sensex Information
বাজার এখন তুঙ্গে, সম্ভাবনা আরও ওঠার

বিশেষ প্রতিনিধি: শেয়ার বাজারে বিনিয়োগ করার মতো মানসিকতা এবং অর্থ থাকলে এখন আপনার জন্য লক্ষ্মীলাভের নিশ্চয়তা দিচ্ছে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্র। কয়েক সপ্তাহ আগেই আমরা টেক মাহিন্দ্রা নিয়ে আলোচনা করেছিলাম। তা যে নিছক আলোচনা নয়, বাস্তবে তার প্রমাণও পাওয়া গিয়েছে। আদতে আমেরিকার ডলারের অবনমন যখন শুরু হয়েছিল তখন তো বটেই, আবার ফের যখন ধীরে ধীরে ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে সেই বর্তমানেও তথ্যপ্রযুক্তির পালে জোরালো হাওয়া লেগেই রয়েছে। ফলে আগামী ৬-৭ মাসের জন্য বিনিয়োগের লাভদায়ক লক্ষ্য হিসাবে এই ক্ষেত্রটিকে বেছে নেওয়া যেতে পারে।

ধরুন ইনফোসিসের কথা। গত ২০১৭-র আগস্টে ৮৬০ টাকার মতো দর ছিল এর প্রতি স্টকের। সেই তিন অঙ্কের সংখ্যা চার অঙ্কে পৌঁছতে সময় লাগল কত। মাত্র চার মাস পরেই এর স্টক প্রতি দর বেড়ে গিয়েছে প্রায় চারশো টাকা। গত জানুয়ারির শেষ সপ্তাহে সেই যে ইনফোসিস চার অঙ্কের সংখ্যায় পৌঁছেছে এর পরে এত সব নেতিবাচক কাণ্ড ঘটে গেলেও সে কিন্তু অনমনীয় থেকেছে। এখন সাড়ে ১১০০ টাকার আশেপাশে ঘুরছে। যেখানে এর সর্বোচ্চ চুড়া ১২২১ টাকা। ফলে তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রের এমনই কিছু স্টক ধরতে পারলে খুব একটা বিপদে পড়ার সম্ভাবনা নেই। ঝুঁকি তো থাকবেই নিয়ম মেনে।

২০১৭ এবং ২০১৮-তেও এই স্টকগুলিতে বিনিয়োগ করে বিফল হননি কেউ-ই । গত বছর তো তথ্যপ্রযুক্তির কোনো কোনো স্টক একশো শতাংশ পর্যন্ত রিটার্ন দিয়েছে। সার্বিক ভাবে তথ্যপ্রযুক্তি শিল্পের গড় বৃদ্ধি প্রায় ১১-১২ শতাংশ বেড়েছে। আবার চলতি বছরের জানুয়ারির পয়লা তারিখে ফিরে গেলে দেখা যাবে, ওই সম পরিমাণ বৃদ্ধি ঘটে গিয়েছে মাত্র আড়াই মাসের মধ্যেই। পিএনবি-নীরব মোদী জালিয়াতি কাণ্ড অথবা আমেরিকার আমদানি শুল্ক বৃদ্ধির কোনো প্রভাবই পড়তে দেখা যায়নি তথ্যপ্রযুক্তি ক্ষেত্রে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন