Connect with us

বিদেশ

অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের আমেরিকা ছাড়তে হবে, নির্দেশ ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকারের

অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের হয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বদল করতে হবে। নচেৎ তাঁদের ভিসা প্রত্যাহার করা হবে।

ওয়েবডেস্ক: করোনাভাইরাস মহামারির (Coronavirus pandemic) কারণে অনলাইনে ক্লাস চলছে। তবে সম্পূর্ণ ভাবে অনলাইনে ক্লাস করা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে পাঠরত পড়ুয়াদের উদ্দেশে কড়া নীতি নিল আমেরিকা।

ডোনাল্ড ট্রাম্প সরকার স্পষ্টতই জানিয়ে দিল, এ ভাবে অনলাইনে ক্লাস করা ভিনদেশি পড়ুয়াদের হয় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বদল করতে হবে। সেখানে তাঁদের সশরীরে হাজির হয়ে ক্লাস করতে হবে। নচেৎ তাঁদের ভিসা প্রত্যাহার করা হবে।

আমেরিকার ইমিগ্রেশন অ্যান্ড কাস্টমস এমফোর্সমেন্ট (ICE) গত ৬ জুলাইয়ের বিবৃতিতে জানিয়ে দিয়েছে, “এফ-১ এবং এম-১ ভিসা নিয়ে পড়তে গিয়ে এখন যে সমস্ত পড়ুয়া অনলাইন ক্লাস করছেন, তাঁদের আমেরিকায় থাকার ভিসা প্রত্যাহার করা হবে। এমনকী ওই ভিনদেশি পড়ুয়ারা আমেরিকায় থাকতেও পারবেন না”।

উদ্বেগে বিদেশি পড়ুয়ারা

সরকারের এই ঘোষণার জেরে উদ্বেগ বাড়ছে বিদেশি পড়ুয়াদের মধ্যে। কারণ, এ ধরনের নির্দেশ যে শুধুমাত্র তাৎক্ষণিক উদ্দেশে দেওয়া হয়েছে, তেমনটা নয়। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, আমেরিকার বেশ কিছু বিশ্ববিদ্যালয়ে অনলাইনে পড়াশোনা করেন একটা বিশাল অংশের ভিনদেশি পড়ুয়া। সরকারের এই নীতির অন্যতম উদ্দেশ্য এটাও হতে পারে যে, ওই সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভরতি হওয়া ভিনদেশি পড়ুয়ারা হয়তো আর আমেরিকায় ঢুকতে পারবেন না। আশঙ্কা করা হচ্ছে, এ ধরনের ছাত্র-ছাত্রীদের আর এফ-১ ভিসা দেওয়া হবে না।

তবে সরকারের এই নয়া নির্দেশিকা পেয়ে এখনই কোনো স্থায়ী সিদ্ধান্ত নিতে পারছেন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান কর্তৃপক্ষ। তাঁরা নির্দেশটি খতিয়ে দেখছেন। হার্ভার্ড-সহ বেশ কিছুব বৃহত্তম বিশ্ববিদ্যালয় আপাতত অনলাইনে ক্লাস চালু রাখার পক্ষে। আগামী শরতে যদি করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণের মধ্যে এসেও যায়, তা হলে মাত্র ৪০ শতাংশ পড়ুয়াকেই তারা ক্যাম্পাসে ঢোকার অনুমতি দেবে। সে ক্ষেত্রেও অনলাইনেই পড়াশোনা চালু রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হার্ভার্ড।

দেশের মধ্যেই বিরোধিতা

প্রশাসনের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করেছেন সেনেটর এবং আগামী প্রেসিডেন্ট ভোটে ট্রাম্পের প্রতিদ্বন্দ্বী বার্নিও স্যান্ডার্স। তিনি জানান, ভিনদেশি পড়ুয়াদের উপর মারাত্মক শর্ত আরোপ করা হচ্ছে। তাঁদের বলা হচ্ছে, হয় প্রাণের ঝুঁকি নিয়ে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গিয়ে ক্লাস করো, নইলে দেশ ছাড়ো। সরকারের এই একগুঁয়েমি নীতির বিরুদ্ধে আমাদের রুখে দাঁড়াতে হবে। দেশি হোক বা বিদেশি, সমস্ত পড়ুয়াদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে।

