buddha

ওয়েবডেস্ক: চিনের জিংঝোউ জেলার একটি বৌদ্ধমন্দির খুঁড়তে গিয়ে দেহাবশেষ পাওয়া গেল ১০০০ বছর পুরোনো বাক্সে। প্রত্নতত্ত্ববিদদেরা দাবি, এই দেহাবশেষ হতে পারে গৌতম বুদ্ধের।

বৌদ্ধ ধর্মের প্রবর্তক সিদ্ধার্থ গৌতম মারা গেছেন প্রায় ২৫০০ বছর আগে। অনুমান করা হয়, তিনি খ্রিস্টপূর্ব ৬ষ্ঠ থেকে ৪র্থ শতাব্দীর মধ্যবর্তী কোনো এক সময়ে  প্রাচীন ভারতের পূর্বাঞ্চলে জীবিত ছিলেন এবং শিক্ষাদান করেছিলেন।

১০১৩ খ্রিস্টাব্দে লেখা একটি শিলালিপি থেকে জানা যায়, ইউনজিয়াং আর ঝিমিং নামের দুই সন্ন্যাসী লংঝিং মঠের অন্তর্গত মঞ্জুশ্রী মন্দিরে উপাসনা করতেন। অনেকে বিশ্বাস করেন, এই দু’জন গৌতম বুদ্ধের ২০০০-এরও বেশি হাড় ও দাঁতের টুকরো সংগ্রহ করে মঞ্জুশ্রী মন্দিরের আঙিনায় সমাধিস্থ করে রেখেছিলেন।

পাথরের বাক্সে দেহাবশেষের সঙ্গে আরও পাওয়া গিয়েছে ২৬০টি বৌদ্ধমূর্তি। এর মধ্যে কয়েকটি মূর্তির উচ্চতা ৬ ফুটেরও বেশি। মূর্তিগুলি গৌতম বুদ্ধ এবং তাঁর শিষ্যদের আদলে বানানো। বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, এই মূর্তিগুলি চিনের ওয়েই রাজবংশ (৩৮৬-৫৩৪ খ্রিস্টাব্দ) এবং সং রাজবংশের (৯৬০-১২৭৯ খ্রিস্টাব্দ) সময়ে বানানো হয়েছিল। তবে এই মূর্তিগুলি বুদ্ধের দেহাবশেষের সঙ্গেই সমাধিস্থ করা হয়েছিল কিনা সেই নিয়ে বিশেষজ্ঞদের মধ্যে সন্দেহ রয়েছে।

এর আগেও ২০১৬ সালে চিনা প্রত্নতাত্ত্বিকরা বুদ্ধের মাথার খুলির একটি টুকরো খুঁজে পাওয়া গিয়েছে বলে দাবি করেছিলেন। নানজিং এলাকায় একটি স্তুপের নীচে একটি বাক্স পাওয়া যায়। এই বাক্সের গায়ে সোনা, রূপা ও চন্দনে লেখা ছিল বাক্সের ভিতরে বুদ্ধের দেহাবশেষের কথা।

শোনা যায়, গৌতম বুদ্ধের মৃত্যুর পরে তাঁর দেহাবশেষ ভক্তদের মধ্যে সমান ভাগে বিতরণ করে দেওয়া হয়। দেশবিদেশ ঘুরে সম্রাট অশোক নানা বৌদ্ধস্তূপ থেকে এই রকম অনেক দেহাবশেষ খুঁজে পান। আশা করা যায় চিনের এই নতুন সন্ধান আমাদের আরও বিশদে ইতিহাসকে জেনে নিতে সাহায্য করবে।

ছবি:  সৌজন্যে চাইনিজ কালচারাল রেলিকস্

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here