Sensex Share Market
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: চলতি বছরেরই ১২ জুন। যে দিন স্টিল অথরিটি অব ইন্ডিয়া বা সেলের স্টক প্রতি দাম ছিল ৯০ টাকা। অন্য দিকে ওই একই দিনে ভারতীয় শেয়ার বাজারের অন্যতম সূচক সেনসেক্স সে দিন ছিল ৩৫,৭০০ পয়েন্টের আশেপাশেই।

চলতি বছরেরই ২৭ আগস্ট, অর্থাৎ গত সোমবার। সেলের স্টক প্রতি দাম ৭৭.৩০ টাকা। অন্য দিকে ওই একই দিনে সেনসেক্স দাঁড়িয়ে আছে ৩৮,৭০০ পয়েন্টের আশেপাশে।

Share

তা হলে একটা বিষয় জলের মতো সহজ হয়ে গেল, বাজারের সূচক যখন মাস দুয়েকের ব্যবধানে ৩ হাজার পয়েন্ট বেড়ে গেল, তখন একটা ১০০ টাকার কম দামে থাকা স্টকের দাম ১৩ টাকা কমে গেল। ট্রেডপণ্ডিতরা আবার শতকরা হারের যুক্তি দাবি করবেন। সেটাও দেওয়া যাক- উপরে ওঠার নিরিখে সেনসেক্সের বৃদ্ধি ৮.৪০ শতাংশ, সেখানে সেলের নীচের দিকে নামার শতকরা হার প্রায় সাড়ে ১৪ শতাংশ।

এ বার গড়গড় করে বলে চলুন সেলের টেকনিক্যাল চার্ট, সেলের সংস্থাগত আর্থিক অবস্থান বা সেল নিয়ে তৈরি হওয়া শেয়ার বাজারের কিছু অর্থনৈতিক গসিপ। অথচ দেখুন, সেল গুজরাত, অন্ধ্রপ্রদেশ এবং মহারাষ্ট্রে ৫ হাজার কোটি টাকার অটোগ্রেড স্টিল প্লান্টের কাজ করছে আর্সেলর মিত্তলের সঙ্গে। তবুও তার এই দশা।


আরও পড়ুন: আপনি কি পিপিএফ অ্যাকাউন্টে ‌টাকা রাখেন? তা হলে এই ৩টি বিষয় মাথায় রাখবেন


এই একটা উদাহরণের থেমে নেই শেয়ার বাজারের সূচকগুলির বৃদ্ধির কারচুপি। এমন শখানেক শেয়ার রয়েছে, যেগুলি সূচক ৩৫ হাজারে থাকার সময় যে পরিস্থিতিতে ছিল, সেনসেক্স ৩৮ হাজার পার করার পর তারা পড়ে গেছে তার থেকেও গভীর খাদে। কেন? সে সব কথা আগামী পর্বে, নজরে থাকুক: www.khaboronline.com

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন