Connect with us

অ্যাডভেঞ্চার

অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়াই ১০ বার মাউন্ট এভারেস্ট বিজয়ী আং রিটা প্রয়াত

১৯৮৩ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল, এই ১৩ বছরে শেরপা রিটা অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়া ১০ বার মাউন্ট এভারেস্টে ওঠেন।

Published

on

Sherpa Ang Rita
শেরপা আং রিটা।

খবর অনলাইন ডেস্ক: অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়াই ১০ বার মাউন্ট এভারেস্ট (Mount Everest) বিজয়ী শেরপা আং রিটা (Ang Rita Sherpa) প্রয়াত হয়েছেন। সোমবার তিনি তাঁর কাঠমান্ডুর বাসভবনে মারা যান। তাঁর বয়স হয়েছিল ৭২ বছর।

আং রিটার পরিবার সূত্রে জানা যায়, তিনি মস্তিষ্ক আর লিভারের অসুখে ভুগছিলেন। তাঁর মৃত্যুতে পর্বতারোহণের ক্ষেত্রে অপূরণীয় ক্ষতি হল।

‘স্নো লেপার্ড’ নামে পরিচিত আং রিটা ১৯৮৩ সালে প্রথম মাউন্ট এভারেস্টে আরোহণ করেন। ১৯৮৩ সাল থেকে ১৯৯৬ সাল, এই ১৩ বছরে শেরপা রিটা অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়া ১০ বার মাউন্ট এভারেস্টে ওঠেন।

বিশ্বের একমাত্র পর্বতারোহী হিসাবে অক্সিজেন সিলিন্ডার ছাড়া ১০ বার মাউন্ট এভারেস্টে ওঠার অনন্য কৃতিত্বের অধিকারী হওয়ার জন্য আং রিটাকে ২০১৭ সালে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড স্বীকৃতি দেয়। রিটার এই রেকর্ড আজও কেউ ভাঙতে পারেনি।

এ ছাড়াও ১৯৮৭ সালের শীতে অতিরিক্ত অক্সিজেন ছাড়াই এভারেস্টে ওঠেন আং রিটা। শীতে এভারেস্টে ওঠার বিরল কৃতিত্বের অধিকারীও একমাত্র আং রিটা।

পর্বতারোহণে তাঁর অনায়াস দক্ষতার জন্যই তাঁকে সবাই ‘স্নো লেপার্ড’ বলত।

তাঁর মৃত্যুতে পর্বতারোহণ মহল থেকে গভীর শোক প্রকাশ করা হয়েছে। নেপাল মাউন্টেনিয়ারিং অ্যাসোসিয়েশনের প্রাক্তন সভাপতি অভিজ্ঞ পর্বতারোহী আং শেরিং শেরপা বলেছেন, “পর্বত অঞ্চলে তিনি ‘স্নো লেপার্ড’-এর মতোই সক্রিয় ছিলেন। এখানেই ছিল তাঁর অনন্যতা।”

হিমালয়ের পরিবেশ ও জীববৈচিত্র্য রক্ষা করার জন্য যে সব প্রকল্পের কাজ চলছে, সে সব প্রকল্পের সঙ্গেও সক্রিয় ভাবে যুক্ত ছিলেন আং রিটা।

তাঁর মরদেহ কাঠমান্ডুর একটি মনাস্টেরিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। এ সপ্তাহের শেষে তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন  হবে।

খবর অনলাইনে আরও পড়তে পারেন

জল জীবন মিশনের আওতায় ৫০ লক্ষ টাকা জেতার সুযোগ দিচ্ছে কেন্দ্র, তবে উৎরাতে হবে আইসিটি গ্র্যান্ড চ্যালেঞ্জে

অ্যাডভেঞ্চার

এভারেস্ট জয়ের ভুয়ো ছবি অভিযাত্রীর! তেনজিং পুরস্কার প্রাপ্তি নিয়ে বিতর্ক

পর্বতারোহী রুদ্রপ্রসাদ হালদারও জানাচ্ছেন, নরেন্দ্রের সঙ্গে কথা বলার সময়ে তাঁর সামিট হয়নি বলেই জেনেছিলেন।

Published

on

everest summiter
এই ছবি নিয়ে যাবতীয় বিতর্কের সৃষ্টি।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এভারেস্ট (Mt Everest) জয় নিয়ে ভুয়ো দাবি তোলার অভিযোগ উঠল নরেন্দ্র সিংহ (Narendra Singh) নামে হরিয়ানার এক পর্বতারোহীর বিরুদ্ধে। সব থেকে বড়ো বিতর্কের বিষয়টি হল এ বছরেই অ্যাডভেঞ্চার স্পোর্টসের সর্বোচ্চ সম্মান— তেনজিং নোরগে পুরস্কার পাচ্ছেন তিনি। 

বছর চব্বিশের নরেন্দ্র ২০১৬ সালে এভারেস্ট অভিযানে গিয়েছিলেন। কিন্তু সেই অভিযানে তাঁর দলনেতা, অসমের পর্বতারোহী নবকুমার ফুকনেরই দাবি, এভারেস্ট সামিট করতেই পারেননি নরেন্দ্র!

এ বছর তেনজিং নোরগে সম্মান প্রাপকদের তালিকা সম্প্রতি ঘোষণা করে কেন্দ্র। আগামী ২৯ অগস্ট অনলাইনে পুরস্কার দেওয়ার কথা। তবে তেনজিং নোরগের ছেলে জামলিং দার্জিলিং থেকে ফোনে বলছেন, ‘‘নরেন্দ্রের দাবি সত্যি না মিথ্যা, না জেনে মন্তব্য করব না।’’

নবকুমারের বক্তব্য, ২০১৬ সালের ১৯ মে ক্যাম্প ফোর থেকে সামিট পুশে বেরোনোর আগে নরেন্দ্র জানিয়েছিলেন, তাঁদের কাছে যথেষ্ট অক্সিজেন সিলিন্ডার নেই। ফলে নরেন্দ্র এবং দলের আর এক মহিলা সদস্য সামিটের দিকে এগোননি বলেই দাবি তাঁর। ২০ মে ক্যাম্প ফোরে উপস্থিত পর্বতারোহী রুদ্রপ্রসাদ হালদারও জানাচ্ছেন, নরেন্দ্রের সঙ্গে কথা বলার সময়ে তাঁর সামিট হয়নি বলেই জেনেছিলেন।

এভারেস্ট সামিটের যে ছবি প্রকাশ করেছেন নরেন্দ্র, সেই ছবিতে অসঙ্গতি রয়েছে বলেও দাবি পর্বতারোহী মহলের। ২০১৬ সালে এভারেস্টের শীর্ষ ওই রকম দেখতে ছিল না বলেও জানাচ্ছেন অনেকেই। 

কেন্দ্রীয় যুবকল্যাণ ও ক্রীড়া মন্ত্রক সূত্রের খবর, রাজ্য যুবকল্যাণ দফতর, আইএমএফ এবং সেনাবাহিনীর তরফে পাঠানো নামের ভিত্তিতেই পুরস্কারপ্রাপকদের তালিকা চূড়ান্ত হয়েছে। 

২০১৬ সালে তাঁর এভারেস্ট সামিটের ছবি চুরি করেছেন বলে পুণের এক দম্পতির বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছিলেন সপ্তশৃঙ্গজয়ী সত্যরূপ সিদ্ধান্ত। নরেন্দ্রকে নিয়ে এই নতুন বিতর্কে তাঁর ছবি যে ছবি নিয়ে বিতর্কের সৃষ্টি হয়েছে সেটার পরীক্ষা করা হোক, তা হলেই সত্যিটা বেরিয়ে আসবে।

খবরঅনলাইনে আরও পড়তে পারেন

টিকটক কেনার পরিকল্পনা নেই, জল্পনা উড়িয়ে জানালেন গুগল সিইও সুন্দর পিচাই

Continue Reading

অ্যাডভেঞ্চার

করোনাভাইরাস: এভারেস্টের দরজা বন্ধ করল নেপাল

Published

on

traffic jam in everest

কাঠমান্ডু: করোনাভাইরাসের (Coronavirus) আতঙ্ক এ বার পর্বতারোহণেও প্রভাব ফেলল। এভারেস্ট-সহ বিভিন্ন শৃঙ্গের দরজা আপাতত পর্বতারোহীদের জন্য বন্ধ করে দিল নেপাল।

