেলে পড়া দামে নতুন কিছু স্টক কিনে নেওয়াই বুদ্ধিমানের কাজ হতে পারে।

শেয়ার বাজারে ভবিষ্যদ্বাণী খাটে না। কিন্তু ট্রেন্ড বলেও তো একটা বিষয় থেকেই যায়। তারই সঙ্গে রয়েছে টেকনিক্যাল চার্টও। তা যাইহোক, এ বার তাকানো যাক কেনাবেচার ঝুড়িতে। কোন স্টক কিনবেন, তা একান্ত ভাবেই নিজস্ব সিদ্ধান্তের উপর নির্ভরশীল। তবে কেনার আগে একটু ঝালিয়ে নেওয়া যেতে পারে।

বাজারে চড়চড়িয়ে উপরের দিকে উঠছে হিরো মোটোকর্প। নতুন করে বলার নয়, ২ চাকার বাইক এবং স্কুটার প্রস্তুতকারী সংস্থা। বাজারে ক্রমশ জাঁকিয়ে বসেছে ্অন্যান্য সংস্থাগুলির সঙ্গে প্রতিযোগিতায় সমানে পাল্লা দিয়ে। শিক্ষকদিবস উপলক্ষে গোটা সেপ্টেম্বর মাস জুড়ে বিষেশ অফার, অক্টোবরে উৎসব অফার, একাধিক নতুন মডেল বাজারে ছাড়ার সুফল মিলছে শেয়ার বাজারেও।

শুক্রবারের পড়তির বাজারেও হিরো মোটোকর্প বেড়েছে ২.৪৭ শতাংশ বা ৭১.৩৫ টাকা। সংস্থার ত্রৈমাসিক রিপোর্ট পেশ নিয়ে আগ্রহ ছিল তুঙ্গে। সেই আকাঙ্ক্ষিত রিপোর্ট পেশের পর দেখা গিয়েছে, অনুমান ছুঁয়ে ফেলেছে প্রফিটকে। ফলে হিরোর হিরোগিরি অব্যাহত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here