Connect with us

বিদেশ

ভয়াবহ পরিস্থিতি! ইতিহাসের উষ্ণতম গ্রীষ্ম উত্তর গোলার্ধে

Published

on

ওয়েবডেস্ক: ১৪০ বছরের ইতিহাসে এই রকম গ্রীষ্ম উত্তর গোলার্ধ দেখেনি। তথ্য দিয়ে এমনই জানাল ন্যাশনাল ওশানিক অ্যান্ড অ্যাটমস্ফেরিক অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এনওএএ)। বিংশ শতকে উত্তর গোলার্ধে গড় যে তাপমাত্রা ছিল, এ বার তার থেকে ২.০৩ ডিগ্রি বেশি পারদ রেকর্ড করা হয়েছে।

এমনকি এই বছর আগস্ট ছিল আবহাওয়ার ইতিহাসে দ্বিতীয় উষ্ণতম মাস। এনওএএ-এর এই দাবির সঙ্গে সহমত নাসাও। উত্তর মেরু অঞ্চলে এ বারের মতো গরম আগে কখনও পড়েনি বলে দাবি করা হয়েছে। ভয়াবহ রকম উষ্ণ ছিল উত্তর গোলার্ধের বিভিন্ন সাগরও।

শেষ বার এই রকম গরম পড়েছিল ২০১৬ সালে। কিন্তু এ বার সেই বছরকেও পেছনে ফেলে দিয়েছে গরম। আবহাওয়া বিশেষজ্ঞরা অবাক এই ভেবে যে শক্তিশালী এল-নিনো না থাকা সত্ত্বেও কী ভাবে এ রকম গরম পড়ল উত্তর গোলার্ধে। এ বছর এল-নিনোর প্রকোপ ছিল ঠিকই, কিন্তু তা ছিল দুর্বল, ২০১৬-এর মতো শক্তিশালী নয়। এল-নিনো থাকলেই, সাধারণত ব্যাপক গরম পড়ে উত্তর গোলার্ধে।

এনওএএ-এর আরও একটা তথ্য বলছে, গত পাঁচটা বছরই ছিল গোটা বিশ্বের নিরিখে পাঁচটি উষ্ণতম গ্রীষ্ম। বিশেষজ্ঞদের মতে, দূষণের মাত্রা যে ভাবে দিনের পর দিন বাড়ছে, তাতে এই ধরনের গরম পড়া অস্বাভাবিক কিছুই নয়।

এ বছর গরমে কিছু অস্বাভাবিক ঘটনা ঘটেছে। জুলাইয়ে প্যারিসে এমন গরম পড়েছিল, যে অতীতের সব রেকর্ড পারদ ভেঙে দিয়েছিল। প্যারিসের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি ছাড়িয়ে গিয়েছিল। উত্তর মেরু অঞ্চলে অবস্থিত আলাস্কায় গড় পারদ ছুঁয়েছিল ৩২ ডিগ্রি। এমনকি গত আগস্টে আর্কটিক সাগরে যে হারে বরফ গলেছে, তার নজিরও বিশেষ নেই বলে জানান বিজ্ঞানীরা।

উত্তর গোলার্ধ ছেড়ে যদি এ বার গোটা বিশ্বের কথা বলা হয়, তা হলে জুন-জুলাই-আগস্টের সময়টা ইতিহাসে দ্বিতীয় উষ্ণতম সময় হিসেবে ধরা হবে। এই সময়ে গড় পারদ স্বাভাবিকের থেকে ১.৬৭ ডিগ্রি বেশি ছিল বলে জানিয়েছে এনওএএ।

এনওএএ-এর তথ্য অনুযায়ী, জুন-আগস্ট সময়কালের গরমের নিরিখে সব থেকে উষ্ণ ন’টি বছরই রেকর্ড করা হয়েছে ২০০৯ সালের পরে। এই তালিকার বাইরে রয়েছে একমাত্র ১৯৯৮, যখন ‘সুপার এল-নিনো’ হানা দিয়েছিল উত্তর গোলার্ধে।

বিদেশ

করোনায় আরও ১০ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হতে পারে, উদ্বেগের কথা শোনাল ‘হু’

মৃতের সংখ্যা বর্তমানে প্রায় ১০ লক্ষ, তা দ্বিগুণ হতে পারে।

Published

on

mike ryan
মাইক রায়ান। ফাইল ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: চিনে প্রথম করোনাভাইরাস (Coronavirus) আক্রান্তের হদিশ মেলার পর কেটে গিয়েছে প্রায় ১০ মাস। ধাপে ধাপে সংক্রমণ ছড়িয়েছে গোটা দুনিয়ায়। মৃত্যু হয়েছে কয়েক লক্ষ মানুষের। কিন্তু এই মৃত্যুমিছিলে এখনই ইতি পড়ছে না বলে আশঙ্কার কথা জানাল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO)-র এক কর্তা।