১৪ মার্চ থেকে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত পর্বতারোহণের (Expedition) যাবতীয় অনুমতিপত্র বাতিল করে দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে নেপাল।

শুধুমাত্র এভারেস্ট (Mount Everest) অভিযান থেকেই প্রতি বছর ৪০ লক্ষ মার্কিন ডলার আয় করে নেপাল। এ ছাড়াও আরও অন্যান্য শৃঙ্গ বা সাধারণ পর্যটন তো রয়েছেই। কিন্তু করোনাভাইরাসের জেরে তারা যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তাতে পর্যটনশিল্প যে বিশাল বড়ো ধাক্কা খাবে তা বলার অপেক্ষা রাখে না।

নেপালের প্রধানমন্ত্রী সচিবালয়ের তরফে জানানো হয়েছে ৩০ এপ্রিল পর্যন্ত কোনো পর্যটন ভিসা প্রদান করবে না নেপাল। এমনকি এভারেস্ট অভিযানের জন্য যত অনুমতিপত্র প্রদান করা হয়েছে, সবই আপাতত বাতিল করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন শেয়ার বাজারে নজিরবিহীন পতন, বন্ধ রইল কেনাবেচা

উল্লেখ্য, এই এভারেস্ট মরশুমের দিকে শুধুমাত্র নেপাল সরকারই যে তাকিয়ে থাকে তা শুধু নয়, একাধিক শেরপা পরিবারের ভরসা এই মরশুম। কিন্তু করোনা আটকাতে নেপাল যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, সেটা যে সবার কাছে একটা বড়ো ধাক্কা তা তো বলার অপেক্ষা রাখে না।

বাঙালি পর্বতারোহীদের কাছেও এই ব্যাপারটা নিঃসন্দেহের ধাক্কার। কিন্তু একটা কথা সবাই এক বাক্যে মানছেন যে শরীরস্বাস্থ্য সবার আগে।

২০১৫ সালে নেপাল ভূমিকম্পের সময়ে সাংঘাতিক ভাবে ধাক্কা খেয়েছিল এভারেস্ট মরশুম। অভিযান বাতিল করে ফিরতে হয়েছিল পর্বতারোহীদের। পাঁচ বছর পর ফের এভারেস্ট মরশুমে প্রভাব পড়ল।

Continue Reading

অ্যাডভেঞ্চার

বাঘ সংরক্ষণের বার্তা দিতে দেশ ঘুরে এ বার বিদেশে পাড়ি বাঙালি দম্পতির

Published

on

শ্রয়ণ সেন

এ বছর জুলাইয়ের কথা। দীর্ঘক্ষণ মোটরবাইক চালিয়ে ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলেন। একটু বিশ্রাম নেওয়ার জন্য একটি গাছের তলায় বাইকটিকে পার্ক করে দাঁড়িয়েছিলেন তিনি। সঙ্গে ছিলেন তাঁর স্ত্রীও। কিন্তু সেটা যে রথীনবাবু আর গীতাঞ্জলিদেবীর কাছে কতটা বিপদ বয়ে আনছে ঘুণাক্ষরেও টের পাননি তাঁরা।

রথীনবাবু যখন গাছের তলায় দাঁড়িয়েছিলেন, সেই সময় ওই গাছের তলায় সাইকেল নিয়ে দাঁড়িয়েছিল এক কিশোর। রথীনবাবু তার কাছে যেতেই সে দৌড়ে কাছের একটি বাড়িতে ঢুকে যায়। কিছুক্ষণ পরেই গ্রামের পুরুষ-মহিলারা ঘিরে ধরেন তাঁদের। তৈরি হয় গণপিটুনির পরিস্থিতি।

কিন্তু সে যাত্রায় কোনো ভাবে বেঁচে গেলেও, ব্যাপারটা নিয়ে বিন্দুমাত্র বিচলিত নন তাঁরা। বরং তাঁদের বিশ্বাস, যে বার্তা ছড়িয়ে দিতে তাঁরা বেরিয়েছেন, তাতে সমস্ত প্রতিকূলতা তাঁদের অতিক্রম করতেই হবে।