এমনিতে এর আগেই এইচ-১বি এবং এল-১ ভিসা সাময়িক ভাবে স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করেছে আমেরিকা। তার পর আইসিই-র এই নতুন নির্দেশিকা আমেরিকার বিদেশিদের মধ্যে ক্রমশ উদ্বেগ বাড়িয়েছে। অন্য দিকে মার্কিন মুলুকে করোনা সংক্রমণ দ্রুতগতিতে বৃদ্ধি পেলেও বিশ্ববিদ্যালয়গুলি খোলার ব্যাপারে চাপ দিচ্ছে প্রশাসন। পরিস্থিতি কোন দিকে মোড় নেয়, সেটাই দেখার।

এফ-১ ভিসা

বিদেশি পড়ুয়াদের ভিসার মধ্যে সব থেকে সাধারণ হল এফ-১ ভিসা। এগুলি সাধারণত কলেজ ডিগ্রি অর্জনকারীদের জন্য দেওয়া হয়। মার্কিন কলেজ এবং বিশ্ববিদ্যালয়গুলিতে এফ -১ ভিসায় তালিকাভুক্ত বিদেশি পড়ুয়াদের সংখ্যা ক্রমশ বেড়ে চলেছে। বিশেষ করে বিশ্বমন্দার পর থেকে এই বৃদ্ধির হার ক্রমশ ঊর্ধ্বমুখী।

ছবি: পাওয়ারসার্চ থেকে

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

বিদেশ

‘ভাসমান বোমার’ হুমকিকে উপেক্ষা, ক্ষোভে ফুঁসছে বেইরুট

ছ’মাস আগেই গুদামটি পরিদর্শন করে আধিকারিকরা জানিয়েছিলেন, এটা যদি সরিয়ে না যাওয়া হয় তা হলে “পুরো বেইরুট উড়ে যাবে।”

বেইরুট: ক্ষোভ আর আতঙ্ক বাড়ছে লেবাননের রাজধানী বেইরুটে (Beirut)। প্রশাসনের থেকে জানানো হয়েছে মঙ্গলবারের ভয়াবহ বিস্ফোরণে এখনও পর্যন্ত শহরে ১৩৫ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহতের সংখ্যা প্রায় পাঁচ হাজার।

ক্ষোভ বাড়ছে কারণ ‘ভাসমান বোমার’ ব্যাপারে প্রশাসনকে বারবার সতর্ক করা হলেও বিশেষ কোনো পদক্ষেপ কোনো দিনই করেনি তারা। বেইরুট বন্দরের গুদামে ২৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুত করা ছিল ২০১৪ থেকে। মঙ্গলবার সেটাই বিস্ফোরিত হয় পর পর দু’ বার।

ছ’ মাস আগেই গুদামটি পরিদর্শন করে আধিকারিকরা জানিয়েছিলেন, এটা যদি সরিয়ে না নেওয়া হয় তা হলে “পুরো বেইরুট উড়ে যাবে।”

লেবাননের (Lebanon) সরকারের বিরুদ্ধে এমনিতেই ক্ষোভ বাড়ছে মানুষের। দেশে আর্থিক সংকট ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এর ফলে মোট জনসংখ্যার অর্ধেকই এখন দারিদ্রসীমার নীচে চলে গিয়েছে। এর ওপরে আবার যোগ হয়েছে এই বিস্ফোরণের হুমকিকে বার বার উপেক্ষা করার মতো সরকারি গাফিলতি।

বেইরুটের বর্তমান পরিস্থিতি

বুধবার বিকেলে লেবানন সরকার জানিয়েছে যে তদন্তের কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত গৃহবন্দি করা হচ্ছে বেইরুট বন্দরের আধিকারিকদের। তবে কত জন আধিকারিককে বন্দি করা হয়েছে সে ব্যাপারে কোনো তথ্য সরকার দেয়নি।

