ওয়েবডেস্ক: একই পরিবারের চার ভারতীয় নাগরিকের মৃত্যুকে ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়াল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে। নিজেদের বাড়ি থেকেই উদ্ধার করা হয়েছে এক দম্পতি এবং তাঁদের দুই সন্তানের দেহ। প্রত্যেকের দেহে পাওয়া গিয়েছে গুলির চিহ্ন। খুন নাকি আত্মহত্যা করেছেন ওই চারজন, তা নিয়েই তৈরি হয়েছে ধোঁয়াশা।

নিহত এই পরিবার অন্ধ্রপ্রদেশের গুন্টুরের বাসিন্দা। স্ত্রী লাবণ্য এবং সন্তানদের নিয়ে মার্কিন মুলুকে চলে গিয়েছিলেন চন্দ্রশেখর শঙ্কর। পাবলিক সেফটি টেকনোলজি সার্ভিসেসে চাকরি করতেন শঙ্কর।

আরও পড়ুন ‘বিরোধীদের মতামতের মর্যাদা দেওয়া হবে!’ লোকসভার অধিবেশনের শুরুতে বললেন মোদী

স্থানীয় সূত্রে খবর শনিবার সকালে পরিচিত এক ব্যক্তি শঙ্করের বাড়িতে আসেন৷ সেই সময়  বাড়িতেই তাঁর স্ত্রী এবং দুই সন্তানের মৃতদেহ পড়ে থাকতে দেখেন। এরপর স্থানীয়দের সহযোগিতায় পুলিশে খবর দেন তিনি৷ পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়৷ চন্দ্রশেখর শংকর, একচল্লিশ বছর বয়সি স্ত্রী লাবণ্য, তাঁদের ১৫ এবং ১০ বছর বয়সি দুই সন্তানের রক্তাক্ত দেহ উদ্ধার করে৷ প্রত্যেকেরই মাথায় পাওয়া গিয়েছে গুলির চিহ্ন৷

সবার দেহ ময়নাতদন্তে পাঠানো হয়েছে। পড়শিদের সঙ্গে কথা বলে জানা গিয়েছে বেশ কিছুদিন মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন শঙ্কর। প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের অনুমান, শঙ্কর একে একে স্ত্রী লাবণ্য এবং দুই পুত্রসন্তানকে গুলি করে খুনের পর আত্মহত্যা করেছেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here