বিশ্ববাসীকে বাঘ সংরক্ষণের বার্তা দিতে এক অভিনব অভিযানে বেরিয়েছেন কলকাতার বাঙালি দম্পতি রথীন্দ্রনাথ দাস ও গীতাঞ্জলি দাস। ফেসবুকে রথীনবাবু, ‘ওয়াইল্ড রথীন’ হিসেবে বেশি পরিচিত।

এ বছর ফেব্রুয়ারিতে সস্ত্রীক রথীনবাবু বেরিয়েছিলেন দেশ সফরে। পৌঁছে গিয়েছিলেন দেশের তৎকালীন ২৯টা রাজ্য ও পাঁচটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে। সেই অভিযানই এ বার দেশের গণ্ডির বাইরে। আগামী মাসের শেষ দিকে, বনভূমি ও বন্যপ্রাণী, বিশেষত বাঘ সংরক্ষণের বার্তা নিয়ে দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার বিভিন্ন দেশে পাড়ি দিচ্ছেন তিনি আর গীতাঞ্জলিদেবী। 

কিছুটা প্রচারের আড়ালে থেকে অনন্য কাজ করে চলেছেন এই দম্পতি। সংবিধানের ৪-এ বিভাগের ৫১-এ (জি) অনুচ্ছেদটি রথীনবাবু মনে প্রাণে বিশ্বাস করেন। তিনি বিশ্বাস করেন যে ভারতীয় নাগরিক হিসেবে দেশের বনাঞ্চল, হ্রদ এবং বন্যপ্রাণীকে রক্ষা করা তাঁর অন্যতম কর্তব্যের মধ্যে পড়ে।

নিজের নেশাকেই তিনি পেশা হিসেবে বেছে নিয়েছেন। বন্যপ্রাণ সংরক্ষণ করে এমনই একটি সংস্থার সঙ্গে যুক্ত রথীনবাবু। পশুশিকার বিরোধী এবং বন্যপ্রাণী সংরক্ষণের বিষয়ে একাধিক কাজকর্মে তিনি নিজে হাত লাগিয়েছেন। কখনও কখনও দুঃসাহসিক কিছু অভিযানেও গিয়েছেন।

আরও পড়ুন বাঘের গহ্বরে বিকল সাফারির বাস, পর্যটকদের মধ্যে তীব্র আতঙ্ক

বন্যপ্রাণী সংরক্ষণে নিজেকে নিয়োজিত করার পাশাপাশি তিনি একজন অত্যন্ত সফল বাইকারও। এই বাইক নিয়ে তিনি বেরিয়ে পড়েন দেশের বিভিন্ন প্রান্তে, উদ্দেশ্য একটাই, বাঘ তথা সামগ্রিক ভাবে বন্যপ্রাণ সংরক্ষণের ব্যাপারে সাধারণ মানুষকে বার্তা দেওয়া।

এই অভিযান তিনি শুরু করেছিলেন ২০১৬ সালে। সে বছর ৩ অক্টোবর নিজের প্রাণের বাইক নিয়ে তিনি বেরিয়ে পড়েছিলেন, ফিরেছিলেন পরের বছর ১৩ ফেব্রুয়ারি। এই সফরে তাঁর মূল বার্তা ছিল, ‘জঙ্গল বাঁচাও, বন্যপ্রাণ বাঁচাও।’ এই সফরে দেশের ২৯টি রাজ্য আর পাঁচটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে মোট ২৭,১৩৮ কিমি সফর করেন তিনি। নিজের বার্তা সবার সঙ্গে ভাগ করে নিতে পৌঁছে যান ২২টি স্কুলে।  

এর পর ‘গণ্ডার বাঁচাও’-এর বার্তা নিয়ে তিনি বেরিয়ে পড়েছিলেন। পশ্চিমবঙ্গ আর অসমে মোট ২৮২২ কিমি সফর করেন তিনি। এই সফরে ১৬৭টা স্কুলে বন্যপ্রাণ সংক্রান্ত সচেতনতা শিবির করেন তিনি।

এর পর তৃতীয় সফর। “কেন বন্যপ্রাণ রক্ষা করা আমাদের কর্তব্য?”, দেশবাসীকে সেই পাঠ দিতেই বেরিয়ে পড়েন দু’ জন। ভারতের দশটি রাজ্যে প্রায় ৬০০০ কিমি সফর করে তাঁরা পৌঁছে যান ২৩২টি স্কুলে। 

প্রথম তিনটে সফরের সফলতার পর এ বার আরও বড়ো পরিকল্পনা করেন দু’ জনে। ‘জার্নি ফর টাইগার’ নামের এই সফরের মূল বার্তা ছিল, “প্রকৃতিকে বাঁচানোর জন্য বন্যপ্রাণ বাঁচাও!”

দেশ আর বিদেশ মিলিয়ে এই সফরকে মোট তিনটে ভাগে ভাগ করেন রথীন-গীতাঞ্জলি। তাঁর প্রথম ভাগের জন্য এ বছর ১৫ ফেব্রুয়ারিতে বেরিয়ে পড়েন দু’জনে। প্রথম লক্ষ্য ভারতের ২৯টা রাজ্য এবং পাঁচটা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সফর।

কলকাতা থেকে শুরু হয়ে প্রথমে সুন্দরবন হয়ে রথীনবাবুরা চলে যান আলিপুরদুয়ারের বক্সা। সেখান থেকে উত্তরপূর্ব ভারতের ব্যাঘ্রপ্রকল্পগুলি ঘুরে, দেশের বাকি অংশে সফর করেন। এই সফরে দেশের সব ক’টি ব্যঘ্র প্রকল্পে যাওয়াই ছিল তাঁদের লক্ষ্য। তার আশেপাশের গ্রামগুলিতে বাঘ সংরক্ষণের বার্তা দিয়েছেন এই দম্পতি। তাঁদের এই অভিযানে পূর্ণ সহায়তা করেছে বিভিন্ন রাজ্যের বন্যপ্রাণ দফতরও।

১০ নভেম্বর পর্যন্ত অভিযানে ছিলেন দু’জনে। মোট ২৬৯ দিনের এই অভিযানে ৩৬৪৯২ কিলোমিটার পথ অতিক্রম করেন তাঁরা। এই সফরে দেশের ৫০টি ব্যাঘ্রপ্রকল্প, ১০০-এরও বেশি অভয়ারণ্য সফর করেন তাঁরা। সচেতনতার বার্তা পৌঁছে দিতে ৩০০০টি গ্রাম আর ৬৪৩টি স্কুলে যান তাঁরা। আর এই সফর চলাকালীনই উন্মত্ত জনতার রোষের মুখেও পড়তে হয় তাঁদের।

মধ্যপ্রদেশের সাতপুরা টাইগার রিজার্ভের কাছে উন্মত্ত জনতার মুখোমুখি হয়েছিলেন দু’জনে। ওই ঘটনার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে রথীনবাবু বলেন, “‘আমরা কিডনি চোর, এমন ধারণা হয়েছিল ওঁদের। কিছুতেই ওদের বোঝাতে পারছিলাম না আমাদের উদ্দেশ্যটা। এমনকি আমার সঙ্গে যে একজন মহিলা রয়েছেন, সেটাও ওঁরা বিশ্বাস করছিলেন না।”

শেষে গ্রামেরই এক ব্যক্তির সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনের চেষ্টা করেন রথীনবাবু। তিনি বলেন, “ওই ব্যক্তিকে দেখে মনে হল উনি শিক্ষিত। বুঝলাম, ওঁকে যদি বোঝাতে পারি, তা হলে এ যাত্রায় বেঁচে যাব।”

শেষে ওই ব্যক্তির তৎপরতায় রণে ভঙ্গ দেয় উন্মত্ত ওই জনতা। ছাড়া পেয়ে যান রথীনবাবুরা।

এই ঘটনার পরেও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে ঘুরতে ভয় লাগে না?

এই বিপদেও হাল ছাড়েননি দু’জনে। বলছেন, ‘‘যে-শপথ নিয়ে বেরিয়েছি, তা শেষ করেই ফিরব।” সেই অভিযানের প্রথম অংশটি শেষ হয়েছে গত নভেম্বরেই। কিন্তু এ বার লক্ষ্য আরও বড়ো।

অভিযানের দ্বিতীয় এবং তৃতীয় অংশ শুরু হচ্ছে জানুয়ারির শেষে। এ বার তাঁদের লক্ষ্য, বাঘ রয়েছে, এশিয়ার এমন ১২টি দেশে নিজেদের বার্তা পৌঁছে দেওয়া।

আরও পড়ুন রাজস্থানের জাতীয় উদ্যানে পর্যটকদের তাড়া বাঘের, দেখুন রোমহর্ষক ভিডিও

মোট দুটি অংশে এই অভিযানকে ভাগ করেছেন তাঁরা। দ্বিতীয় অংশে মূলত আসিয়ানভুক্ত দেশ, অর্থাৎ মায়ানমার, তাইল্যান্ড, মালয়শিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, কাম্বোডিয়া এবং লাওসে যাবেন তাঁরা। তৃতীয় তথা শেষ অংশে তাঁরা অভিযান করবেন, বাংলাদেশ, চিন, রাশিয়া, নেপাল এবং ভুটানে। প্রত্যেকটা দেশের রাজধানী ছুঁয়ে আরও গভীরে প্রবেশ করার ইচ্ছে রথীন-গীতাঞ্জলির।

তাঁদের এই অভিযানগুলির পরিকল্পনা এবং দেখভালের দায়িত্বে রয়েছে হংকং-এর এশিয়ান ওয়াইল্ড লাইফ ফটোগ্রাফার্স ক্লাব, সাউথ এশিয়ার ফোরাম ফর এনভায়রনমেন্ট (সেফ) আর ‘এক্সপ্লোরিং নেচার’ নামক তিনটি সংস্থা।

এই অভিযান শেষ করে ফিরে আসার পর বাঘ সংরক্ষণ নিয়ে একটি বই লেখারও পরিকল্পনা রয়েছে রথীনবাবুর। তবে তার আগে তাঁর একমাত্র লক্ষ্য, উল্লিখিত দেশগুলিতে নিজের বার্তা পৌঁছে দেওয়া।

এই সফরে বেরোনোর আগে দেশবাসী তথা সারা বিশ্বের মানুষের কাছে একটা বিশেষ বার্তা দিতে চান রথীনবাবু। তিনি বলেন, “আমাদের জীবনের মূল উৎস হল জঙ্গল। কারণ জঙ্গল আছে বলেই জল, অক্সিজেন-সহ বাঁচার মূল রসদ আমরা পাচ্ছি। আর এই জঙ্গলকে বাঁচিয়ে রাখছে বন্যপ্রাণ, বিশেষত বাঘেরা। তাই বাঘ বাঁচানোর দায়িত্ব কোনো সরকারের একটা বা দু’টো দফতরের নয়, এই দায়িত্ব আমার, আপনার, আমাদের সবার। ওরা বাঁচলে, আমরাও বাঁচব।”

Continue Reading

Amazon

Advertisement
রাজ্য24 mins ago

রাজ্যপাল জগদীপ ধানখড়কে বিজেপির ‘লাউডস্পিকার’ বলল তৃণমূল

কেনাকাটা44 mins ago

দীপাবলিতে ঘর সাজাতে লাইট কিনবেন? রইল ১০টি নতুন কালেকশন

দেশ47 mins ago

দুই দেশ একে অপরের পরিপূরক শক্তি: বাংলাদেশের শিল্পমন্ত্রীর সঙ্গে ভারতীয় হাই কমিশনারের বৈঠক

দেশ1 hour ago

গাড়ি ব্যবহার বন্ধ রেখে সময় এসেছে সাইকেল চালানোর, বলল সুপ্রিম কোর্ট

রাজ্য2 hours ago

আক্রান্তের সংখ্যা বাড়লেও রাজ্যে টেস্টও বাড়ল, কমল দৈনিক সংক্রমণের হার, ৮৮ শতাংশ পেরোল সুস্থতার হার

বিদেশ3 hours ago

‘ঘুস কে মারা’,পুলওয়ামা হামলায় বিস্ফোরক দাবি পাক মন্ত্রীর

দেশ4 hours ago

শেষ ৯ দিনে ভারতে এক কোটি নমুনা পরীক্ষা, করোনা সংক্রমণের হারে ধারাবাহিক পতন

বিদেশ4 hours ago

ফ্রান্সের গির্জা চত্বরে এক মহিলাকে গলা কেটে খুন, নিহত আরও ২

দেশ12 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৪৯,৮৮১, সুস্থ ৫৬,৪৮০

rohit sharma
ক্রিকেট3 days ago

রোহিতে রহস্য! চোটের জন্য অস্ট্রেলিয়াগামী দল থেকে বাদ পড়লেও, মুম্বইয়ের অনুশীলনে ‘হিটম্যান’

