বেজিং : ‘পাকিস্তান সন্ত্রাসবাদীদের নিশ্চিন্ত ঠিকানা’ মার্কিন প্রেসিডেন্টের এই কথা বলার পরই ক্রমশ আরও দৃঢ় হচ্ছে চিন-পাক সম্পর্ক। গতকাল পাকিস্তানের বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে আমেরিকাকে যারপরনাই নিন্দা করা হয়েছে। পাকিস্তানের নাগরিকদের মনেও যে আমেরিকার প্রতি বিদ্বেষ প্রকাশ্যে আসছে, তাও স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে। এমন একটি সময়ে পাকিস্তানের সঙ্গে হাত মিলিয়ে ইরানের ছাবাহারের কাছে সেনা ঘাঁটি তৈরি করতে চলেছে চিন। ইতিমধ্যেই পাকিস্তানে চিনের অর্থ গ্রহণযোগ্য করে ফেলেছে ইসলামাবাদ। চিন-পাক করিডোরের মাধ্যমে ৫০ কোটি ডলার ব্যয় করেছে চিন।

চিনের একটা সরকারি সংবাদ মাধ্যমে এই বিষয়টি প্রকাশিত হয়েছে।

চিনের এই ঘাঁটি তৈরি হতে চলেছে ওমান গলফের কাছে জিওয়ানি বন্দরে। এটা হবে চিনের দ্বিতীয় ওভারসিজ সামরিক ঘাঁটি। প্রথমটি রয়েছে ভারত মাহাসাগরের তীরে আফ্রিকার হর্ন-এ। জিবুতি-তে। এটি তৈরি করেছিল ২০১৭ সালের জুলাই মাসে। সেই সময় চিনের বক্তব্য ছিল শান্তিরক্ষা আর মানবিকতার স্বার্থেই এই পদক্ষেপ করেছে চিন। কিন্তু এতে কিছুটা নড়ে বসেছে ভারত।

তা ছাড়াও শ্রীলঙ্কার হামবানতোতা বন্দর ৯৯ বছরের জন্য লিজ নিয়েছে চিন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন