Connect with us

বিদেশ

‘ভাসমান বোমার’ হুমকিকে উপেক্ষা, ক্ষোভে ফুঁসছে বেইরুট

ছ’মাস আগেই গুদামটি পরিদর্শন করে আধিকারিকরা জানিয়েছিলেন, এটা যদি সরিয়ে না যাওয়া হয় তা হলে “পুরো বেইরুট উড়ে যাবে।”

Published

on

বেইরুট: ক্ষোভ আর আতঙ্ক বাড়ছে লেবাননের রাজধানী বেইরুটে (Beirut)। প্রশাসনের থেকে জানানো হয়েছে মঙ্গলবারের ভয়াবহ বিস্ফোরণে এখনও পর্যন্ত শহরে ১৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহতের সংখ্যা প্রায় পাঁচ হাজার।

ক্ষোভ বাড়ছে কারণ ‘ভাসমান বোমার’ ব্যাপারে প্রশাসনকে বারবার সতর্ক করা হলেও বিশেষ কোনো পদক্ষেপ কোনো দিনই করেনি তারা। বেইরুট বন্দরের গুদামে ২৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুত করা ছিল ২০১৪ থেকে। মঙ্গলবার সেটাই বিস্ফোরিত হয় পর পর দু’ বার।

ছ’ মাস আগেই গুদামটি পরিদর্শন করে আধিকারিকরা জানিয়েছিলেন, এটা যদি সরিয়ে না নেওয়া হয় তা হলে “পুরো বেইরুট উড়ে যাবে।”

লেবাননের (Lebanon) সরকারের বিরুদ্ধে এমনিতেই ক্ষোভ বাড়ছে মানুষের। দেশে আর্থিক সংকট ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এর ফলে মোট জনসংখ্যার অর্ধেকই এখন দারিদ্রসীমার নীচে চলে গিয়েছে। এর ওপরে আবার যোগ হয়েছে এই বিস্ফোরণের হুমকিকে বার বার উপেক্ষা করার মতো সরকারি গাফিলতি।

বেইরুটের বর্তমান পরিস্থিতি

বুধবার বিকেলে লেবানন সরকার জানিয়েছে যে তদন্তের কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত গৃহবন্দি করা হচ্ছে বেইরুট বন্দরের আধিকারিকদের। তবে কত জন আধিকারিককে বন্দি করা হয়েছে সে ব্যাপারে কোনো তথ্য সরকার দেয়নি।

পাশাপাশি, বেইরুটে দু’ সপ্তাহের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করেছে সরকার। যার অর্থ, লেবাননের রাজধানীতে সেনাবাহিনীর ওপরে এখন পূর্ণ ক্ষমতা।

মৃত এবং আহতের সংখ্যা যেমন বাড়ছে তেমনই বাড়ছে ঘরবাড়ি ভয়াবহ ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া মানুষের সংখ্যাও। প্রশাসনের হিসেব অনুযায়ী শহরের তিন লক্ষ বাসিন্দার বাড়ি ভয়াবহ ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বুধবার সকাল থেকে নতুন লড়াইয়ে নামতে হয় বেইরুটবাসীদের। নিজেদের ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িগুলিকে নতুন করে সাজিয়ে তোলার লড়াই। যে বাড়িগুলো সাংঘাতিক ভাবে ক্ষতির মুখে পড়েনি, সেখানেও জানলার কাচ ভেঙেছে, ভেঙে পড়েছে বৈদ্যুতিন ফিটিং।

কী ভাবে বিপুল পরিমাণ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুত হল

বেইরুটবাসীর স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন এই অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট বন্দরে মজুত হল কী ভাবে?

২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে এক রুশ ব্যক্তির মালিকানাধীন মালদোভার পতাকাবাহী একটি কার্গো জাহাজে করে লেবাননে পৌঁছোয় এই বিপুল পরিমাণ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট। শিপ ট্র্যাকিং সাইট ফ্লেটমোনের তথ্য অনুযায়ী জাহাজটি জর্জিয়া থেকে মোজাম্বিক যাচ্ছিল।

কারিগরি ত্রুটির কারণে জাহাজটিকে বেইরুটের জেটিতে ভিড়তে বাধ্য করা হয়। লেবাবন কর্তৃপক্ষ জাহাজটিকে আটকেই রাখে। বাজেয়াপ্ত করা হয় এই বিপুল পরিমাণ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট। এর পর ওই জাহাজকে বেইরুট বন্দরে রেখেই মালিক ও কর্মীরা চলে যায়।

পরে জাহাজ থেকে অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট নামানো হয়। রাখা হয় বন্দরের ১২ নম্বর হ্যাঙ্গারে। হ্যাঙ্গারটি মূল শহরে ঢোকার জন্য ব্যস্ততম সড়কের ঠিক ধারেই অবস্থিত।

এর পর ২০১৪-এর ২৭ জুন লেবানন কাস্টমসের পরিচালক শাফিক মেরহি দ্রুত বিষয়টি নিষ্পত্তি করার জন্য একটি চিঠি পাঠান। এর পরের তিন বছরে আরও পাঁচটি চিঠি দেওয়া হয়।

অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট-সংক্রান্ত এই ব্যাপারটি সমাধানের জন্য মূলত তিনটে প্রস্তাব দেওয়া হয় এই কার্গো জাহাজের মালিকের কাছে। প্রস্তাবগুলি হল, ১. নাইট্রেট সরিয়ে নেওয়া, ২. লেবাননের সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা, ৩. লেবাননের বেসরকারি বিস্ফোরক কোম্পানির কাছে বিক্রি করে দেওয়া।

কিন্তু এই চিঠিগুলোর কোনো জবাব আসেনি কখনও। ছ’মাস আগে গুদামের সেই ১২ নম্বর হ্যাঙ্গার পরিদর্শন করে আধিকারিকদের মত ছিল, ‘ভাসমান বোমা’ মজুত রয়েছে বেইরুটে।

বিস্ফোরণ হল কী ভাবে

কিন্তু এখনও যেটা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না, সেটা হল এই অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটে বিস্ফোরণ হল কী ভাবে। সাধারণত, এতে বিস্ফোরণ হতে গেলে চরম তাপের প্রয়োজন।

তবে একটা ধারণা করা হচ্ছে যে সম্ভবত কাছাকাছি কোনো জায়গায় আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছিল। মঙ্গলবারই বেইরুট পুরসভার নির্দেশে বন্দরের কাছেই একটি জায়গায় যায় দমকলবাহিনী। তার পর থেকেই তাদের আর কোনো খোঁজ নেই। এটাই ইঙ্গিত যে আগুন থেকেই ভয়াবহ এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

বসবাসের অযোগ্য

বেইরুটের পূর্বাংশের একটা বড়ো অংশ এখন বসবাসের পুরোপুরি অযোগ্য হয়ে পড়েছে। টায়ারের দোকানের ম্যানেজার ইসাম নাসির বলেন, “আমি জানি না, এই দুর্যোগ কী ভাবে কাটিয়ে উঠব, আপনাদের কী মনে হয় যে হিরোশিমার ঘটনা এর থেকেও ভয়াবহ ছিল?”

কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ নয়, কোনো জঙ্গি যোগও নেই। শুধুমাত্র প্রশাসনের তরফে চূড়ান্ত একটা গাফিলতির ফলে বিশ্বের ইতিহাসে অন্যতম ভয়ংকর ঘটনা ঘটে গেল মঙ্গলবার। সরকারের ওপরে ক্ষোভ যে বাড়বেই তা তো বলাই বাহুল্য।

বিজ্ঞান

মঙ্গলগ্রহের বুকে আরও তিনটে হ্রদের খোঁজ পেলেন বিজ্ঞানীরা

বিজ্ঞানীদের ধারণা, মঙ্গলের জলাধারে জলের তাপমাত্রা -১০ থেকে -৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

Published

on

InSight

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বছর দুয়েক আগে মঙ্গলগ্রহে (Mars) বরফের আস্তরণের নীচে একটি বড়ো হ্রদের সন্ধান পেয়েছিলেন গবেষকরা। এ বার তাঁরা খুঁজে পেলেন আরও তিনটি হ্রদ। ‘নেচার অ্যাস্ট্রোনমি’ পত্রিকায় প্রকাশিত এক গবেষণাপত্র থেকে তেমনটাই জানা গিয়েছে।

এই গবেষণার সঙ্গে যুক্ত অন্যতম গবেষক রোম বিশ্ববিদ্যালয়ের গ্রহ বিজ্ঞানী এলিনা পেত্তিনেল্লি জানাচ্ছেন, ‘‘আমরা ওই বড়ো হ্রদটি আগেই পেয়েছিলাম। কিন্তু এ বার ওটার কাছাকাছি আরও তিনটি হ্রদের সন্ধান পেয়েছি।’’

গবেষকরা জানাচ্ছেন, ওই চারটি জলাশয় ৭৫ হাজার বর্গকিলোমিটার জুড়ে বিস্তৃত রয়েছে। বড় হ্রদটি ৩০ বর্গ কিলোমিটার জুড়ে অবস্থিত। তাকে ঘিরে রয়েছে বাকি তিনটি হ্রদ।

ভূগর্ভস্থ এই জলাশয়গুলির আবিষ্কারের পর মঙ্গল নিয়ে গবেষণা নতুন দিকে মোড় নিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। এই আবিষ্কারের পর সেই পুরনো প্রশ্ন আবার ফিরে আসতে পারে। তা হলে কি মঙ্গলে প্রাণের সন্ধান মিলতে পারে?

বিজ্ঞানীদের ধারণা, মঙ্গলের জলাধারে জলের তাপমাত্রা -১০ থেকে -৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এই ঠান্ডায় হ্রদের জল তরল থাকার অর্থ তাতে প্রচুর লবণ রয়েছে। ব্রিটেনের সেন্ট অ্যান্ড্রুজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ড. ক্লেয়ার কাজিনস বছর দুই আগে বিবিসিকে দেওয়া এক সাক্ষাত্‍কারে বলছিলেন, “এমন ঠান্ডা আর লবনাক্ত জলে প্রাণের অস্তিত্ব পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম।”

তবে, গবেষকরা জলের উপস্থিতি নিশ্চিত করার পর, মঙ্গলগ্রহে প্রাণের সন্ধান নিয়ে গবেষণায় যে গতি পাবে, তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

দু’সপ্তাহ আগে উত্তরপ্রদেশে গণধর্ষিতা হয়েছিলেন, দিল্লির হাসপাতালে মৃত্যু সেই তরুণীর

Continue Reading

বাংলাদেশ

অবৈধ পথে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে নৌকাডুবি, বাংলাদেশি-সহ উদ্ধার ২২

এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ১৩ জন। নিখোঁজ ব্যক্তিদের খুঁজতে উদ্ধারকাজ চালানো হচ্ছে।

Published

on

ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে এ ভাবেই ঘটে নৌকাডুবি। ফাইল চিত্র।

ঋদি হক: ঢাকা

ভূমধ্যসাগরে (Mediterranean Sea) মৃত্যুর হাতছানিকে তোয়াক্কা না করে আগামী সোনালি দিনের স্বপ্ন গড়তে দালালের হাতে তুলে দিতে হয় লাখ লাখ টাকা। অনাহার, অর্ধাহারে রাতের আঁধারে পথ চলতে হয় হিংস্র জানোয়ারদের পাশ কাটিয়ে। রাতের পর রাত বনেবাদাড়ে কাটিয়ে লিবিয়া (Libya) থেকে নৌকাযোগে দুঃসাহসিক যাত্রা ইউরোপের (Europe) পথে। জঙ্গল থেকে সাগর, সাগর থেকে সাগরতীর – সর্বত্র মৃত্যু-সহ হাজারো নিগ্রহ সম্বল করেই তাঁদের যাত্রা। এমনি যাত্রায় শ’ শ’ তরুণের স্বপ্ন বিলীন হয়ে গেছে ভূমধ্যসাগরের অথৈ জলরাশিতে। কোনো দিন তারা মায়ের বুকে ফিরে আসবে না।

