সমুদ্রে ষোলো কিলোমিটার ভিতরে সাঁতারু হাতিকে উদ্ধার করল শ্রীলঙ্কার নৌবাহিনী

0
818

কলম্বো: বাঘ বা কুকুর সাঁতার কাটতে পারে এ কথা আমাদের প্রায় সকলেরই জানা। কিন্তু কখনও ভেবে দেখেছেন কি যে হাতিও সাঁতার কাটতে পারে? ঠিক এমনই ঘটনা ঘটেছে শ্রীলঙ্কায়।

দেশের উত্তরপূর্বে বঙ্গোপসাগরের উপকূলে অবস্থিত শহর কোক্কিলাই। সমুদ্রের কাছেই ছিল হাতিটি, যখন জলোচ্ছ্বাসের জন্য সমুদ্রে ভেসে যায় সে। এক-দুই নয়, সে ভেসে চলে গিয়েছিল সমুদ্রের ষোলো কিলোমিটার গভীরে। ঠিক এখানেই হাতিটির ওপর নজর পড়ে শ্রীলঙ্কার নৌবাহিনীর নজরদার নৌকার। খবর দেওয়া হয় বন দফতরকে।

বন দফতরের আধিকারিক এবং নৌবাহিনীর কর্মীরা মিলে প্রায় বারো ঘণ্টার চেষ্টায় হাতিটিকে ফের স্থলভূমিতে ফিরিয়ে আনে। গোটা পথটা অবশ্য সমুদ্রে সাঁতার কেটেই পাড়ি দেয় ওই হাতি।

হাতি যে সাঁতার জানে না, এই ধারণাকে সম্পূর্ণ উড়িয়ে দিয়েছেন বন দফতরের এক আধিকারিক অবিনাশ কৃষ্ণন। তাঁর কথায়, “হাতিরা খুবই ভালো সাঁতারু। সমুদ্রে পনেরো কিলোমিটার সাঁতার কাটা হাতির পক্ষে অস্বাভাবিক কিছু নয়।” কিন্তু এর পাশাপাশি তিনি আরও বলেন যে, “বেশিক্ষণ ধরে সাঁতার কাটা হাতির পক্ষে সম্ভব নয়। এতে ওদের অনেক শক্তিক্ষয় হয়।” নোনা জলও হাতির চামড়ার পক্ষে ভালো নয় বলে জানান তিনি।

অবিনাশবাবুর কথায়, এশিয়ার হাতিরা সাধারণ ভাবে সাঁতারে খুব দক্ষ। আন্দামান দ্বীপপুঞ্জে ছোটো ছোটো খাঁড়ি বা সমুদ্র অনায়াসে পেরিয়ে যায় তারা।

নৌবাহিনীর মুখপাত্র চামিন্ডা ওয়ালাকুলুগের মতে, কোক্কিলাইতে একটি খাঁড়ি পেরোনোর সময়েই সম্ভবত সমুদ্রে ভেসে যায় এই হাতিটি। তবে এই হাতিটি যে বরাত জোরে বেঁচে গিয়েছে সে কথাও উল্লেখ করেন ওই আধিকারিক। প্রাণীবিশেষজ্ঞদের মতে, দক্ষিণ ভারত থেকে এই জলপথ অতিক্রম করেই সম্ভবত শ্রীলঙ্কায় এসেছে হাতিরা।

দেখুন হাতি উদ্ধারের সেই ভিডিও

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here