বিমানযাত্রীদের ইলেকট্রনিক সরঞ্জাম বহন করা নিয়ে মার্কিন নিষেধাজ্ঞা

0
138

নিউ ইয়র্ক: মার্কিন মসনদে ডোনাল্ড ট্রাম্প বসার সময় থেকেই বিভিন্ন রকম নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে চলেছে যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসন। প্রথমে কোপে পড়েছিলেন ছ’টি মুসলিম প্রধান দেশের নাগরিক। এ বার নতুন একটি নিষেধাজ্ঞায় কোপে পড়লেন আটটি দেশ থেকে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে আসা বিমানযাত্রীরা। উল্লেখ্য, এই আটটি দেশও মূলত মুসলিম-প্রধান।

সন্ত্রাসবাদীরা বিমানে হামলা চালাতে পারে, এই যুক্তিতে বিমানযাত্রীদের ল্যাপটপ, ট্যাবলেট-এর মতো ইলেকট্রনিক সরঞ্জামের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে মার্কিন প্রশাসন অন্তর্গত ডিপার্টমেন্ট অফ হোমল্যান্ড সিকিউরিটি (ডিএইচএস)। যে বিমানবন্দরগুলিতে এই নির্দেশের প্রভাব পড়বে সেগুলি হল, জর্ডানের আম্মান বিমানবন্দর,  কায়রো বিমানবন্দর, ইস্তানবুল বিমানবন্দর, জেড্ডা বিমানবন্দর, রিয়াধ বিমানবন্দর, কুয়েত বিমানবন্দর, দোহা বিমানবন্দর, দুবাই বিমানবন্দর, আবু ধাবি বিমানবন্দর এবং মরক্কোর কাসাব্ল্যাঙ্কা বিমানবন্দর। মার্কিন প্রশাসনের নির্দেশ, উল্লেখিত বিমানবন্দর থেকে যুক্তরাষ্ট্রমুখী যাত্রীদের ওপর এই নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখা হবে। ল্যাপটপ, ট্যাবলেটের মতো বড়ো ইলেকট্রনিক সরঞ্জামগুলি কেবিনে রাখা যাবে না। নিরাপত্তা পরীক্ষার পর সেগুলোকে রাখতে হবে বিমানের ক্যারেজে। শুধুমাত্র মোবাইল ফোন নিয়ে বিমানের মধ্যে বসতে পারবেন যাত্রীরা।

গত দু’বছরে বেশ কয়েক বার বিমানহামলা ঘটিয়েছে সন্ত্রাসবাদীরা। সেই ঘটনা যাতে ভবিষ্যতে না ঘটে তার জন্যই এই পদক্ষেপ, প্রেস বিবৃতিতে এমনই জানিয়েছে ডিএইচএস। তাদের কথায়, “আরও অনেক বিমানহামলার ঘটনা ঘটানোর জন্য তৈরি হচ্ছে সন্ত্রাসবাদীরা। আমাদের তাই বাড়তি সতর্ক থাকতে হচ্ছে।”

বেশ কয়েক মাস ধরেই এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করার ভাবনাচিন্তা চলছিল বলে জানিয়েছে ডিএইচএস।

 

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here