পাশাপাশি, বেইরুটে দু’ সপ্তাহের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করেছে সরকার। যার অর্থ, লেবাননের রাজধানীতে সেনাবাহিনীর ওপরে এখন পূর্ণ ক্ষমতা।

মৃত এবং আহতের সংখ্যা যেমন বাড়ছে তেমনই বাড়ছে ঘরবাড়ি ভয়াবহ ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়া মানুষের সংখ্যাও। প্রশাসনের হিসেব অনুযায়ী শহরের তিন লক্ষ বাসিন্দার বাড়ি ভয়াবহ ভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

বুধবার সকাল থেকে নতুন লড়াইয়ে নামতে হয় বেইরুটবাসীদের। নিজেদের ক্ষতিগ্রস্ত বাড়িগুলিকে নতুন করে সাজিয়ে তোলার লড়াই। যে বাড়িগুলো সাংঘাতিক ভাবে ক্ষতির মুখে পড়েনি, সেখানেও জানলার কাচ ভেঙেছে, ভেঙে পড়েছে বৈদ্যুতিন ফিটিং।

কী ভাবে বিপুল পরিমাণ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুত হল

বেইরুটবাসীর স্বাভাবিক ভাবেই প্রশ্ন এই অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট বন্দরে মজুত হল কী ভাবে?

২০১৩ সালের সেপ্টেম্বরে এক রুশ ব্যক্তির মালিকানাধীন মালদোভার পতাকাবাহী একটি কার্গো জাহাজে করে লেবাননে পৌঁছোয় এই বিপুল পরিমাণ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট। শিপ ট্র্যাকিং সাইট ফ্লেটমোনের তথ্য অনুযায়ী জাহাজটি জর্জিয়া থেকে মোজাম্বিক যাচ্ছিল।

কারিগরি ত্রুটির কারণে জাহাজটিকে বেইরুটের জেটিতে ভিড়তে বাধ্য করা হয়। লেবাবন কর্তৃপক্ষ জাহাজটিকে আটকেই রাখে। বাজেয়াপ্ত করা হয় এই বিপুল পরিমাণ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট। এর পর ওই জাহাজকে বেইরুট বন্দরে রেখেই মালিক ও কর্মীরা চলে যায়।

পরে জাহাজ থেকে অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট নামানো হয়। রাখা হয় বন্দরের ১২ নম্বর হ্যাঙ্গারে। হ্যাঙ্গারটি মূল শহরে ঢোকার জন্য ব্যস্ততম সড়কের ঠিক ধারেই অবস্থিত।

এর পর ২০১৪-এর ২৭ জুন লেবানন কাস্টমসের পরিচালক শাফিক মেরহি দ্রুত বিষয়টি নিষ্পত্তি করার জন্য একটি চিঠি পাঠান। এর পরের তিন বছরে আরও পাঁচটি চিঠি দেওয়া হয়।

অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট-সংক্রান্ত এই ব্যাপারটি সমাধানের জন্য মূলত তিনটে প্রস্তাব দেওয়া হয় এই কার্গো জাহাজের মালিকের কাছে। প্রস্তাবগুলি হল, ১. নাইট্রেট সরিয়ে নেওয়া, ২. লেবাননের সেনাবাহিনীর কাছে হস্তান্তর করা, ৩. লেবাননের বেসরকারি বিস্ফোরক কোম্পানির কাছে বিক্রি করে দেওয়া।

কিন্তু এই চিঠিগুলোর কোনো জবাব আসেনি কখনও। ছ’মাস আগে গুদামের সেই ১২ নম্বর হ্যাঙ্গার পরিদর্শন করে আধিকারিকদের মত ছিল, ‘ভাসমান বোমা’ মজুত রয়েছে বেইরুটে।

বিস্ফোরণ হল কী ভাবে

কিন্তু এখনও যেটা নিশ্চিত করা যাচ্ছে না, সেটা হল এই অ্যামোনিয়াম নাইট্রেটে বিস্ফোরণ হল কী ভাবে। সাধারণত, এতে বিস্ফোরণ হতে গেলে চরম তাপের প্রয়োজন।

