ওয়েবডেস্ক : বাস্তব সাল-তারিখ-মাস থেকে কিছুটা এগিয়ে যাওয়া বা পিছিয়ে যাওয়া রূপকথার গল্পেই হয়। অথবা টাইম মেশিনে চড়ে। বাস্তবে এমন কখনও হয় নাকি? কেন হবে না, নিশ্চয়ই হয়। বিমানে করেই যাওয়া যায় ফেলে আসা বছরে। এই বছরেই এমন ঘটনা ঘটেছে। মানুষজন ছিলেন এক বছর পৌঁছে গেলেন ফেলে আসা একটা বছরে।

ভাবছেন, কী সব বলছি। এক দমই ঠিক বলছি।

জানেন এই বছরই মানে ২০১৮-তেই এই ঘটনা ৭টা ঘটেছে। মাথাটা আরও ঘুরে গেল তাই না?

না না এত অবাক হতে হবে না। আসল খেলাটা হল আন্তর্জাতিক তারিখ রেখার। সেই কাল্পনিক রেখার এক দিক সময়ের হিসেবে এক দিন এগিয়ে আর এক দিক এক দিন পিছিয়ে। আর সেই রেখার পারাপার করলেই ক্যালেন্ডারের হেরফের।

তেমনই ঘটনা ঘটল হনুলুলুতে, উত্তর আমেরিকার কয়েকটা জায়গাতেও।

হাওয়াই বিমান সংস্থার বিমান এইচএ৪৪৬, নিউজিল্যান্ডের অকল্যান্ড থেকে ছাড়ার কথা ছিল ২০১৭ সালের ৩১ ডিসেম্বরের রাত্রি ১২টার আগেই, ১১টা ৫৫ মিনিটে। কিন্তু কোনো একটা কারণ বশত ১০ মিনিট দেরিতে ছাড়ে বিমানটি। ছাড়তে ছাড়তে হল রাত্রি ১২টা ৫। ফলে স্বাভাবিক ভাবেই অকল্যান্ডে পালিত হয়ে গেল নতুন বছরের উৎসব। বদলালো ক্যালেন্ডার। বিমান ছাড়ল নতুন বছর অর্থাৎ ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি। এর পর যাত্রীরা প্রায় ৮ ঘণ্টা বিমানে সফর করলেন। সফর শেষে নামলেন হনুলুলুতে। আশ্চর্য ব্যাপার হল! তখন হুনুলুলুর তারিখটা। জানেন তখন হনুলুলুর ক্যালেন্ডারে তারিখ ২০১৭ সাল ৩১ ডিসেম্বর।

আসলে ব্যাপারটা হল এই যে, যাত্রাপথে বিমান পেরিয়েছে সেই আন্তর্জাতিক তারিখ রেখা। আর আবর্তনগতিতে পূর্ব থেকে পশ্চিমে ঘুরছে পৃথিবী। ফলে পূর্ব দিকের দেশে স্বাভাবিকভাবেই আগে দিন রাত হয়। আর সেই হিসেব মেনে ক্যালেন্ডারের সাল মাস তারিখ বারও বদলায়। এই দুই সূত্র মিলেই অকল্যান্ডের থেকে ২৩ ঘণ্টা পিছিয়ে রয়েছে হনুলুলু।

ঘটনাটি খুবই কমন। পরিবহনের ক্ষেত্রে প্রায়ই এমন ঘটে থাকে। শুধু দু’টি বছরের সন্ধিক্ষণের বিষয় বলেই এতো নজর কেড়েছে ঘটনাটা। এটি খেয়াল করেছেন এক জন সাংবাদিক। এমনকি সে দিনও আরও ছ’টি বিমানের ক্ষেত্রে এমন ঘটেছে। তাইপেই থেকে ছ্য় ছ’টি বিমান যাত্রী নিয়ে নতুন বছরে মাটি ছেড়েছে। আর  উত্তর আমেরিকায় বিভিন্ন জায়গায় মাটি যখন ছুঁয়েছে তখন সেই পুরনো বছর।

যাত্রীরাও নতুন বছরে বিমানে উঠে পুরনো বছরে ফিরে গেছেন।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here