donald trump

নিউ ইয়র্ক: করোনাভাইরাসের (Coronvirus) হানায় তাঁর দেশ পুরোপুরি টালমাটাল। কিন্তু তিনি হুমকির পথেই রইলেন। বন্ধ করে দিলেন আর্থিক অনুদান দেওয়া।

তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump)। যে দিন ২৪ ঘণ্টায় ২২০০-এর বেশি মানুষের মৃত্যু রেকর্ড করল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র (USA), সে দিনই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাকে আর্থিক (World Health Organisation) অনুদান দেওয়া বন্ধ করে দিল আমেরিকা। মঙ্গলবার মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছেন, আমেরিকা হু-কে আর কোনো অনুদান দেবে না।

ট্রাম্পের অভিযোগ, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় হু পুরোপুরি ব্যর্থ হয়েছে। এই ব্যর্থতার দায়িত্ব হু-কে নিতে হবে বলেও মন্তব্য করেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। ট্রাম্প মঙ্গলবার হোয়াইট হাউসে (White) এক প্রেস কনফারেন্সে জানিয়েছেন, হু-কে আর্থিক সাহায্য বন্ধ করে দিতে তিনি প্রশাসনকে নির্দেশ দিয়েছেন।

ট্রাম্প একাধিক বার অভিযোগ করেছেন যে চিনের সঙ্গে হাত মিলিয়ে গোটা বিষয়টিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে হু। যদিও তাঁর এই বক্তব্যের কোনো সারবত্তা খুঁজে পাননি বিশেষজ্ঞরা।

উলটো দিকে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে অভিযোগ, চিনে যখন এই ভাইরাস তাণ্ডবলীলা চালাচ্ছে, তখন ব্যাপারটাকে একদমই গুরুত্ব দেননি তিনি। বরং ‘এপ্রিলের গরমে ভাইরাস মরে যাবে,‘ জাতীয় মন্তব্য করে বিশেষজ্ঞদের হাসির খোরাকও হয়েছেন।

মঙ্গলবার পর্যন্ত আমেরিকায় কোভিড-১৯-এর (Covid 19) সংক্রমণে ২৫ হাজারের বেশি মানুষ মারা গেছেন। এমনকি গত ২৪ ঘণ্টায় মারা গিয়েছেন ২২০০-এর বেশি, যা একদিনের হিসেবে রেকর্ড।

আক্রান্তের সংখ্যা ৬ লক্ষ ১২ হাজার। বিশেষজ্ঞদের মতে, ট্রাম্প প্রথম দিকে বিষয়টাকে গুরুত্ব দিলে করোনাভাইরাস কোনো ভাবেই মহামারির আকার ধারণ করত না আমেরিকায়। সেই সব না করে করোনাকে ‘চাইনিজ ভাইরাস’ বলেই দায় এড়িয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন মহারাষ্ট্রের পর গুজরাত, লকডাউনের মেয়াদ বাড়তেই পথে নেমে পড়লেন পরিযায়ী শ্রমিকেরা

উল্লেখ্য, আমেরিকা হু-কে সব চেয়ে বেশি আর্থিক সাহায্য করে। হু-এর বাজেটের ১৫ শতাংশ আসে আমেরিকার থেকে। ট্রাম্প এ দিন বলেন, ”আমরা যে সাহায্য করেছি, তা আদৌ কোনো কাজে লাগানো হয়েছে কি না তা নিয়ে আমাদের যথেষ্ট উদ্বেগ রয়েছে।”

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন