Connect with us

বিদেশ

অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের আমেরিকা ছাড়তে হবে, নির্দেশ ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকারের

অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের হয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বদল করতে হবে। নচেৎ তাঁদের ভিসা প্রত্যাহার করা হবে।

Published

on

ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস মহামারির (Coronavirus pandemic) কারণে অনলাইনে ক্লাস চলছে। তবে সম্পূর্ণ ভাবে অনলাইনে ক্লাস করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠরত পড়ুয়াদের উদ্দেশে কড়া নীতি নিল আমেরিকা।

ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকার স্পষ্টতই জানিয়ে দিল, এ ভাবে অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের হয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বদল করতে হবে। সেখানে তাঁদের সশরীরে হাজির হয়ে ক্লাস করতে হবে। নচেৎ তাঁদের ভিসা প্রত্যাহার করা হবে।

আমেরিকার ইমিগ্রেশন অ্যান্ড কাস্টমস এমফোর্সমেন্ট (ICE) গত ৬ জুলাইয়ের বিবৃতিতে জানিয়ে দিয়েছে, “এফ-১ এবং এম-১ ভিসা নিয়ে পড়তে গিয়ে এখন যে সমস্ত পড়ুয়া অনলাইন ক্লাস করছেন, তাঁদের আমেরিকায় থাকার ভিসা প্রত্যাহার করা হবে। এমনকী ওই ভিনদেশি পড়ুয়ারা আমেরিকায় থাকতেও পারবেন না”।

Loading videos...

উদ্বেগে বিদেশি পড়ুয়ারা

সরকারের এই ঘোষণার জেরে উদ্বেগ বাড়ছে বিদেশি পড়ুয়াদের মধ্যে। কারণ, এ ধরনের নির্দেশ যে শুধুমাত্র তাৎক্ষণিক উদ্দেশে দেওয়া হয়েছে, তেমনটা নয়। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, আমেরিকার বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে পড়াশোনা করেন একটা বিশাল অংশের ভিনদেশি পড়ুয়া। সরকারের এই নীতির অন্যতম উদ্দেশ্য এটাও হতে পারে যে, ওই সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভরতি হওয়া ভিনদেশি পড়ুয়ারা হয়তো আর আমেরিকায় ঢুকতে পারবেন না। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এ ধরনের ছাত্র-ছাত্রীদের আর এফ-১ ভিসা দেওয়া হবে না।

তবে সরকারের এই নয়া নির্দেশিকা পেয়ে এখনই কোনো স্থায়ী সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ। তাঁরা নির্দেশটি খতিয়ে দেখছেন। হার্ভার্ড-সহ বেশ কিছুব বৃহত্তম বিশ্ববিদ্যালয় আপাতত অনলাইনে ক্লাস চালু রাখার পক্ষে। আগামী শরতে যদি করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের মধ্যে এসেও যায়, তা হলে মাত্র ৪০ শতাংশ পড়ুয়াকেই তারা ক্যাম্পাসে ঢোকার অনুমতি দেবে। সে ক্ষেত্রেও অনলাইনেই পড়াশোনা চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হার্ভার্ড।

দেশের মধ্যেই বিরোধিতা

প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন সেনেটর এবং আগামী প্রেসিডেন্ট ভোটে ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নিও স্যান্ডার্স। তিনি জানান, ভিনদেশি পড়ুয়াদের উপর মারাত্মক শর্ত আরোপ করা হচ্ছে। তাঁদের বলা হচ্ছে, হয় প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে ক্লাস করো, নইলে দেশ ছাড়ো। সরকারের এই একগুঁয়েমি নীতির বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে। দেশি হোক বা বিদেশি, সমস্ত পড়ুয়াদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

এমনিতে এর আগেই এইচ-১বি এবং এল-১ ভিসা সাময়িক ভাবে স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে আমেরিকা। তার পর আইসিই-র এই নতুন নির্দেশিকা আমেরিকার বিদেশিদের মধ্যে ক্রমশ উদ্বেগ বাড়িয়েছে। অন্য দিকে মার্কিন মুলুকে করোনা সংক্রমণ দ্রুতগতিতে বৃদ্ধি পেলেও বিশ্ববিদ্যালয়গুলি খোলার ব্যাপারে চাপ দিচ্ছে প্রশাসন। পরিস্থিতি কোন দিকে মোড় নেয়, সেটাই দেখার।