অত্যাধুনিক প্রযুক্তি এবং বৈজ্ঞানিক পদ্ধতির সাহায্যে এখনও পর্যন্ত তেমন কোনো সার্বিক কার্যকরী ভ্যাকসিন বাজারে আসেনি। একই সঙ্গে এগিয়ে আসছে শীতকাল। ফলে মহামারি আরও মারাত্মক আকার ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিশেষজ্ঞরা।

শনিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) পর্যন্ত সারা বিশ্বে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা ৩ কোটি ২৭ লক্ষ ৯৪ হাজার ৪০৭। মৃতের সংখ্যা ৯ লক্ষ ৯৪ হাজার ৮। কার্যকর একটি ভ্যাকসিন সহজলভ্য হওয়ার আগে মৃত্যুর সংখ্যা প্রায় দ্বিগুণ হতে পারে আশঙ্কা প্রকাশ করলেন হু-র জরুরি স্বাস্থ্য কর্মসূচির নির্বাহী পরিচালক ডা. মাইক রায়ান (Mike Ryan)।

কী বলছেন হু বিশেষজ্ঞ?

শুক্রবার রায়ান বলেন, এখনই সম্মলিত আন্তর্জাতিক পদক্ষেপ না নেওয়া হলে মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে।

তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, কোভিড-১৯ (Covid-19)-এর প্রতিষেধক সহজলভ্য হওয়ার আগেই কি মৃতের সংখ্যা ২০ লক্ষ ছাড়িয়ে যেতে পারে? এমন প্রশ্নের জবাবে রায়ান বলেন, “এটা অসম্ভব নয়”।

তিনি বলেন, “গত ১০ মাসে আমরা প্রায় ১০ লক্ষ মানুষের প্রাণহানি দেখেছি। আগামী ন’মাস প্রতিষেধকের জন্য অপেক্ষা না করে আমাদের সম্মিলিত ভাবে এগিয়ে আসতে হবে”।

শুধুমাত্র ভ্যাকসিনে হবে না!

সংবাদ সংস্থা বিবিসির রিপোর্ট অনুযায়ী, “জেনেভায় হু-র সদর দফতরে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, লকডাউন একেবারে শেষ অবলম্বন। সেপ্টেম্বরে আমরা সেই অবলম্বন থেকেও ফিরে আসছি। এখন এই মহামারি থেকে বাঁচার একমাত্র উপায় যথাযথ ভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা। দেখা যাচ্ছে, যেখানে স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না, সেখানে সংক্রমণ বেশি ছড়াচ্ছে। যেখানে মানা হচ্ছে, সেখানে সংক্রমণও কম”।

একই সঙ্গে তিনি স্মরণ করিয়ে দেন, “শুধুমাত্র ভ্যাকসিন দিয়ে সংক্রমণ অথবা কোনোটাতেই সম্পূর্ণ লাগাম টানা সম্ভব নয়”।

আরও পড়তে পারেন: কোভিড ভ্যাকসিন: প্রারম্ভিক পরীক্ষায় উতরে গেল জনসন অ্যান্ড জনসন

Continue Reading

বিজ্ঞান

কোভিড ভ্যাকসিন: প্রারম্ভিক পরীক্ষায় উতরে গেল জনসন অ্যান্ড জনসন

প্রারম্ভিক পরীক্ষায় মাত্র একটি ডোজ দেওয়ার পরেই দৃঢ় প্রতিরোধ প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে।

Published

on

ভ্যাকসিন প্রয়োগ। প্রতীকী ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বহুজাতিক ওষুধ প্রস্তুতকারী এবং চিকিৎসা সরঞ্জাম নির্মাতা সংস্থা জনসন অ্যান্ড জনসনের (Johnson and Johnson) সম্ভাব্য কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের প্রারম্ভিক পরীক্ষায় ভালো প্রতিক্রিয়া দেখাল।

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে ভ্যাকসিনটির প্রারম্ভিক পরীক্ষায় মাত্র একটি ডোজ দেওয়ার পরেই দৃঢ় প্রতিরোধ প্রতিক্রিয়া দেখা গিয়েছে বলে একটি মেডিক্যাল ওয়েবসাইট (medRxiv)-এ প্রকাশিত হয়েছে।

