sensex bse

আজ নিফটি

পিভট পয়েন্ট – ১০০৬০ * সাপোর্ট- ১০০১৭৯৯৯০ * রেজিস্ট্যান্স- ১০০৮৭ ১০১৩১

সংশোধনের পথে পা বাড়ানোর এটাই কি সুযোগ্য সময় নয়এমন প্রশ্নের বিনিময়ে না বলার মতো কোনো যুক্তি খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না। গত মাসে ব্যাঙ্কগুলিকে বাড়তি মূলধন জোগানের সরকারি প্রতিশ্রুতি ঘোষণার পরদিনই চোঁ চোঁ করে বেড়ে গিয়েছিল বাজারের সব কটি সূচক। কয়েক মিনিটের মধ্যে ২৫৫ টাকার এসবিআই পৌঁছে গিয়েছিল ৩১০-এ। বেলা যত গড়িয়েছে দেখা গিয়েছে ৩০০-এর নীচে ঘুরপাক খাওয়া এসবিআই ৩২০ টাকা টপকে গেছে। পরদিন আরো বেড়ে সাড়ে তিনশোর ঘাড়ে। আবার আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘মুডি’র তরফে ভারতের রেটিং ‘বিএ’ থেকে ‘বিএএ’-তে উন্নীত হতেই বাজার বাড়তি অক্সিজেন পেয়ে গিয়েছে সাময়িক ভাবে। এই একটি স্টক নয়, বিএসই অথবা এনএসই নিবন্ধীকৃত প্রতিটি স্টকই কম-বেশি খেলা দেখিয়েছে। এবার এসেছে সেই মনোরঞ্জন উপভোগ করার মূল্য চোকানোর।

একে তো গুজরাত নির্বাচন তার উপর রয়েছে রিজার্ভ ব্যাঙ্কের রেপো রেট নিয়ে কঠিন সিদ্ধান্ত।এরই মাঝে নতুন একটি বিষয়ের সংযোজন ঘটেছে সম্প্রতি। তা হল মিউচুয়াল ফান্ডে মানুষের আগ্রহ বৃদ্ধি। গত নভেম্বরে মিউচুয়াল ফান্ডে বিনিয়োগের প্রবণতা চরম ভাবে লক্ষ্য করা যাচ্ছে।  ২৫০০০ কোটি টাকার বিনিয়োগ এসেছে মিউচুয়াল ফান্ডে। তবে কি শেয়ার বাজারের সাময়িক অনিশ্চয়তা বিনিয়োগকারীদের মিউচুয়াল ফান্ডের দিকে টেনে নিয়ে আসছে, তেমন প্রশ্নের উত্তর খোঁজাও প্রাসঙ্গিক।

এছাড়া আর একটি কারণ, তৃতীয় ত্রৈমাসিকের রিপোর্ট পেশ করার সময় এসে গিয়েছে ব্যাঙ্ক সহ বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানের। খুচরো বাজারে পণ্যের যে আকাশ ছোঁয়া দাম, তা দেখে মনে হয় না ওই সব সংস্থার ত্রৈমাসিক হিসাবে খুব একটা জমকালো ফলাফল মিলতে পারে।

সব মিলিয়ে গত এক-দেড় মাসে উপরে উঠতে থাকা বাজার একটু দম নিয়ে নিতে চাইছে বলেই মনে করছেন ট্রেড পণ্ডিতরা। তবে বিনিয়োগকারীরা ভেবে দেখতে পারেন, এই পড়তির বাজারে অচিরে ফলদায়ী কিছু স্টক ঝুড়িতে নেওয়া যায় কি না। আগামী কাল থাকবে তেমনই কিছু স্টকের বিবরণ যা এক মাসের মধ্যেই ঝুড়ি উপচে দিতে পারে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here