এফ-১ ভিসা

বিদেশি পড়ুয়াদের ভিসার মধ্যে সব থেকে সাধারণ হল এফ-১ ভিসা। এগুলি সাধারণত কলেজ ডিগ্রি অর্জনকারীদের জন্য দেওয়া হয়। মার্কিন কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে এফ -১ ভিসায় তালিকাভুক্ত বিদেশি পড়ুয়াদের সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। বিশেষ করে বিশ্বমন্দার পর থেকে এই বৃদ্ধির হার ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী।

ছবি: পাওয়ারসার্চ থেকে

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

বিদেশ

করোনা মহামারিতে সন্দেহের পাত্র হয়ে ওঠা বাদুড়ের নতুন রং অবাক করে দিল গবেষকদের

এ বার চর্চায় কমলা বাদুড়।

Published

on

ওয়াশিংটন: আচমকা চোখের সামনে ঝুলন্ত বাদুড়, এমন দৃশ্য এক ঝলক দেখার পর যে কোনো মানুষই ঘাবড়ে যেতে পারেন। অনেকেই আবার করোনা অতিমারীর জন্য বাদুড়কেই চর্চায় তুলে নিয়ে এসেছেন। তবে কালো বা ধূসর বাদুড় দেখতে অভ্যস্ত অনেকেই এখনও কমলা বাদুড় সম্ভবত চাক্ষুষ করেননি, যেটাকে গবেষকরা সম্প্রতি খুঁজে পেয়েছেন।

নতুন এক প্রজাতির বাদুড়

গবেষকরা দাবি করেছেন যে, এটা বাদুড়ের সম্পূর্ণ নতুন একটি প্রজাতি। এটি শুধু কমলা রঙেরই নয়, এটির পশমের মতো লোম রয়েছে। বুধবার আমেরিকান জাদুঘর নোভাইটস-এর বিজ্ঞান বিষয়ক জার্নালে এই বাদুড়টিকে নিয়ে তাঁদের সমীক্ষা প্রকাশ করেছেন গবেষকরা। এই গবেষণায় প্রকাশিত হয়েছে, এটি বাদুড়ের সম্পূর্ণ নতুন প্রজাতি।

আফ্রিকায় সন্ধান মিলেছে কমলা বাদুড়ের

গবেষকরা পশ্চিম আফ্রিকার দেশ গিনিতে এই আকর্ষণীয় প্রজাতির বাদুড়ের সন্ধান পেয়েছেন। টেক্সাসের অস্টিনের একটি অলাভজনক সংস্থা বেট কনজার্ভেশন ইন্টারন্যাশনালের ডিরেক্টর জন ফ্ল্যান্ডারস বলেছেন, ‘প্রতিটি প্রজাতি গুরুত্বপূর্ণ। তবে মানুষ সব সময়ই আকর্ষণীয় চেহারার প্রাণী দেখার জন্য অধীর আগ্রহহে অপেক্ষা করে।

Loading videos...

তিনি বলেন, এখন গবেষণাগারে অনেক নতুন প্রজাতি আবিষ্কার করা হচ্ছে, তবে এ ভাবে সম্পূর্ণ নতুন প্রজাতির সন্ধান করতে জঙ্গলে যাওয়ার ঘটনা তাঁর কাছে একেবারে নতুন।

নিউইয়র্কের আমেরিকান মিউজিয়াম অফ ন্যাচারাল হিস্ট্রি-এর স্তন্যপায়ী প্রাণীর কিউরেটর ন্যানসি সিমন্স বলেছেন, “মনে হয় অভিজ্ঞ গবেষকরা স্পটে গিয়ে একটি প্রাণী ধরেছিলেন। এটা এমন একটি প্রাণী, যেটাকে আমরা সহজেই শনাক্ত করতে পারিনি”।

মিলেছে স্ত্রী এবং পুরুষ বাদুড়

মায়োটিস নিমবাঁইসিস নামের নতুন প্রজাতির বাদুড় বাস করে গিনির নিম্বা পর্বতমালায়। যদিও বিজ্ঞানীরা বলতে চাননি এটি একটি নতুন প্রজাতি। সুতরাং, তারা সঠিক তদন্তের জন্য এই বাদুড়ের একটি পুরুষ এবং একটি মহিলা প্রজাতিও ধরেছিলেন। সিমন্স তখন এই প্রজাতির নমুনাগুলির তুলনা করতে ওয়াশিংটন ডিসির স্মিথসোনিয়ান জাতীয় জাদুঘর এবং লন্ডনের ব্রিটিশ জাদুঘরেও গিয়েছিলেন।

জিনগত বিশ্লেষণে জানা গেছে যে এই কমলা রঙের বাদুড় তাদের নিকটাত্মীয়দের থেকে সম্পূর্ণ আলাদা। একটি নতুন প্রজাতি ঘোষণার ঘটনায় এটাই ছিল প্রথম পদক্ষেপ। কালো ডানাযুক্ত বাদুড়ের মতো আকারগত ভাবে এক রকম দেখতে দেখতে হলেও এদের কমলা রঙ প্রাণীটিকে আরও জনপ্রিয় করে তুলেছে।

আরও পড়তে পারেন: “করোনা ভ্যাকসিন কি বন্ধ্যাত্বের কারণ হতে পারে?” গুজব সামলাতে আসরে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Continue Reading

বিদেশ

আমেরিকায় এই প্রথম! প্রেসিডেন্ট হিসেবে দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি ডোনাল্ড ট্রাম্প, এর পর কী

১৩ মাসের ব্যবধানে দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি ডোনাল্ড ট্রাম্প।

Published

on

ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফাইল ছবি

খবর অনলাইন ডেস্ক: হোয়াইট হাউস ছাড়ার কয়েক দিন আগে দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হলেন আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। এই প্রথম কোনো মার্কিন প্রেসিডেন্ট দ্বিতীয় বারের জন্য ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হলেন। এর পর কী?

চূড়ান্ত ভোটের বেশ কয়েক মাস আগে সভায় তদন্ত ও শুনানি-সহ অতীতে ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হয়েছিলেন অ্যান্ড্রিউ জনসন, বিল ক্লিন্টন এবং ট্রাম্প। বছরখানেক আগে ইমপিচমেন্ট হয় ট্রাম্পের। ফের মার্কিন কংগ্রেসে তাঁর ইমপিচমেন্ট পাশ হয়েছে ২৩২-১৯৭ ভোটে। শুধু তাই নয়, ১০ জন রিপাবলিকানও এই প্রস্তাবের পক্ষে ভোট দিয়েছেন।

ডেমোক্র্যাটরা দাবি জানিয়েছিলেন, ২০ জানুয়ারি ট্রাম্পের অফিস ছাড়ার আগেই ট্রায়াল শুরু করতে। তবে বিদায়ী সেনেটের সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশের নেতা মিচ ম্যাককনেল সেই প্রস্তাব খারিজ করে দিয়ে বলেছেন, ডেমোক্র্যাট জো বিডেন প্রেসিডেন্ট হিসাবে শপথ নেওয়ার আগের দিন বা আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত সেনেটের বিচার প্রক্রিয়া শুরু হবে না। অর্থাৎ, স্পিকার ঠিক করবেন, কত তাড়াতাড়ি ইমপিচমেন্ট আর্টিকল সেনেটে ট্রায়ালের জন্য পাঠানো হবে।

Loading videos...

স্বাভাবিক ভাবই এখনও স্পষ্ট নয়, ঠিক কবে বিচার প্রক্রিয়া শুরু হবে। অথবা, ট্রাম্প অফিস ছেড়ে যাওয়ার পর কত জন রিপাবলিকান সেনেট সদস্য ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ভোট দিতে পারেন। তবে ট্রায়াল শুরু না হলেও পূর্ব নির্ধারিত ভাবে ট্রাম্পকে অফিস ছাড়তেই হচ্ছে।

কেন ইমপিচমেন্ট?