ওয়েবসাইটটির প্রকাশিত তথ্যে বলা হয়েছে, “শুধুমাত্র একটি ডোজ দেওয়ার পরেই নিরাপত্তা এবং অনাক্রম্যতা সংক্রান্ত বিষয়গুলিতে আশাব্যঞ্জক ফল পাওয়া গিয়েছে। ‘এডি২৬.কোভ২.এস’-এর ৫x১০১০ ভিপির ওই একটি ডোজ কোভিড-১৯ (Covid-19)-এর প্রতিরোধে পর্যাপ্ত সুরক্ষামূলক প্রতিষেধক হিসেবে সহায়ক”।

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে যে চারটি কোভিড ভ্যাকসিন এখনও পর্যন্ত চূড়ান্ত পর্যায়ের পরীক্ষায় দৌড়ে রয়েছে, জনসন অ্যান্ড জনসনের ভ্যাকসিনটি সেগুলির মধ্যেই একটি

ভ্যাকসিন নিয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের প্রতিশ্রুতি

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, বছরের শেষ দিকেই ১০ কোটি ডোজ ভ্যাকসিন বণ্টন করা হবে। আগামী ৩ নভেম্বর আমেরিকার রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের আগেই একটি ভ্যাকসিন বণ্টনের জন্য পাওয়া যেতে পারে বলে বিজ্ঞপ্তি জারি করেছিল ট্রাম্প প্রশাসন।

ট্রাম্প প্রশাসনের এই পদক্ষেপের তীব্র সমালোচনা করেছে ডেমোক্র্যাটরা। তাদের অভিযোগ, তড়িঘড়ি ভ্যাকসিনের অনুমোদন দেওয়ার নেপথ্য রয়েছে ভোটের বাজারে ফয়দা তোলার চেষ্টা। বিস্তারিত পড়ুন এখানে: ৩ নভেম্বর ভোট, দু’দিন হাতে থাকতেই করোনা ভ্যাকসিন বণ্টনে মরিয়া ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রশাসন!

পিফজারের জন্য অপেক্ষার আর্জি

৬০ জনেরও বেশি শীর্ষস্থানীয় গবেষক এবং বায়োথিসিস্ট পিফজারের তৈরি কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের অনুমোদনের জন্য নভেম্বরের শেষ পর্যন্ত অপেক্ষার আর্জি জানিয়েছেন।

জনসন অ্যান্ড জনসন, পিফজার ছাড়াও আমেরিকার আরও যে দুই সংস্থা ভ্যাকসিনের চূড়ান্ত পর্যায়ের পরীক্ষায় পৌঁছেছে সেগুলি হল মোডের্না এবং অ্যাস্ট্রাজেনেকা। ব্লুমবার্গে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, পিফজার দাবি করেছে আগামী অক্টোবরের মধ্যেই তাদের তৈরি ভ্যাকসিনটির চূড়ান্ত পর্যায়ের ফলাফল হাতে পাওয়া যাবে। ফলে বাকি সংস্থার থেকে তারা ভ্যাকসিন বাজারে আনার দৌড়ে অনেকটাই এগিয়ে রয়েছে।

Continue Reading

দেশ

রাষ্ট্রপুঞ্জের বক্তৃতায় কাশ্মীরের পাশাপাশি ধর্মীয় তাস খেললেন ইমরান খান, প্রতিবাদে ওয়াকআউট ভারতের

ইমরানের অভিযোগ, দিল্লির সংঘর্ষে নিশানা করে মারা হয় মুসলিমদের।

Published

on

Imran Khan
ইমরান বলেন, ‘‘নাৎসিদের বিদ্বেষের লক্ষ্য ছিলেন ইহুদিরা। আরএসএসের নিশানা মুসলিমরা।"

খবরঅনলাইন ডেস্ক: কাশ্মীর (Jammu and Kashmir) তো ছিলই। রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ পরিষদের (UNGA) ৭৫তম সাধারণ সভার বক্তৃতায় এ বার সরাসরি ধর্মীয় তাস খেলে দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। প্রতিবাদে সভা থেকে ওয়াকআউট করে ভারত।

রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘকে নাৎসি পার্টির সঙ্গে তুলনা করলেন। বাবরি মসজিদ ধ্বংস থেকে শুরু করে গুজরাত দাঙ্গা, দিল্লির সংঘর্ষ, একের পর এক উদাহরণ দিয়ে অভিযোগ তুললেন, ভারতে মুসলিমরাই নির্যাতনের শিকার।

