কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জে ফের মুখ পুড়ল চিন-পাকিস্তানের

0

নিউইয়র্ক: জম্মু-কাশ্মীর নিয়ে রাষ্ট্রপুঞ্জে আরও একবার মুখ পুড়ল পাকিস্তানের। পাকিস্তানের দাবিকে যে হেতু চিন সমর্থন করেছিল, ফলে তাদেরও মুখ পুড়ল।

রাষ্ট্রপুঞ্জের নিরাপত্তা পরিষদের অধিকাংশ স্থায়ী সদস্যই জানিয়ে দিয়েছে, কাশ্মীর ইস্যু নিয়ে আলোচনা করার জন্য এটা সঠিক জায়গা নয়।

পাকিস্তানের দাবি খারিজ হয়ে যাওয়ার পরেই তাদের উদ্দেশে তোপ দাগেন রাষ্ট্রপুঞ্জে ভারতের স্থায়ী প্রতিনিধি সঈদ আকবরুদ্দিন।

গত বছরের ৫ অগস্ট সংসদে ৩৭০ অনুচ্ছেদ রদের ঘোষণা এবং জম্মু-কাশ্মীরকে বিভাজনের পর থেকেই আন্তর্জাতিক মহলকে পাশে পেতে দরবার করে যাচ্ছে পাকিস্তান। কিন্তু চিন ছাড়া রাষ্ট্রপুঞ্জের স্থায়ী সদস্যদের প্রত্যেকেরই বক্তব্য, এই সংক্রান্ত কিছু বিষয় ভারতের অভ্যন্তরীণ, কিছু ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক। রাষ্ট্রপুঞ্জ সেই বিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে পারে না বলেও জানিয়েছিল সদস্যরা।

কিন্তু পাকিস্তান ছিল অনড়। তাই ‘সব আবহাওয়ার বন্ধু’ চিনকে দিয়ে ফের সেই ইস্যুকে রাষ্ট্রপুঞ্জে টেনে তোলে ইসলামাবাদ।

এ দিনের বৈঠকে ভারত বা পাকিস্তান কোনো দেশের প্রতিনিধিই ছিল না। কারণ, দুই দেশের কেউই নিরাপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য নয়। ছিল চিন, ফ্রান্স, রাশিয়া, আমেরিকা, ইংল্যান্ড— নিরপত্তা পরিষদের স্থায়ী সদস্য এই দেশগুলি।

৩৭০ অনুচ্ছেদ রদের পর পরই রাষ্ট্রপুঞ্জে একই রকম একটি বৈঠক হয়েছিল গত অগস্টে। কিন্তু সেই বৈঠকে মুখ পুড়েছিল পাকিস্তানের। কারণ চিন ছাড়া কাউকেই পাশে পাননি ইমরান খান। তার পর ফের পাকিস্তানের স্বার্থ তুলে ধরতে চিনের জোরাজুরিতে বৈঠক বসছে।

আরও পড়ুন কুখ্যাত ডন করিম লালার সঙ্গে দেখা করতে আসতেন ইন্দিরা গান্ধী, শিবসেনা নেতার মন্তব্যে নতুন বিতর্ক

চিন ছাড়া সবারই মত ছিল, নয়াদিল্লি যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা তাদের অভ্যন্তরীণ বিষয়। ডিসেম্বরে নিরাপত্তা পরিষদের আরও এক বার বৈঠকে বসার কথা থাকলেও তা হয়নি।

রাষ্ট্রপুঞ্জের পাকিস্তান তথা চিনের দাবি খারিজ হওয়ার পর আকবরুদ্দিন বলেন, “আমরা আজ আবার দেখলাম যে একজন যা দাবি করেছিল, বাকিরা সেটাকে এক্কেবারেই মান্যতা দিল না।”

সেই সঙ্গে পাকিস্তানের দিকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়ে আকবরুদ্দিন বলেন, নয়াদিল্লির সঙ্গে সম্পর্ক উন্নতি করতে চাইলে পাকিস্তানের এখন একমাত্র কর্তব্য হল নিজেদের সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া।

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.