২০১৯-এ আগামী মার্কিন প্রেসিডেন্ট এবং তাঁর তৎকালীন প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনের বিরুদ্ধে কাদা ছোঁড়ার জন্য তিনি ইউক্রেনের নেতাকে চাপ দেওয়ার অভিযোগে ট্রাম্পের বিরুদ্ধে ইমপিচমেন্ট হয়। সে সময় ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত মার্কিন কংগ্রেস তাঁর ইমপিচমেন্ট করে। তবে রিপাবলিকান সংখ্যাগরিষ্ঠ সেনেট গত ফেব্রুয়ারিতে তাঁকে অভিযোগ থেকে মুক্তি দেয়।

এ বারের ইমপিচমেন্ট ইউএস ক্যাপিটলে হামলার ঘটনার জেরে। গত ৬ জানুয়ারি ক্যাপিটলে ট্রাম্প সমর্থকদের তাণ্ডবের জেরেই ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি হতে হচ্ছে ট্রাম্পকে। অর্থাৎ, ১৩ মাসের ব্যবধানে দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখোমুখি ট্রাম্প।

এর পর কী?

এ বারের ট্রায়ালে দোষী সাব্যস্ত হলে ২০২৪ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে আর দাঁড়াতে পারবেন না ট্রাম্প। সে ক্ষেত্রে সেনেটের দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর আইনসভার সদস্যরা একটি পৃথক ভোটের মাধ্যমে তাঁকে ভবিষ্যতে দায়িত্ব গ্রহণের অযোগ্য হিসেবে প্রমাণ করতে পারেন।

তাঁকে দোষী সাব্যস্ত করার জন্য দুই তৃতীয়াংশ সেনেট সদস্যের সমর্থন চাই, তবে ভবিষ্যতে তাঁকে সম্পূর্ণ ভাবে আটকাতে সংখ্যাগরিষ্ঠ অংশের ভোটের প্রয়োজন। দ্বিতীয় বার ইমপিচমেন্টের মুখে পড়ার পর ট্রাম্প অবশ্য নরম সুরেই কথা বলছেন। তিনি আমেরিকানদের উদ্দেশে ‘ঐক্যবদ্ধ’ থাকার এবং হিংসায় না জড়ানোর আরজি জানিয়েছেন। বাকিটা সময়ের হাতেই!

আরও পড়তে পারেন: টুইটারে বরাবরের জন্য নিষিদ্ধ হলেন ডোনাল্ড ট্রাম্প, ‘চুপ করিয়ে রাখা’র ষড়যন্ত্রের অভিযোগ

Continue Reading

বিদেশ

দরিদ্রতম দেশগুলিতেও টিকা পৌঁছাতে হবে, তবেই সুরক্ষিত হবে বিশ্ব: ইউনিসেফ

দরিদ্রতম দেশগুলির জন্য করোনা ভ্যাকসিন নিশ্চিত করতে চায় ইউনিসেফ।

Published

on

প্রতীকী ছবি। ইউনিসেফ-এর সৌজন্যে

খবর অনলাইন ডেস্ক: বিশ্বের বেশ কয়েকটি দেশ ইতিমধ্যেই করোনার টিকাকরণ শুরু করে দিয়েছে। তবে দরিদ্রতম দেশগুলি ভ্যাকসিন পাওয়ার পরেই সারা বিশ্ব সুরক্ষিত হবে বলে মনে করে ইউনিসেফ।

সংস্থার পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যেহেতু করোনার ভ্যাকসিন পাওয়া যাচ্ছে, তাই স্বাস্থ্যকর্মী, শিক্ষক এবং সমাজকর্মীদের প্রথম পর্যায়ে টিকাকরণ করতে হবে। তাঁরা প্রত্যেকেই শিশুসুরক্ষার সঙ্গে সম্পর্কিত। একই সঙ্গে করোনার বিরুদ্ধে প্রথমসারির কর্মী এবং ঝুঁকিপূর্ণ ব্যক্তিদেরও টিকাকরণ করতে হবে। এ ভাবেই একটু একটু করে পুরো সম্প্রদায় জুড়ে করোনার বিরুদ্ধে একটা প্রতিরক্ষামূলক ঢাল তৈরি হয়ে যাবে।

নজরে দরিদ্রতম দেশগুলি

ইতিমধ্যেই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন, ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশ ও কানাডা-সহ বিশ্বের কয়েকটি ধনী দেশে টিকাকরণ শুরু হয়েছে। আগামী ১৬ জানুয়ারি থেকে ভারতেও শুরু হচ্ছে প্রথম দফার টিকাকরণ।

Loading videos...

ইউনিসেফ বলেছে, কয়েকটি দেশ করোনার টিকা বের করেছে। তবে যখন বিশ্বের দরিদ্রতম দেশগুলি তা পাবে, তখনই সারা বিশ্ব এই সংক্রামক ভাইরাসের হাত থেকে রক্ষা পাবে।

ইউনিসেফ জানিয়েছে, প্রত্যেকের কাছে নিরাপদ ও কার্যকর ভ্যাকসিন পৌঁছে দিতে অংশীদারদের সঙ্গে কাজ করছে সংস্থা।

দরিদ্রতম দেশগুলি কী ভাবে পাবে টিকা?

সম্প্রতি বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানায়, জানুয়ারির শেষ অথবা ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি সময়ের মধ্যেই বিশ্বের দরিদ্রতম দেশগুলিতে করোনা টিকার প্রথম ডোজ পৌঁছাবে।

হু-র ভ্যাকসিন বিষয়ক প্রধান কেইট ও’ব্রায়েন জানান, বিশ্বব্যাপী ভ্যাকসিন সংগ্রহ ও বিতরণ প্রচেষ্টায় নিয়োজিত কোভ্যাক্স ২০০ কোটি ডোজ টিকার জন্য চুক্তি করেছে। কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই তার প্রথম লট হাতে এসে পৌঁছাবে।

প্রকল্পের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ৯২টি নিম্ন এবং নিম্ন-মধ্য আয়ের দেশের ২০ শতাংশ মানুষের টিকাকরণের লক্ষ্য নিয়ে গঠিত হয়েছে কোভ্য়াক্স। একই সঙ্গে কোভিড-১৯ ভ্যাকসিনের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার মুখোমুখি হলে দরিদ্র দেশগুলির নাগরিকদের জন্য ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করতে একটি তহবিল গড়েছে হু।

আরও পড়তে পারেন: পৌঁছাল সেরামের করোনা ভ্যাকসিন, কোন রাজ্য কত পেল

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
Currency
দেশ48 mins ago

আপনি কি জানেন, মাইনে থেকে কেটে নেওয়া মাত্র ২৫ টাকাতেই পাওয়া যায় কয়েক লক্ষ টাকার সুবিধা?

ফুটবল11 hours ago

শেষ মিনিটে সমতা ফিরিয়ে হার এড়াল ইস্টবেঙ্গল

রাজ্য12 hours ago

রাজ্যে আরও কমল দৈনিক সংক্রমণের হার, ১৩ জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা এক অঙ্কে

election commission of india
রাজ্য13 hours ago

ভোট প্রস্তুতি তুঙ্গে! রাজ্যে আসছে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ

রাজ্য13 hours ago

শতাব্দী রায়ের ‘মানভঞ্জনে’ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

প্রযুক্তি14 hours ago

হোয়াটসঅ্যাপে এ ভাবে সেটিং করলে আপনার আলাপচারিতা কেউ দেখতে পাবে না এবং তথ্যও থাকবে নিরাপদে

দেশ14 hours ago

বাংলাদেশের সুবর্ণজয়ন্তীতেই মৈত্রী সেতু উদ্বোধনের সম্ভাবনা

শরীরস্বাস্থ্য15 hours ago

কেন খাবেন মেথি?

বিদেশ3 days ago

১৯৫৩ সালের পর থেকে প্রথম কোনো মহিলার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করল মার্কিন সরকার

শিল্প-বাণিজ্য3 days ago

ফের বাড়ল পেট্রোল-ডিজেলের দাম!