আবার ঘটল সেই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা। এ বারের ঠিকানাও ভূমধ্যসাগর। এ ঘটনায় বাংলাদেশি-সহ (Bangladeshi) ২২ জনকে উদ্ধার করা সম্ভব হলেও নিখোঁজ রয়েছেন ১৩ জন। নিখোঁজ ব্যক্তিদের খুঁজতে উদ্ধারকাজ চালানো হচ্ছে। 

জানা গেছে, লিবিয়ার রাজধানী ত্রিপোলি (Tripoli) থেকে ইউরোপে যাওয়ার সময় ভূমধ্যসাগরে বিভিন্ন দেশের ৩৫ জোন আরোহী নিয়ে একটি নৌকা ডুবে যায়। ঘটনাটি বৃহস্পতিবার বিকেলের। নৌকাডুবির প্রত্যক্ষদর্শী লিবিয়ার জেলেরা।

তাঁরা বাংলাদেশি নাগরিক-সহ ২২ জনকে জীবিত উদ্ধার করেন। তাঁদের মধ্যে মিশর, সিরিয়া, সোমালিয়া, ঘানা-সহ বিভিন্ন দেশের নাগরিক রয়েছেন। এ ঘটনায় আরও অন্তত ১৩ জন নিখোঁজ রয়েছেন। বুধবার ত্রিপোলির পূর্বাঞ্চলের জিলিতেন শহর থেকে নৌকাটি যাত্রা করে। উদ্ধারকাজ চালানোর সময় সিরীয় নারী ও পুরুষ-সহ তিনজনের মরদেহ পাওয়া গেছে। লিবিয়ার উপকূলরক্ষীরা জানিয়েছেন, নিখোঁজ ব্যক্তিদের খুঁজতে উদ্ধারকাজ অব্যাহত রয়েছে। নৌকাটিতে ঠিক কত জন বাংলাদেশি নাগরিক ছিলেন, তা জানা সম্ভব হয়নি।

উল্লেখ্য, ভূমধ্যসাগরে নৌকা ডুবে মৃত্যুর ঘটনা এটাই প্রথম নয়। গত বছর ১২ মে লিবিয়া থেকে নৌকাযোগে উত্তাল ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গেয়ে নৌকা ডুবে ৩৭ জন বাংলাদেশির মৃত্যু হয়। অবৈধ ভাবে ইতালি যাওয়ার পথে নৌকাটিতে থাকা অন্তত ৬৫ জন অভিবাসী প্রাণ হারান। তাঁদের বেশির ভাগই ছিলেন বাংলাদেশি। সংখ্যা ৩৭ জন। তিউনিসিয়ার রেড ক্রিসেন্ট এই খবর নিশ্চিত করে।

সে সময় তিউনিসিয়া উপকূলে ওই নৌকাডুবির পর জীবিত ডজনখানেক মানুষকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। যাঁদের মধ্যে বেলাল আহমেদ নামের এক বাংলাদেশি তাঁর ভয়াবহ অভিজ্ঞতার কথা সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছিলেন।

একজন একজন করে কী ভাবে তাঁরা ডুবে যাচ্ছিলেন তার বর্ণনা দিয়েছিলেন বেলাল। ৩০ বছরের বেলাল সেই নৌকাডুবির ঘটনায় দুই স্বজনকে হারান।  ইতালি অভিমুখী নৌকাটিতে ৫১ জন বাংলাদেশি ও তিনজন মিশরীয় ছাড়াও মরক্কো ও চাদের কয়েক জন ছিলেন। বাকিরা ছিলেন আফ্রিকান। উদ্ধার হওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে একটি শিশু-সহ মোট ১৪ জন বাংলাদেশি।