তবে একটা ধারণা করা হচ্ছে যে সম্ভবত কাছাকাছি কোনো জায়গায় আগুন লাগার ঘটনা ঘটেছিল। মঙ্গলবারই বেইরুট পুরসভার নির্দেশে বন্দরের কাছেই একটি জায়গায় যায় দমকলবাহিনী। তার পর থেকেই তাদের আর কোনো খোঁজ নেই। এটাই ইঙ্গিত যে আগুন থেকেই ভয়াবহ এই বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।

বসবাসের অযোগ্য

বেইরুটের পূর্বাংশের একটা বড়ো অংশ এখন বসবাসের পুরোপুরি অযোগ্য হয়ে পড়েছে। টায়ারের দোকানের ম্যানেজার ইসাম নাসির বলেন, “আমি জানি না, এই দুর্যোগ কী ভাবে কাটিয়ে উঠব, আপনাদের কী মনে হয় যে হিরোশিমার ঘটনা এর থেকেও ভয়াবহ ছিল?”

কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ নয়, কোনো জঙ্গি যোগও নেই। শুধুমাত্র প্রশাসনের তরফে চূড়ান্ত একটা গাফিলতির ফলে বিশ্বের ইতিহাসে অন্যতম ভয়ংকর ঘটনা ঘটে গেল মঙ্গলবার। সরকারের ওপরে ক্ষোভ যে বাড়বেই তা তো বলাই বাহুল্য।

Continue Reading

বিদেশ

বেইরুটের কিছু এলাকা ধ্বংসস্তূপে পরিণত, নিহত শতাধিক

এই ঘটনায় জঙ্গিযোগ নেই বলেই মনে করছে লেবানন সরকার।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: মঙ্গলবারের ভয়াবহ বিস্ফোরণের অভিজ্ঞতা এখনও ভুলতে পারেননি লেবাননের রাজধানী বেইরুটের (Beirut) বাসিন্দারা। বুধবার সকালেও বিস্ফোরণের প্রভাব রয়ে গিয়েছে শহরে। শহরের বেশ কিছু এলাকা কার্যত ধ্বংসস্তূপে পরিণত। এখনও ধিকি ধিকি আগুন জ্বলছে বন্দর এলাকায়।

লেবাননের (Lebanon) রেড ক্রস জানিয়েছে যে ইতিমধ্যেই বিস্ফোরণে নিহতের সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়ে গিয়েছে। আহতের সংখ্যা চার হাজারেরও বেশি।

মৃতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করছে প্রশাসন। বিস্ফোরণে নিহতদের পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বুধবার জাতীয় শোক দিবস ঘোষণা করেছেন লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব।

মঙ্গলবার বিকেলে পর পর দু’টো জোরালো বিস্ফোরণে কেঁপে উঠল বেইরুটের বন্দর এলাকা। এর তীব্রতা এতটাই ছিল  যে ১০ কিলোমিটার দূর পর্যন্ত ঘরবাড়ি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। কম্পন অনুভূত হয় বেইরুটের ২৪০ কিলোমিটার পশ্চিমে সাইপ্রাস দ্বীপেও।

এই ঘটনায় জঙ্গিযোগ নেই বলেই মনে করছে লেবানন সরকার। প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, বন্দর এলাকার একটি গুদামে ২৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুত ছিল গত ছয় বছর ধরে। তাতেই বিস্ফোরণ ঘটেছে।

লেবাননের প্রধানমন্ত্রী এ-ও জানিয়েছেন, এত বিপুল পরিমাণে বিস্ফোরক মজুত কী ভাবে করা হল তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কোনো রকম সতর্কতামূলক ব্যবস্থা ছাড়া কেন এত বিপুল পরিমাণ বিস্ফোরক মজুত করা হয়েছে তাও খতিয়ে দেখা হবে। এই ঘটনার জন্য যারা দায়ী তাদের কঠোরতম শাস্তি দেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী।

একটা তদন্ত কমিটি গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। পাঁচ দিনের মধ্যে সেই কমিটিকে রিপোর্ট দিতে বলা হয়েছে। তদন্তকারীদের প্রাথমিক অনুমান, গুদামে বা তার আশপাশে আগুন লেগে গিয়েছিল। সেই আগুনের জেরেই বিস্ফোরণ ঘটেছে।