বিনোদন3 days ago

কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ‘অভিযাত্রিক’, সিনেমার ‘মাস্টার’দের প্রতি শ্রদ্ধাঞ্জলি

দেশ1 day ago

করোনার টিকা নেওয়ার পর অসুস্থ হলে দায় নেবে না কেন্দ্র

দেশ16 hours ago

নবম দফার বৈঠকেও কাটল না জট, ফের কৃষকদের সঙ্গে আলোচনায় বসবে কেন্দ্র

দেশ3 days ago

গ্রেফতার অ্যালকেমিস্ট কর্ণধার কেডি সিং!

কলকাতা2 days ago

বাগবাজার ব্রিজের কাছে বস্তিতে বিধ্বংসী আগুন, ছড়াল পার্শ্ববর্তী বহুতলেও

কলকাতা2 days ago

অগ্নিকাণ্ডে গৃহহীনদের ঘর তৈরি করে দেবে পুরসভা, বাগবাজারে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

কেনাকাটা

কেনাকাটা4 days ago

৯৯ টাকার মধ্যে ব্র্যান্ডেড মেকআপের সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : ব্র্যান্ডেড সামগ্রী যদি নাগালের মধ্যে এসে যায় তা হলে তো কোনো কথাই নেই। তেমনই বেশ কিছু...

কেনাকাটা1 week ago

কয়েকটি ফোল্ডিং আইটেম খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি সঙ্গে থাকলে অনেক সুবিধে হত বলে মনে হয়, কিন্তু সব সময় তা পাওয়া...

কেনাকাটা1 week ago

রান্নাঘরের কাজ এগুলি সহজ করে দেবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের কাজ অনেক বেশি সহজ করে দিতে পারে যে সমস্ত জিনিস, তারই কয়েকটির খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা1 week ago

ম্যাক্সিড্রেসের নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সুন্দর ম্যাক্সিড্রেসের চাহিদা এখন তুঙ্গে। সামনেই কোনো আনন্দ অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ থাকলে ম্যাক্সি পরতে পারেন। বাছাই করা কয়েকটি ড্রেসের...

কেনাকাটা2 weeks ago

রকমারি ডিজাইনের ৯টি পুঁটলি ব্যাগের কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিয়ের মরশুমে নিমন্ত্রণে যেতে সাজের সঙ্গে মিলিয়ে ব্যাগ নেওয়ার চল রয়েছে। অনেকেই ডিজাইনার ব্যাগ পছন্দ করেন। তেমনই কয়েকটি...

কেনাকাটা2 weeks ago

কস্টিউম জুয়েলারির দারুণ কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিয়ের মরশুম আসছে। নিমন্ত্রণবাড়ি তো লেগেই থাকে। সেখানে আজকাল সোনার গয়নার থেকে কস্টিউম বা জাঙ্ক জুয়েলারি পরে যাওয়ার...

কেনাকাটা2 weeks ago

রুম হিটারের কালেকশন, ৬৫০ থেকে শুরু

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভালোই শীত চলছে। এই সময় রুম হিটারের প্রয়োজনীয়তা খুবই। তা সে ঘরের জন্যই হোক বা অফিস, বা কোথাও...

কেনাকাটা3 weeks ago

চোখের যত্ন নিতে কিনুন এগুলি, খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: অনেকেই আছেন সারা দিনের ব্যস্ততার মাঝে যদিও বা পা, হাত বা মুখের টুকটাক যত্ন নেন, কিন্তু চোখের বিশেষ...

কেনাকাটা4 weeks ago

ফিলগুড প্রোডাক্ট! পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দিনের মধ্যে কিছু সময় যদি নিজের মতো করে নিজের জন্য দেওয়া যায় তা হলে মন যেমন ভালো থাকে...

কেনাকাটা4 weeks ago

জায়গা বাঁচানোর জন্য বিভিন্ন রকমের অর্গানাইজার, দেখে নিন খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রোজকার ঘরে ব্যবহারের জন্য এমন অনেক জিনিস আছে যেগুলি থাকলে যেমন জায়গার সাশ্রয় হয় তেমনই সময়েরও। জায়গা বাঁচানোর...

নজরে