raymond

বিশেষ প্রতিনিধি: মাসের শেষ বৃহস্পতিবার, এক্সপায়ারির দিনে বাজার যে তীব্র টানাপোড়েনের মধ্য়ে দিয়ে যেতে চলছে, তেমন একটা অনুমান তো ছিলই। কিন্তু আদতে মাত্র আধ ঘণ্টার ব্যবধানে এ দেশের শেয়ার বাজারের সূচক নিফটি যে ধরনের প্রত্যয় দেখালো তা বাকি পড়ে থাকে বছরের জন্য কোন ইঙ্গিত বহন করছে?

১০,৫৫৯ পয়েন্টে নেমে গেল নিফটি। তার পরই কোনো এক আশ্চর্য শক্তিতে প্রায় ৬৮ পয়েন্টের উত্থানের সাক্ষী হলে বিনিয়োগকারীরা। মনে এমন একটা ধারণা বদ্ধমূল যে, ওই দিন প্রফিট বুকিংয়ের ধাক্কায় হয়তো গত বুধবারের ট্রেন্ড বজায় রাখবে শেয়ার বাজার। কিন্তু বাস্তবে হল তা উল্টোটাই। কেন? বিশ্লেষকদের মতে, গত দেড় মাসের মেয়াদকালে বাজার যে হারে সংকুচিত হয়েছে, তাতে বিনিয়োগকারীরা ভরসা পাচ্ছেন। স্টকের কেনা দামের থেকে নীচে পড়ে থাকা দরে অযথা বিক্রির পথ না ধরে উল্টে এই সুযোগে বিনিয়োগের পরিমাণ আরও কিছুটা বাড়িয়ে নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন অনেকেই। সে কারণেই হয়তো বাজারে বিক্রেতার থেকে ক্রেতার সংখ্যা অনেকটাই বেশি। তা যাই হোক, কিনবেন কোন শেয়ার?

হাতের কাছে রয়েছে রেমন্ড। শেষ ত্রৈমাসিক তো বটেই গোটা ২০১৭-১৮ অর্থবৰ্ষের লাভের পরিমাণকে চমকপ্রদ জায়গায় নিয়ে গিয়েছে সংস্থা। রেমন্ডের ছটি সেগমেন্ট যথা ব্র্যান্ডেড টেক্সটাইল (প্রিমিয়াম ফ্যাব্রিক), শার্ট ফ্যাব্রিক, ব্র্যান্ডেড পোশাক, গার্মেন্টস উৎপাদন, হার্ডওয়্যার এবং অটো উপাদান- সব ক্ষেত্রেই আশাজনক ফল করছে সংস্থা।

খুব বেশি গভীরে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। নীচে সংস্থার দেওয়া পরিসংখ্যানে নামমাত্র চোখ বুলিয়ে নিলেই বোঝা যাবে কী ভাবে কতটা লাভের পরিমাণ বাড়িয়ে নিয়েছে রেমন্ড। পরবর্তী সিদ্ধান্ত আপনার।

raymond
পরিসংখ্যান তালিকা সংস্থার

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here