বিস্ফোরণস্থলের কাছাকাছি সব ঘরবাড়ি গুঁড়িয়ে গিয়েছে। ভেঙে পড়েছে বেশ কয়েকটি বহু তল। সেই ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়ে যান অনেক মানুষ। এমনটাই জানাচ্ছে স্থানীয় সংবাদমাধ্যম।

এই ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেন, বেইরুটের বিস্ফোরণে এত লোকের প্রাণহানি হল, তার জন্য আমরা গভীর ভাবে শোকাহত।

Continue Reading

বিদেশ

বন্দর কর্তৃপক্ষের গাফিলতিকে দায়ী করলেন লেবাননের প্রধানমন্ত্রী, উলটো সুর ডোনাল্ড ট্রাম্পের

“এটা এক ধরনের বোমা।”

বেইরুট: লেবাননের রাজধানী বেইরুটে (Beirut) ভয়াবহ বিস্ফোরণের পেছনে কোনো জঙ্গিযোগ নেই বলেই মনে করছে সে দেশের সরকার। বরং বন্দর কর্তৃপক্ষের চূড়ান্ত গাফিলতিকেই এই বিস্ফোরণের জন্য দায়ী করেছেন। যদিও মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump) আবার অন্য কথা বলছেন।

লেবাননের প্রধানমন্ত্রী হাসান দিয়াব বলেন, ২,৭৫০ টন অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট (Ammonium Nitrate) বিস্ফোরিত হয়েছে বেইরুট বন্দরে।

তিনি বলেন, “এটা কোনো ভাবেই মেনে নেওয়া যায় না যে ছ ‘বছর ধরে কোনো সুরক্ষা ছাড়াই একটা গুদামে ২,৭৫০ অ্যামোনিয়াম নাইট্রেট মজুত রাখা ছিল।” তাঁরা এটা নিয়ে নীরব থাকবেন না বলেও সাফ জানিয়েছেন দিয়াব।

ট্রাম্প দেখছেন জঙ্গিযোগ

“আমার দেখে মনে হচ্ছে এটা একটা হামলার ঘটনা।” হোয়াইট হাউসে সাংবাদিক সম্মেলনে এমনই কথা বলেছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।

সাধারণত, এই ধরনের হামলার ঘটনা ঘটলে জঙ্গি সংগঠনগুলি তার দায় স্বীকার করে নেয়। কিন্তু বেইরুটের ক্ষেত্রে এখনও সে রকম কিছু হয়নি। কিন্তু তবুও ট্রাম্প জঙ্গিযোগই দেখছেন।

তিনি বলেন, “এটা এক ধরনের বোমা। আমি আমাদের মহান সেনা আধিকারিকদের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলেছি, তারাও সে রকমই ভাবছেন।”

তবে ঘটনায় দুঃখপ্রকাশ করে ট্রাম্প বলেন, “মৃত এবং আহতদের পরিবারের প্রতি সমাবেদনা জানাচ্ছি। লেবাননকে যে কোনো ধরনের সাহায্য করতে প্রস্তুত আমেরিকা।”

উল্লেখ্য, বেইরুটের এই বিস্ফোরণে এখনও পর্যন্ত ৭৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছেন অন্তত ৩,৭০০ জন। তবে মৃতের সংখ্যা আরও অনেক বাড়তে পাড়ে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

Continue Reading
Advertisement
গাড়ি ও বাইক31 mins ago

চলতি মাসে যে ৫টি নতুন মোটর বাইক বাজারে আসছে

বাংলাদেশ43 mins ago

রাশেদ খান হত্যা মামলা: ৯ পুলিশের বিরুদ্ধে পরোয়ানা, ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ধৃত

রাজ্য1 hour ago

প্রয়াত বর্ষীয়ান সিপিএম নেতা শ্যামল চক্রবর্তী

দেশ3 hours ago

করোনা কাঁটায় ঝিমিয়ে অর্থনীতি, রেপো রেট অপরিবর্তিত রাখল ভারতীয় রিজার্ভ ব্যাঙ্ক

Hrithik Roshan
বিনোদন4 hours ago

‘ক্রিশ ৪’ নয়, তার আগেই একটি কমেডি ছবিতে হৃতিক রোশনকে দেখা যাবে?