ভার্চুয়াল পর্দায় পাক প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতা শুরু হতেই রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি টিএস তিরুমূর্তি ওয়াকআউট করেন, যাকে চরম কূটনৈতিক প্রতিবাদ হিসেবেই দেখছে সংশ্লিষ্ট মহল। পরে টুইটারে তিরুমূর্তি লেখেন, ‘‘কূটনৈতিক নিম্নগামিতার নতুন স্তরে পৌঁছোল পাক প্রধানমন্ত্রীর বক্তৃতা। তা মিথ্যা, ব্যক্তিগত আক্রমণ, যুদ্ধবাজ মনোভাবে পরিপূর্ণ। পাকিস্তানের সংখ্যালঘুদের দুর্দশা, সীমান্তপারের সন্ত্রাসবাদের মতো বিষয়গুলি অন্ধকারেই রয়ে গেল। জবাব দেওয়ার অধিকার যথাযোগ্য ভাবেই প্রয়োগ করা হবে।’’

ইমরান বলেন, ‘‘নাৎসিদের বিদ্বেষের লক্ষ্য ছিলেন ইহুদিরা। আরএসএসের নিশানা মুসলিমরা। খ্রিস্টানদের ক্ষেত্রে কিছুটা কম। গাঁধী-নেহরুর ধর্মনিরপেক্ষতার বদলে এখন এসেছে হিন্দু রাষ্ট্র তৈরির স্বপ্ন। যেখানে লক্ষ্য হল, মুসলিম ও অন্য সংখ্যালঘুদের শাসন করা, এমনকি মুছে ফেলা।’’

ইমরানের অভিযোগ, দিল্লির সংঘর্ষে নিশানা করে মারা হয় মুসলিমদের। গুজরাত দাঙ্গায় সংখ্যালঘুদের নিহত হওয়ার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘‘এটা হয়েছিল (তৎকালীন) মুখ্যমন্ত্রী মোদীর শাসনে।’’ ইমরানের বক্তব্য, অভূতপূর্ব ভাবে ‘হিন্দুত্বের আদর্শে’ ৩০ কোটি মুসলিম, খ্রিস্টান, শিখেদের নির্যাতন করা হচ্ছে। করোনা পরিস্থিতিতেও মোদী সরকার বৈষম্যমূলক নীতি নিয়েছে।

বরাবরের মতো কাশ্মীরে ৩৭০ অনুচ্ছেদ রদ ঘিরেই ভারতের বিরুদ্ধে সুর চড়ান ইমরান। তাঁর বক্তব্যে অনেকাংশই যুদ্ধের হুমকিতে ভরতি ছিল, যা গত বছরও করেছেন ইমরান।

ইমরানের বক্তব্য, বিশ্বের নজর ঘোরাতে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে সামরিক সক্রিয়তা দেখিয়ে ‘বিপজ্জনক খেলা’ খেলছে ভারত। কিন্তু ‘ফ্যাসিস্ট আরএসএস নেতৃত্বাধীন’ ভারত সরকার ‘অপচেষ্টা’ করলে পাকিস্তানও লড়তে তৈরি।

উল্লেখ্য, শনিবার সাধারণ সভায় বক্তৃতা দেওয়ার কথা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

সাগরদিঘিতে তৈরি হবে দেশের সর্ববৃহৎ ভাসমান সৌরবিদ্যুৎ কেন্দ্র

Continue Reading
Advertisement
mike ryan
বিদেশ22 mins ago

করোনায় আরও ১০ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হতে পারে, উদ্বেগের কথা শোনাল ‘হু’

প্রবন্ধ23 mins ago

প্রগতিশীল সামাজিক-রাজনৈতিক সাংবাদিকতার অন্যতম প্রবর্তক ও পথপ্রদর্শক ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর

কলকাতা1 hour ago

বিধানসভায় বিদ্যাসাগরের জন্মদিন উদ্‌যাপন

দেশ2 hours ago

হরিয়ানায় আজ খুলল কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়, ত্রিপুরায় ৫ অক্টোবর খুলছে স্কুল

paytm train ticket booking
প্রযুক্তি2 hours ago

পেটিএমে কী ভাবে ট্রেনের টিকিট কাটবেন?

দুর্গা পার্বণ4 hours ago

পশ্চিম বর্ধমানের খান্দরার বকশিবাড়ি বৈষ্ণবধারার হলেও পুজোয় বলিদান হয় দেবীরই আদেশে

বিজ্ঞান5 hours ago

কোভিড ভ্যাকসিন: প্রারম্ভিক পরীক্ষায় উতরে গেল জনসন অ্যান্ড জনসন

গ্রেবাল ক্লাইমেট স্ট্রাইক
পরিবেশ5 hours ago

জলবায়ু পরিবর্তনের বিরুদ্ধে নৈহাটিতে ফ্রাইডে ফর ফিউচারের প্রতীকী ধর্মঘট

কেনাকাটা

কেনাকাটা18 hours ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা2 days ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা4 days ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা1 week ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা1 week ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা3 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা3 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা1 month ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

নজরে