kolkata high court

এনসিটিই-কে কে বিপথে চালনা করার জন্য রাজ্যকে তীব্র ভর্ৎসনা করল কলকাতা হাইকোর্ট। প্রাথমিক শিক্ষক পদে নিয়োগ সংক্রান্ত একটি মামলায় বৃহস্পতিবার বিচারপতি সি এস কারনান সরকারি আইনজীবীকে প্রায় তুলোধনা করেন। তিনি বলেন, ২০১৫-এর ২৩ মার্চ রাজ্য সরকার কেন্দ্রকে চিঠি লিখে জানিয়েছিল, রাজ্যে বি এড ডিগ্রিধারী প্রার্থীর সংখ্যা কম।এই অবস্থায় রাজ্যের প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলিতে অপ্রশিক্ষিত শিক্ষক নেওয়ার জন্য রাজ্যকে যেন কেন্দ্র অনুমতি দেয়। এর প্রেক্ষিতে এনসিটিই চলতি বছরের ২২ এপ্রিল পর্যন্ত রাজ্যকে অপ্রশিক্ষিত শিক্ষক নিয়োগের অনুমতি দিয়েছিল। কিন্তু দেখা যাচ্ছে শিক্ষক নিয়োগের নাম করে কেন্দ্রের থেকে ছাড় নিয়েও সেখানে আদৌ শিক্ষক নিয়োগ করেনি রাজ্য। আসলে রাজ্য কেন্দ্রকে বিপথে (মিসগাইড) চালিত করেছে।

গত বছর ২৩ মার্চ রাজ্য সরকার অপ্রশিক্ষণ প্রাপ্ত শিক্ষক নিয়োগের জন্য কেন্দ্রের কাছে এক বছরের ছাড় চেয়েছিল। সেই অনুযায়ী এনসিটিই চলতি বছরের ২২ এপ্রিল পর্যন্ত ছাড় দেয় রাজ্যকে। এর পর গত বছরের ১১ অক্টোবর রাজ্যে প্রাইমারি টেট হয়। কিন্তু বি এড ডিগ্রিধারী বেশ কয়েক জন পরীক্ষার্থী মামলা করে জানান, রাজ্য সরকারকে এনসিটিই নির্দেশ দিয়েছিল এক বছরের মধ্যে প্রশিক্ষণের পাশাপাশি অপ্রশিক্ষিতদের সময়সীমার মধ্যেই সকলকে নিয়োগ করতে হবে। অথচ রাজ্য শুধুমাত্র পরীক্ষাটুকুই নিয়েছে। বাকি নিয়োগ প্রক্রিয়া এখনও শেষই করেনি। ফলে এই প্রক্রিয়াটাই অবৈধ বলে দাবি করেন মামলাকারী পরীক্ষার্থীদের আইনজীবী সৌমেন দত্ত।

শুক্রবার মামলাটির ফের শুনানি রয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here