নয়াদিল্লি: আফ্রিকানদের ওপর আক্রমণের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ ভারত। চাঁচাছোলা ভাষায় ভারতকে নিন্দা করে, এই হামলার পেছনে আন্তর্জাতিক তদন্তের দাবি করলেন আফ্রিকান দূতরা। এর ফলে নিঃসন্দেহে কূটনৈতিক স্তরে লজ্জায় পড়ল কেন্দ্রীয় সরকার।

গত সপ্তাহে গ্রেটার নয়ডায় আফ্রিকান নাগরিকদের ওপর হামলার পরিপ্রেক্ষিতে একটি বৈঠক করে ‘হেড্‌স অফ আফ্রিকান মিশন আক্রিডেটেড টু ইন্ডিয়া’র সদস্যরা। বৈঠকের পরে সংগঠনের তরফ থেকে একটি প্রেস বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, “বৈঠকে সবাই একমত হয়েছে যে গত সপ্তাহে আফ্রিকান নাগরিকদের ওপর যে হামলা হয়েছে, সেটা সম্পূর্ণ বর্ণবিদ্বেষী এবং বিদেশিবিদ্বেষীমূলক।” সেই সঙ্গে বিবৃতিতে আরও জানানো হয়েছে যে, কেন্দ্রীয় সরকার এই হামলার প্রকৃত নিন্দা করেনি। তাদের কথায়, “আমাদের মনে হয়েছে যে ভারতীয় প্রশাসন এই ঘটনার প্রকৃত নিন্দা করেনি।”

এর পাশাপাশি আফ্রিকানদের ওপর পুরোনো হামলার প্রসঙ্গ এনে বিবৃতিতে আরও বলা হয়, “আফ্রিকানদের ওপর অতীতে বেশ কয়েক বার হামলার ঘটনা ঘটেছে। কিন্তু সংগঠনের মনে হয়েছে সেই সব হামলার ঘটনায় কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি ভারত সরকার।”

উল্লেখ্য, গত বছর মে মাসে দিল্লিতে খুন হন কঙ্গোর এক নাগরিক। একই মাসে অপর একটি ঘটনায় দিল্লিতে আক্রমণের শিকার হয়েছিলেন নাইজেরিয়া, ক্যামেরুন, উগান্ডা, দক্ষিণ আফ্রিকার কয়েকজন তরুণ-তরুণী। আফ্রিকান দূতরা এই ঘটনাকে বর্ণবিদ্বেষী আখ্যা দিলেও তা নস্যাৎ করে দিল্লি পুলিশ জানায়, জনসমক্ষে মদ্যপানের জন্যই নাকি আক্রান্ত হয়েছেন ওই আফ্রিকান নাগরিকরা। অন্য দিকে ২০১৫-তে বেঙ্গালুরুতে আক্রান্ত হয়েছিলেন আফ্রিকার চার জন নাগরিক।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here