moons

ওয়েবডেস্ক : পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে তিনটি চাঁদ। এমন জানা গিয়েছে একটি গবেষণায়। ভাবছেন এত কাণ্ড ঘটে গেল অথচ আগে তো  শোনা যায়নি। হ্যাঁ, অবাক হওয়ারই কথা। ১৯৬১ সালের একটি গবেষণায় এমন কিছুর আভাস পাওয়া গেলেও এখন তা প্রমাণিত হল। কিন্তু এই গল্পের মধ্যে একটু টুইস্ট আছে। সেটিই হল আসল।

যাকে আমরা পৃথিবীর এক ও অদ্বিতীয় চাঁদ বলে জানি, আসলে সেই হল পৃথিবীর উপগ্রহ। গবেষণায় আর যে দু’টির কথা ধরা পড়েছে তারা চাঁদ নয়, ধুলোমেঘ। এই দুই ধুলোমেঘ ঠিক চাঁদের মতোই পৃথিবীকে প্রদক্ষিণ করছে। দেখলে মনে হবে যেন উপগ্রহ। কিন্তু ওগুলো আসলে ফাঁপা। ধুলোর সমষ্টি। পৃথিবী থেকে চার লক্ষ কিলোমিটারে দূরে অবস্থান করছে এরা।

গোটা বিষয়টি সামনে এসেছে রয়্যাল অ্যাস্ট্রোনমিক্যাল সোসাইটির গবেষণা থেকে। গবেষক জুডিস স্লিজ বালোগ বলেন, এই বিষয়টি ১৯৬১ সালে পোলিশ জ্যোতির্বিজ্ঞানী কাজিমিয়াজ করডেলিওস্কির একটি গবেষণায় ধরা পড়েছিল। করডেলিওস্কি দেখেছিলেন দু’টি মহাজাগতিক বস্তু রয়েছে পৃথিবীর কক্ষপথের এল৪ আর এল৫ এলাকায়। তারা চাঁদের মতো ঘুরছে। তবে সম্ভবত এরা কঠিন বস্তু নয়। ফাঁপা। তিনি অনুমান করেছিলেন এই দু’টি ধুলোর মেঘ হতে পারে। তার পর থেকে বহু গবেষণা হয়েছে। কিন্তু কোনো প্রমাণ পাওয়া যায়নি এই দু’টি ঠিক কী! এই দু’টিকে বলা হচ্ছে ‘করডেলিওস্কি ক্লাউড’। এই গবেষণায় সেটি স্পষ্ট ভাবে ধরা পড়েছে ধুলোর মেঘ বলে।

nasapic

পৃথিবী ও চাঁদ বা সূর্য ও পৃথিবী, এমন কোনো দু’টি বড়ো শক্তির আকর্ষণ আর ওদের নিজেদের অভিকর্ষজ টানে আকর্ষণ-বিকর্ষণের মাঝে অবস্থান করছে এই ধুলোর মেঘ। যার ফলে মিশে যাচ্ছে না, অন্তত একটা আকারে থেকে গিয়েছে।

মহাকাশের এই এলাকাকে বলা হয় ল্যাগরেঞ্জ পয়েন্ট বা এল পয়েন্ট। এখানে মহাকাশযানগুলি স্থির অবস্থায় থাকে। স্থির অবস্থায় থাকলেও এদের ন্যূনতম জ্বালানির দরকার পড়ে। আর সেই জ্বালানি থেকেই তৈরি হয় দূষণ, ধোঁয়া আর ধুলো। মহাকাশের সেই দূষণই তৈরি করেছে এই দু’টি জমাট বাঁধা ধুলোমেঘ। পৃথিবী আর চাঁদের সঙ্গে এমন কৌণিক দূরত্বে অবস্থিত দেখলে একটি ত্রিভূজের তিনটি কোণ মনে হয়।

nasa

এই দু’টি ধুলোমেঘ গবেষণার ক্ষেত্রে তেমন গুরুত্বপূর্ণ না হলেও মহাকাশযান পাঠানোর ক্ষেত্রে বিশেষ সতর্ক থাকার বিষয়।

দীপাবলির বাজিতে হওয়া দূষণ নিয়েই শহরে-গ্রামে মারাত্মক অবস্থা। ভাবুন বৈজ্ঞানিক কার্যকলাপের জন্যও মহাকাশে পৃথিবী থেকে অতদূরে দূষণ কী কাণ্ড করেছে। আর সেই দূষণ, সে-ও কিনা মানুষেরই সৃষ্ট।

কলকাতার পাশাপাশি দিল্লিতেও দূষণ-তাণ্ডব, সূচক দেখলে ঘাবড়ে যাবেন

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here