দোভাস: ”চূড়ান্ত অনিশ্চিত এবং অস্থায়ী চরিত্রের অর্থনৈতিক বাজারে, সারা বিশ্বই তাকিয়ে আছে চিনের দিকে”, বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের মঞ্চে চেয়ারম্যান ক্লাউস স্কোয়াব এভাবেই স্বাগত জানালেন চিনা প্রেসিডেন্টকে। আর সেই মঞ্চ থেকেই চিনের ধনকুবের শিল্পপতি জ্যাক মা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অর্থনৈতিক দুর্দশার জন্য দায়ী করলেন, সে দেশের কৌশলগত নির্বুদ্ধিতাকে। চিনা সংস্থা আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সরাসরি আক্রমণ করে বলেন, অহেতুক অন্য দেশের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করে টাকা নয় ছয় করে সে দেশের প্রশাসন।

নির্বাচনী প্রচার চালানোর সময় থেকেই চিনের বিরুদ্ধে নানা কটূক্তির অভিযোগ উঠেছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের বিরুদ্ধে। দেশের চাকরি শুধুমাত্র মার্কিন নাগরিকদের মধ্যেই সীমিত রাখার আশ্বাস দিয়ে ক্ষমতায় এসেছেন ট্রাম্প। এই প্রসঙ্গে জিগ্যেস করা হলে শিল্পপতি জ্যাক জানান, বিদেশিরা মার্কিন চাকরি চুরি করে নিয়ে যাচ্ছে না। বরং প্রশাসনের উচিত নাগরিকদের জন্য যথাযথ খরচ করা। 

সামরিক খাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বিপুল ব্যয়ের প্রসঙ্গে জ্যাকের মন্তব্য, “দেশের মানুষের জন্য ব্যয় না করে শেষ তিন দশকে মার্কিন প্রশাসন, সামরিক খাতে খরচ করেছে ১৪ লক্ষ কোটি ডলার।”

তবে গত কয়েক দশকে বিশ্বায়নের ফলে মার্কিন সংস্থাগুলি প্রচুর টাকা লাভ করেছে বলে জানিয়েছেন জ্যাক। তাঁর হিসেবে, বিশ্বায়নের কৌশলের মাধ্যমে শেষ কয়েক বছরে আমেরিকার বেশ কয়েকটি সংস্থা যা আয় করেছে, তা ৪ টি চিনা ব্যাঙ্কের সম্মিলিত আয়ের চেয়েও বেশি। 

 

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here