বালি (ইন্দোনেশিয়া) : তৃতীয় দিনেও বন্ধ রইল ইন্দোনেশিয়ার বালি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর। পার্শ্ববর্তী মাউন্ট আগুং আগ্নেয়গিরি থেকে উত্থিত ঘন কালো ধোঁয়া এবং ছাই  গোটা আকাশে ছেয়ে গিয়েছে। ফলে বিমান ওঠা-নামা এক দম অসম্ভব হয়ে পড়েছে। বিমানবন্দরের মুখপাত্র অ্যারি আশানুরহিম বলেন, অন্ততপক্ষে বৃহস্পতিবার সকাল পর্যন্ত পরিষেবা বন্ধই থাকবে। এ দিনও ৪৪০টি বিমান বাতিল করা হয়েছে। ফলে প্রায় ১ লক্ষ ২০ হাজার মানুষ আটকে পড়েছেন। যাত্রী, পর্যটকদের সুবিধার জন্য অতিরিক্ত ১০০ বাস নামানো হয়েছে। এর সাহায্যে তাঁরা স্টেশন বা খেয়াঘাটে পৌঁছে যেতে পারবেন। অভিবাসন দফতর থেকে জানানো হয়েছে, যাঁদের ভিসার সময় শেষ হয়ে গিয়েছে এই পরিস্থিতির জন্য তাঁদের বিশেষ ছাড় দেওয়া হবে।

আরও পড়ুন : বুধবার সকাল পর্যন্ত বন্ধ থাকবে বালি বিমানবন্দর, ৪৪০ বিমান বাতিল

আগ্নেয়গিরি বিশেষজ্ঞ গেদে সুয়ান্তিকা বলেন, গত সপ্তাহ থেকে সমানে ছাই, ধোঁয়া উঠেই চলেছে। আগ্নেয়গিরি যে কোনো মুহূর্তেই বিশাল বিস্ফোরণ ঘটাতে পারে। ইতিমধ্যেই এলাকার কয়েক হাজার বাসিন্দা তাঁদের ঘরবাড়ি ছেড়ে নিরাপদ দূরত্বে সরে গিয়েছেন। প্রায় ১০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের এলাকা ফাঁকা করে দিতে বলা হয়েছে। সেপ্টেম্বর থেকে এ বিষয়ে সর্তকতা জারি করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, ১৯৬৩ সালে এই আগ্নেয়গিরি শেষ বারের মতো জেগে উঠেছিল। তাতে ১৬ হাজার মানুষের প্রাণ যায়। সে বার প্রায় ১০০ কোটি টন লাভা উদ্গীরণ করেছিল মাউন্ট আগুং।

আরও পড়ুন : আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত, চরম সতর্কতা, বালি বিমানবন্দরে বাতিল ৪৪৫ বিমান

উল্লেখ্য, অভিবাসন দফতরের তথ্য অনুযায়ী জনপ্রিয় এই পর্যটন কেন্দ্রটিতে মূলত চিন, অস্ট্রেলিয়া, ভারত, ইংল্যান্ড, জাপান থেকে পর্যটকরা আসেন। স্থানীয় বাসিন্দারা ছাড়াও ২৫ হাজার বিদেশি এই ছোট্টো দ্বীপটিতে বাস করেন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here