চিন পৌঁছালেন পাক বিদেশমন্ত্রী, ভারতকে আহ্বান বেজিংয়ের

0
China-pak
প্রতীকী ছবি

বেজিং: নয়াদিল্লি জম্মু ও কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাখ্যান করার পর পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী চিনের সমর্থন চাইতে বেজিংয়ে পৌঁছেছেন। শুক্রবার তিনি এখানে আসার পরই চিন ভারত ও পাকিস্তানকে আলোচনার মাধ্যমে নিজেদের বিরোধ মিটিয়ে নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে।

এ বিষয়ে অবহিত সূত্র জানায়, কাশ্মীর ইস্যুতে জোরদার সমর্থন আদায়ের জন্য মিত্র চিনের দ্বারস্থ হয়েছেন পাকিস্তানের বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি। গত সোমবার জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ভারতীয় সংবিধানের ৩৭০ এবং ৩৫এ অনুচ্ছেদ রদের কথা জানানো হয়। তার পরই উদ্ভুত টালমাটাল পরিস্থিতিতে চিনকে পাশে পেতে মরিয়া কুরেশি শুক্রবার বেজিং রয়েছেন।

জম্মু ও কাশ্মীর থেকে বিশেষ মর্যাদা প্রত্যাহারের পর পৃথক দু-টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল পুনর্গঠনের কথাও জানিয়েছে ভারত সরকার। জম্মু ও কাশ্মীম এবং লাদাখ নামে পৃথক দু-টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের কথা বলা হয়। এর পরই লাদাখ নিয়ে চিনের প্রতিক্রিয়া দেখা যায়। মানস সরোবরের তীর্থযাত্রীদের আটকে দেয় চিন। তবে এ ব্যাপারে পাকিস্তানের পদক্ষেপ ছিল অভাবনীয়।

ভারত-পাকিস্তান বাণিজ্য বন্ধ, পাকিস্তান থেকে ভারতীয় রাষ্ট্রদূত অজয় বিসরিয়াকে দিল্লিতে ফেরত পাঠানো, ৩৭০ প্রত্যাহার নিয়ে রাষ্ট্রসঙ্ঘের দৃষ্টিআকর্ষণ-সহ একাধিক পদক্ষেপ নেন সে দেশের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। ভারতের এই সিদ্ধান্তকে ‘এক তরফা এবং অবৈধ’ আখ্যা দিয়েই ভারত-বিরোধী মতগঠনের চেষ্টা চালাচ্ছে পাকিস্তান।

পাকিস্তানের এই সমস্ত পদক্ষেপ প্রসঙ্গে চিনের বিদেশমন্ত্রী প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে বলেন, “চিন পাকিস্তানের প্রাসঙ্গিক পদক্ষেপ লক্ষ্য করেছে”।

এ দিন চিনের স্থানীয় সংবাদ মাধ্যমের কাছে দেওয়া একটি লিখিত বিবৃতিতে চিনের বিদেশমন্ত্রী জানিয়েছেন,”যৌথভাবে আঞ্চলিক শান্তি ও স্থিতিশীলতা রক্ষা করা প্রয়োজন। যে কারণে আমরা ভারত এবং পাকিস্তান উভয় দেশের উদ্দেশেই আহ্বান জানাচ্ছি, তারা যেন আলোচনার মাধ্যমে এই সমস্যা সমাধানে আগ্রহ দেখায়”।

[ আরও পড়ুন: কাশ্মীর ইস্যুতে মুখ খুললেন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন ]

এর আগে অবশ্য চিন ৩৭০ অনুচ্ছেদ প্রসঙ্গকে উহ্য রেখেই জানিয়েছিল, “প্রাসঙ্গিক পক্ষের একতরফাভাবে স্থিতাবস্থা পরিবর্তন করা উচিত নয় এবং উত্তেজনা বৃদ্ধি এড়ানো প্রয়োজন”।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.