স্বাভাবিকের থেকে অনেক দ্রুত গতিতে গলছে আর্কটিক মহাসাগরের বরফ

0

ওয়েবডেস্ক: উত্তর গোলার্ধে এই মুহূর্তে গরমকাল থাকার ফলে স্বাভাবিক ভাবে উত্তর মেরু অঞ্চলে বরফ গলতে শুরু করে। কিন্তু এ বার আর্কটিক সাগরে স্বাভাবিকের থেকে অনেক দ্রুত হারে গলছে বরফ। এমনই খবর শোনালেন বিজ্ঞানীরা। এমনকি এই মুহূর্তে আর্কটিকের বরফ সর্বকালীন ইতিহাসে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন স্তরে পৌঁছে গিয়েছে বলে জানানো হয়েছে।

জুলাই মাসে গোটা উত্তর গোলার্ধেই তাপমাত্রা অস্বাভাবিক হারে বেড়েছে। সেই কারণেই বরফ গলার গতি আরও বেড়েছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কোলোরাডোর ‘ন্যাশনাল স্নো অ্যান্ড আইস ডেটা সেন্টার’ থেকে পাওয়া তথ্যে জানা যাচ্ছে, ২০১২-এর জুলাইয়ে সর্বনিম্ন স্তরে পৌঁছে গিয়েছিল আর্কটিকের বরফ। এ বার বরফের স্তর তার থেকে কিছুটা বেশি থাকলেও, বরফ গলার গতি ভাবিয়ে তুলছে বিজ্ঞানীদের।

আরও পড়ুন “আমার বা তোমার নয়, এটা আমাদের আমেরিকা,” টুইটে ট্রাম্পকে তোপ মিশেল ওবামার

এ বার অস্বাভাবিক গরম পড়েছে আর্কটিক বৃত্ত এবং তার কাছাকাছি থাকা অঞ্চলগুলিতে। আলাস্কা, কানাডা এবং গ্রিনল্যান্ডে পারদ এতটা বেড়েছে যে অতীতের সমস্ত রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। আর তার প্রভাবই পড়েছে আর্কটিক মহাসাগরে। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, গত তিন দশক ধরেই আর্কটিক সাগরে বরফ গলার হার বাড়ছিল। প্রতি দিন গড়ে অতিরিক্ত কুড়ি হাজার বর্গ কিলোমিটারের বরফের আস্তরণ সরে যাচ্ছে।

সাধারণত জুলাই থেকে বরফ গলা শুরু করে আর্কটিক অঞ্চলে। আবার সেপ্টেম্বরের শেষ থেকে যখন আবহাওয়া ঠান্ডা হতে শুরু করে এবং দিনের আলো কমতে শুরু করে, তখন বরফ আরও বাড়ে। বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, এ বছর সেপ্টেম্বরে সর্বকালীন সর্বনিম্ন স্তরে পৌঁছে যেতে পারে আর্কটিক মহাসাগরের বরফ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.