ক্রিকেট3 days ago

চতুর্থ স্থান থেকে কলকাতাকে ছিটকে দিয়ে টানা পঞ্চম ম্যাচ জয় পঞ্জাবের

containment kolkata
কলকাতা1 day ago

লকডাউন নিয়ে গুজবের বিরুদ্ধে পুলিশি পদক্ষেপ

বিনোদন2 days ago

সিবিআই গ্রেফতার করতে পারে, আশঙ্কায় তড়িঘড়ি আদালতের দ্বারস্থ সুশান্ত সিং রাজপুতের দুই দিদি

বিনোদন2 days ago

দেশের সব থেকে বিশ্বস্ত ব্র্যান্ড কে?

কলকাতা3 days ago

পিতৃমাতৃহীন শিশুদের নিয়ে পুজোর দিনে ‘দুর্গা অ্যান্ড ফ্রেন্ডস’-এর অভিনব উদ্যোগ

বিদেশ3 days ago

২ নভেম্বর থেকে সাধারণের ওপরে অক্সফোর্ডের কোভিড-টিকার প্রয়োগ শুরু, ব্রিটেনের হাসপাতালকে তৈরি থাকার নির্দেশ

কেনাকাটা

কেনাকাটা44 mins ago

দীপাবলিতে ঘর সাজাতে লাইট কিনবেন? রইল ১০টি নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আসছে আলোর উৎসব। কালীপুজো। প্রত্যেকেই নিজের বাড়িকে সুন্দর করে সাজায় নানান রকমের আলো দিয়ে। চাহিদার কথা মাথায় রেখে...

কেনাকাটা3 weeks ago

মেয়েদের কুর্তার নতুন কালেকশন, দাম ২৯৯ থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজো উপলক্ষ্যে নতুন নতুন কুর্তির কালেকশন রয়েছে অ্যামাজনে। দাম মোটামুটি নাগালের মধ্যে। তেমনই কয়েকটি রইল এখানে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা4 weeks ago

‘এরশা’-র আরও ১০টি শাড়ি, পুজো কালেকশন

খবর অনলাইন ডেস্ক : সামনেই পুজো আর পুজোর জন্য নতুন নতুন শাড়ির সম্ভার নিয়ে হাজর রয়েছে এরশা। এরসার শাড়ি পাওয়া...

কেনাকাটা4 weeks ago

‘এরশা’-র পুজো কালেকশনের ১০টি সেরা শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো কালেকশনে হ্যান্ডলুম শাড়ির সম্ভার রয়েছে ‘এরশা’-র। রইল তাদের বেশ কয়েকটি শাড়ির কালেকশন অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা4 weeks ago

পুজো কালেকশনের ৮টি ব্যাগ, দাম ২১৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : এই বছরের পুজো মানে শুধুই পুজো নয়। এ হল নিউ নর্মাল পুজো। অর্থাৎ খালি আনন্দ করলে...

কেনাকাটা1 month ago

পছন্দসই নতুন ধরনের গয়নার কালেকশন, দাম ১৪৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজোর সময় পোশাকের সঙ্গে মানানসই গয়না পরতে কার না মন চায়। তার জন্য নতুন গয়না কেনার...

কেনাকাটা1 month ago

নতুন কালেকশনের ১০টি জুতো, ১৯৯ টাকা থেকে শুরু

খবর অনলাইন ডেস্ক : পুজো এসে গিয়েছে। কেনাকাটি করে ফেলার এটিই সঠিক সময়। সে জামা হোক বা জুতো। তাই দেরি...

কেনাকাটা1 month ago

পুজো কালেকশনে ৬০০ থেকে ১০০০ টাকার মধ্যে চোখ ধাঁধানো ১০টি শাড়ি

খবর অনলাইন ডেস্ক: পুজোর কালেকশনের নতুন ধরনের কিছু শাড়ি যদি নাগালের মধ্যে পাওয়া যায় তা হলে মন্দ হয় না। তাও...

কেনাকাটা1 month ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা1 month ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

নজরে