দেশ5 hours ago

কাশ্মীরে জঙ্গিদের গুলিতে নিহত সরপঞ্চ তথা বিজেপি নেতা

বিদেশ5 hours ago

‘ভাসমান বোমার’ হুমকিকে উপেক্ষা, ক্ষোভে ফুঁসছে বেইরুট

দেশ6 hours ago

২০২৩-২৪ সালে অযোধ্যায় দিনে এক লক্ষ পুণ্যার্থীর প্রত্যাশা করছে কেন্দ্র-রাজ্য

রবিবারের খবর অনলাইন

কেনাকাটা

কেনাকাটা16 hours ago

শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল, জেনে নিন কোন জিনিসে কত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্: শুরু হল অ্যামাজন প্রাইম ডে সেল। চলবে ২ দিন। চলতি মাসের ৬ ও ৭ তারিখ থাকছে এই অফার।...

things things
কেনাকাটা6 days ago

করোনা আতঙ্ক? ঘরে বাইরে এই ১০টি জিনিস আপনাকে সুবিধে দেবেই দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনা পরিস্থিতিতে ঘরে এবং বাইরে নানাবিধ সাবধানতা অবলম্বন করতেই হচ্ছে। আগামী বেশ কয়েক মাস এই নিয়মই অব্যাহত...

কেনাকাটা1 week ago

মশার জ্বালায় জেরবার? এই ১৪টি যন্ত্র রুখে দিতে পারে মশাকে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে করোনা তায় আবার ডেঙ্গুর প্রকোপ শুরু হয়েছে। এই সময় প্রতি বারই মশার উৎপাত খুবই বাড়ে। এই বারেও...

rakhi rakhi
কেনাকাটা2 weeks ago

লকডাউন! রাখির দারুণ এই উপহারগুলি কিন্তু বাড়ি বসেই কিনতে পারেন

সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে মনের মতো উপহার কেনা একটা বড়ো ঝক্কি। কিন্তু সেই সমস্যা সমাধান করতে পারে অ্যামাজন। অ্যামাজনের...

কেনাকাটা2 weeks ago

অনলাইনে পড়াশুনা চলছে? ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ৪০ হাজার টাকার নীচে ৬টি ল্যাপটপ

ইনটেল প্রসেসর সহ কোন ল্যাপটপ আপনার অনলাইন পড়াশুনার কাজে লাগবে জেনে নিন।

কেনাকাটা2 weeks ago

করোনা-কালে ঘরে রাখতে পারেন ডিজিটাল অক্সিমিটার, এই ১০টির মধ্যে থেকে একটি বেছে নিতে পারেন

শরীরে অক্সিজেনের মাত্রা বুঝতে সাহায্য করে এই অক্সিমিটার।

কেনাকাটা3 weeks ago

লকডাউনে সামনেই রাখি, কোথা থেকে কিনবেন? অ্যামাজন দিচ্ছে দারুণ গিফট কম্বো অফার

খবরঅনলাইন ডেস্ক : সামনেই রাখি। কিন্তু লকডাউনের মধ্যে দোকানে গিয়ে রাখি, উপহার কেনা খুবই সমস্যার কথা। কিন্তু তা হলে উপায়...

laptop laptop
কেনাকাটা3 weeks ago

ল্যাপটপ কিনবেন? দেখে নিন ২৫ হাজার টাকার মধ্যে এই ৫টি ল্যাপটপ

খবরঅনলাইন ডেস্ক : কোভিভ ১৯ অতিমারির প্রকোপে বিশ্ব জুড়ে চলছে লকডাউন ও ওয়ার্ক ফ্রম হোম। অনেকেই অফিস থেকে ল্যাপটপ পেয়েছেন।...

কেনাকাটা4 weeks ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

নজরে

Click To Expand