ওয়েবডেস্ক: রবিবারও অগ্ন্যুৎপাত হয়েছে মাউন্ট আগুং আগ্নেয়গিরি থেকে। পাহাড়ের ওপরে আড়াই কিলোমিটার উচ্চতা পর্যন্ত লাভা উদ্‌গীরণ করেছে পর্বতটি। শুধু রবিবারই নয়। বালির ওই আগ্নয়গিরিটি থেকে লাভা উদ্‌গীরণের খবর আসছে মাঝেমধ্যেই।

তাতে কি! ক্রিসমাস উদ্‌যাপন করতে বালিতে পর্যটকের ঢল নামল প্রতিবছরের মতো এবারও। বালির রিসোর্ট দ্বীপের বেশ কিছু নির্দিষ্ট জায়গায় ভিড় জমিয়েছেন পর্যটকরা। যদিও সরকার থেকে বলে দেওয়া হয়েছিল, রিসোর্ট দ্বীপ পর্যটকদের জন্য নিরাপদ। কিন্তু সরকারের কথা কি আর সবসময় কাজ হয়? এক্ষেত্রে অবশ্য হয়েছে।

বালিতে আসা এক পর্যটকের কথা থেকে বোঝা গেল, সরকারি আশ্বাসে কাজ হয়েছে। ইন্দোনেশিয়া সরকারের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছিল, স্থানীয় বিমানবন্দরটি যদি কোনো কারণে বন্ধ হয়ে যায়। তাহলে পর্যটকদের দায়িত্ব নেবে সরকার। এছাড়া, যে রিসোর্ট দ্বীপে পর্যটকরা জড়ো হয়েছেন, সেটা মাউন্ট আগুং থেকে ৭৫ কিলোমিটার দূরে।

আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের জন্য চলতি মাসে ৭০ হাজারেরও বেশি মানুষ গৃহহীন হয়েছেন ইন্দোনেশিয়ায়। যদিও সরকার বারবার জানিয়েছে, ‘বালি নিরাপদ’।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here