২০১১ সালে লিবিয়ায় গৃহযুদ্ধ শুরুর পর সেখান থেকে উল্লেখযোগ্যসংখ্যক লিবীয় ও অন্যান্য দেশের বাসিন্দা সাগরপথে ইউরোপে যাওয়ার জন্য ভূমধ্যসাগরকে রুট হিসেবে ব্যবহার করে আসছে। আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) তথ্য অনুযায়ী, ২০১৯ সালের জানুয়ারি থেকে মে পর্যন্ত ১৭ হাজার অভিবাসী ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিয়ে ইউরোপে পৌঁছেছে। এই যাত্রাপথে প্রায় ৫০০ অভিবাসীর মৃত্যু হয়েছে।

খবর অনলাইনে আরও পড়তে পারেন

বিতর্কিত কৃষি বিলের বিরোধিতায় বিজেপি-সঙ্গ ত্যাগ করল অকালি দল

Continue Reading

দেশ

করোনাকে জয় করতে বিশ্বকে সাহায্য করতে পারে ভারত: রাষ্ট্রপুঞ্জের সভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী

নরেন্দ্র মোদী বলেন, টিকা উৎপাদনে ভারতের ক্ষমতা এই মহামারি জিততে বিশ্বকে সাহায্য করবে।

Published

on

PM Narendra Modi in UNGA
সাধারণ পরিষদের ভার্চুয়াল সভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

খবর অনলাইন ডেস্ক: সমস্ত পরীক্ষানিরীক্ষা সফল হয়ে যাওয়ার পর একবার সাধারণ মানুষকে টিকা (Vaccine) দেওয়া শুরু হলে ভারত করোনা-সংকট (Coronavirus crisis) থেকে বিশ্বকে মুক্ত করার কাজে সাহায্য করতে পারে। রাষ্ট্রপুঞ্জের (United Nations) সাধারণ পরিষদের (General Assembly, UNGA) ৭৫তম সভায় এই কথা বলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী (Indian PM) নরেন্দ্র মোদী (Narendra Modi)।

করোনা মহামারির বিরুদ্ধে লড়াইয়ে আরও বেশি কিছু করার জন্য রাষ্ট্রপুঞ্জকে আহ্বান জানান মোদী।

শনিবার রাষ্ট্রপুঞ্জের সাধারণ পরিষদের ভার্চুয়াল সভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, “বিশ্বে টিকার সর্ববৃহৎ প্রস্তুতকারী দেশ হিসাবে আমি আন্তর্জাতিক সমাজকে আরও একটি আশ্বাস দিতে চাই। টিকা উৎপাদন এবং সরবরাহের ক্ষেত্রে ভারতের যে ক্ষমতা আছে, তা এই সংকটের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে সমগ্র মানবজাতিকে সাহায্য করার কাজে ব্যবহার করা হবে।”

প্রধানমন্ত্রী বলেন, টিকার তৃতীয় দফার ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের ক্ষেত্রে ভারত দ্রুত এগিয়ে চলেছে। টিকার নিরাপত্তা ও কার্যকারিতা যাচাইয়ের ক্ষেত্রে ব্যাপক হারে ট্রায়ালকেই সোনালি মান বলে ধরে নেওয়া হয়। এই টিকা মজুত করার ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য ভারত সব দেশকে সাহায্য করবে।

নরেন্দ্র মোদী বলেন, “টিকা উৎপাদনে ভারতের ক্ষমতা এই মহামারি জিততে বিশ্বকে সাহায্য করবে। করোনাভাইরাস সংকটের সময় ভারত ১৫০টিরও বেশি দেশকে চিকিৎসা সরঞ্জাম সরবরাহ করেছে।”

গত মাসে স্বাধীনতা দিবসের বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন, ভারতে তিনটি টিকা পরীক্ষার বিভিন্ন পর্যায়ে রয়েছে। “বিজ্ঞানীরা সবুজ সংকেত দিলেই আমরা উৎপাদনের পরিকল্পনা নিয়ে প্রস্তুত হয়ে যাব। খুব কম সময়ে কী ভাবে প্রতিটি ভারতীয়ের কাছে টিকা পৌঁছে দেওয়া যায় তার রোডম্যাপ আমাদের তৈরি হয়ে আছে।”

খবর অনলাইনে আরও পড়তে পারেন

কোভিডের প্রাদুর্ভাব শুরু হওয়ার পর এই প্রথম ভারতে ‘আর নম্বর’ নামল ১-এর নীচে

Continue Reading
Advertisement
রাজ্য32 mins ago

করোনার মৃদু উপসর্গ থাকলে বাড়িতে থেকে চিকিৎসা করাতে বললেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

বিনোদন59 mins ago

দুর্গার বেশে ধরা দিয়ে খুনের হুমকি পাচ্ছেন নুসরত জাহান, দ্বারস্থ প্রশাসনের

রাজ্য2 hours ago

বদলি প্রক্রিয়া শুরুর দাবিতে বিকাশ ভবন যাচ্ছে শিক্ষক সংগঠন

জলপাইগুড়ি3 hours ago

‘একশো শতাংশ কাজ চাই, ঢিলেমি নয়’, উত্তরকন্যার প্রশাসনিক বৈঠকে স্পষ্ট বার্তা মুখ্যমন্ত্রীর

দেশ4 hours ago

ভারত এবং বিশ্বের স্বল্প ও মধ্যম আয়ের দেশগুলির জন্য বাড়তি ১০ কোটি ডোজ করোনা ভ্যাকসিন তৈরি করবে সেরাম

Mukesh Ambani
শিল্প-বাণিজ্য5 hours ago

লকডাউনের পর থেকে প্রতি ঘণ্টায় মুকেশ অম্বানির আয় ৯০ কোটি টাকা!

Mamata Banerjee
রাজ্য5 hours ago

‘গুরুপদ সিনহার মৃত্যু পশ্চিমবঙ্গের আলু ব্যবসায়ীদের জন্য অপূরণীয় ক্ষতি’, শোকপ্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

দেশ6 hours ago

শেষমেশ ভারতে কাজ বন্ধ করল অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল

দেশ11 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৭০৫৮৯, সুস্থ ৮৪৮৭৭

দেশ2 days ago

জল্পনার অবসান! নীতীশ কুমারের দলে যোগ দিলেন বিহারের প্রাক্তন ডিজি

Mamata Banerjee
রাজ্য3 days ago

১ অক্টোবর থেকে শর্তসাপেক্ষে খুলছে সিনেমা হল, চালু খেলাধুলো-সহ অন্য সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান

north bengal rain
রাজ্য1 day ago

অতিবৃষ্টির হাত থেকে অবশেষে রেহাই পেল উত্তরবঙ্গ, আপাতত স্বস্তি

দেশ2 days ago

প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী এবং বিজেপি নেতা জসবন্ত সিংহ প্রয়াত

বাংলাদেশ3 days ago

অবৈধ পথে ভূমধ্যসাগর পাড়ি দিতে গিয়ে নৌকাডুবি, বাংলাদেশি-সহ উদ্ধার ২২

রাজ্য3 days ago

বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদকপদ খুইয়ে হুঁশিয়ারি রাহুল সিনহার!

shubhman gill
ক্রিকেট3 days ago

শুভমান গিলের ব্যাটে ভর করে আইপিএলে খাতা খুলল কেকেআর

কেনাকাটা

কেনাকাটা21 hours ago

পছন্দসই নতুন ধরনের গয়নার কালেকশন, দাম ১৪৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজোর সময় পোশাকের সঙ্গে মানানসই গয়না পরতে কার না মন চায়। তার জন্য নতুন গয়না কেনার...

কেনাকাটা4 days ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা5 days ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা1 week ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা1 week ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা2 weeks ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা3 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা3 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা3 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা1 month ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

নজরে