sensex,Nikkei 225,Dow Jones Industrial Average

বুধবার এফডিআই সংস্কারের প্রস্তাব ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারল না শেয়ার বাজারে। বিদেশি লগ্নি সংক্রান্ত যে কোনো সরকারি ঘোষণা বাজারকে চাঙ্গা করে তোলে। কিন্তু বুধবার তার সামান্যতম ব্যতিক্রম ঘটতে দেখা গেল। সামান্যতম এই কারণেই যে, সেনসেক্স বা নিফটির যে পতন বুধবারের বিনিয়োগকারীরা দেখেছেন, তা উল্লেখ করার মতো নয়। কিন্তু একই দিনে সেনসেক্স এবং নিফটি সর্বকালীন সেরা উচ্চতায় পৌঁছে গিয়েছে। নিজেকে ধরে রাখার প্রশ্নে ব্যর্থ হয়েছে, এই যা। তবুও কয়েকটি ক্ষেত্রে ১০০ শতাংশ পর্যন্ত বিদেশি বিনিয়োগের কথা উঠতেও বাজার কেন পড়ে গেল। এর কারণ রয়েছে অন্যত্র। অন্তত তেমনটাই ধারণা করা হচ্ছে। বিভিন্ন কর্পোরেট সংস্থার ত্রৈমাসিক ফলাফল ঘোষণা। এবং আগামী ১ ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হতে যাওয়া কেন্দ্রীয় বাজেট।

তাই বলে আতঙ্কে থরহরি কম্প হওয়ার মতো কোনো লক্ষণ দেখাচ্ছে না বাজার। বাজেট নিয়ে বিনিয়োগকারীদের সেন্টিমেন্ট এখন থেকেই সক্রিয় হয়ে উঠেছে। আর্থিক সংস্কারে সরকার কতটা সফল হবে, বা কোন কোন ক্ষেত্রে সেই সংস্কার প্রভাব ফেলবে, সে সব নিয়ে কাটা ছেঁড়া শুরু হল বলে। কিন্তু ট্রেড পণ্ডিতরা বলছেন, সেনসেক্স হোক বা নিফটে বা বাজারের অন্যান্য সূচক-খুব একটা পতন লক্ষ্য করা যাবে না কারও ক্ষেত্রেই। সেনসেক্সে খুব বেশি হলে পাঁচ শতাংশ পতনের সম্ভাবনা দেখা দিতে পারে। তবে সে সব নিয়ে গভীর চিন্তায় নিমজ্জিত হলে সু-সময়ের বিনিয়োগ ব্যাহত হবে।

এ বার আসা যেতে পারে আজকের স্টকে। কী কেনা যায়। স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়ার দিকে তাকান। এসবিআই ২৯০ টাকার ঘরে ঢুকলেই শর্ট টার্মের জন্য় কিনে ফেলা যেতেই পারে। ২০১৮-এর মধ্যে এই স্টক যে ৪০০ টাকা ছুঁতে চলেছে, তা নিয়ে সব মহলই এক মত। বাজেটে ব্যাঙ্ক নিয়ে যতই নেতিবাচক নীতি নিয়ে থাকুক সরকার, এসবিআই কিন্তু নিজের মর্জি মতোই চলবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন