ভিয়েনা(অস্ট্রিয়া): দুটি নিম্ন আদালত তাঁর মামলা নেয়নি। তাতে দমে যাননি অস্ট্রিয়ার ওই পিতা। গেছিলেন সুপ্রিম কোর্টে। সে দেশের শীর্ষ আদালত শুধু তাঁর মামলা গ্রহণই করেনি, বিচারের পর রায়ও দিয়েছে তাঁর পক্ষে। মেয়ের কাছ থেকে ২৪ হাজার ইউরো ( প্রায় ১৭ লক্ষ টাকা) পাবেন তিনি। সঙ্গে আদালতের মামলা চালানোর খরচ বাবদ আরও ৮ হাজার ইউরো (প্রায় ৫.৬ লক্ষ টাকা)।

আরও পড়ুন: যৌনতার মাঝে কন্ডোম খুলে ফেলায় ধর্ষণের সাজা


কী অপরাধ ছিল মেয়ের ? ভিয়েনা বিশ্ববিদ্যালয়ে স্হাপত্যবিদ্যার ছাত্রী ছিল সে। গোটা পড়াশোনা শেষ হওয়ার কথা ৮টি সেমেস্টারে। কিন্তু বারবার ফেল করে, পাঠক্রম শেষ করতে মেয়েটির লেগে যায় ১৩টি সেমেস্টার। বাড়তি খরচের টাকা ফেরত পেতেই আদালতে মামলা ঠোকেন বাবা। আদালত রায় দিয়েছে, ১০টি সেমেস্টারের খরচ অবধি বহন করা ন্যায্য। কিন্তু বাড়তি ৩ সেমেস্টার(৩৯ মাস) পড়ার খরচের টাকা বাবাকে ফেরত দিতে হবে মেয়ের। আদালতের রায়ে মেয়েটির নাম প্রকাশ করা হয়নি।


ভারতে বসে এমন খবর পড়ে বহু পড়ুয়ারই হয়তো হাড়ে কাঁপুনি ধরতে পারে। কিন্তু অস্ট্রিয়ায় এটা নতুন কিছু নয়। যে আইনি সংস্থাটি ওই ব্যক্তির হয়ে মামলা লড়েছে, তাঁদের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, গত ২ বছরে এমন ৬টি  মামলা তাঁরা লড়েছেন।

আরও পড়ুন: যৌনতার জন্য অফিসের কাজে বিরতির প্রস্তাব সুইডিশ জনপ্রতিনিধির

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন