অবশেষে সাফল্য, এই প্রথম করোনায় নতুন করে কারও মৃত্যু হল না চিনে

বেজিং: জানুয়ারি থেকে করোনাভাইরাসে জর্জরিত চিন (China)। দিনের পর দিন আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা বেড়েছে হুহু করে। কিন্তু মঙ্গলবার ছবিটা পুরোপুরি বদলে গেল। কারণ এই প্রথম কোভিড ১৯-এ (Covid 19) আক্রান্ত হয়ে নতুন করে কারও মৃত্যু হল না সেই দেশে।

চিনের জাতীয় স্বাস্থ্য কমিশন মঙ্গলবার জানিয়েছে, গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় কোনো মৃত্যুর ঘটনা ঘটেনি চিনে। এমনিতে মার্চের শুরু থেকেই চিনে নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা কমেছে হুহু করে। কিন্তু তাদের কপালে চিন্তার ভাঁজ এখন বাড়াচ্ছে বিদেশ থেকে করোনা আক্রান্ত রোগীদের চিনে আসা।

প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, মার্চের শুরু থেকে এখনও পর্যন্ত বাইরের দেশ থেকে আসা অন্তত হাজার জনের শরীরে করোনাভাইরাসের (Coronavirus) উপস্থিতি টের পাওয়া গিয়েছে। ফলে এখনও চিন্তামুক্ত হয়নি প্রশাসন। বরং তাঁদের আশঙ্কা করোনাভাইরাসের এই দ্বিতীয় ভাগে বেজিংয়ে প্রভাব পড়তে পারে, কারণ বিদেশ থেকে বেশি মানুষ বেজিংয়েই আসছেন।

করোনাভাইরাসের প্রকোপ আটকাতে গোটা বিশ্ব এখন লকডাউনের (Lockdown) পথে হাঁটছে। এই বুদ্ধিটা প্রথম চিনই দিয়েছিল। হুবেই (Hubei) প্রদেশের উহান শহরে মাত্রাছাড়া ভাবে বাড়ছিল আক্রান্তের সংখ্যা। তখনই গোটা শহরকে লকডাউন করার সিদ্ধান্ত নেয় প্রশাসন।

আরও পড়ুন শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় আইসিইউতে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন

প্রায় দেড় মাস পর তার ফল পাওয়া যায়। মার্চের শুরু থেকেই উহানে আক্রান্তের সংখ্যা কমতে শুরু করে। একটা সময়ে যে হাসপাতালগুলিতে বেডের আকাল ছিল, সেগুলি ফাঁকা হতে শুরু করে। এই পরিস্থিতি বিচার করে সপ্তাহ দুয়েক আগেই হুবেই প্রদেশে ভ্রমণের ওপরে নিষেধাজ্ঞা তুলে দেয় চিন প্রশাসন।

বুধবার সরকারি ভাবে লকডাউন উঠে যাওয়ার কথা উহান (Wuhan) শহরেও। লকডাউনমুক্ত হওয়ার জন্য এখন কাউন্টডাউন শুরু করে দিয়েছেন উহানবাসী।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.