অক্টোবরের মধ্যে সন্ত্রাসে অর্থ জোগান বন্ধ না করলে… চরম সতর্কতা পাকিস্তানকে

ওয়েবডেস্ক: সন্ত্রাসবাদে অর্থ জোগান দেওয়া এবং আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য পাকিস্তানকে কড়া সতর্কবার্তা পাঠাল আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘ফিনান্সিয়াল অ্যাকশন টাস্ক ফোর্স’ (এফএটিএফ)। অক্টোবরের মধ্যে এই পদক্ষেপ না করলে, পাকিস্তানকে কালো তালিকাভুক্ত করা হবে বলে সাফ জানিয়ে দিল তারা।

সন্ত্রাসবাদে অর্থজোগান বন্ধ না করার শাস্তি হিসেবে গত বছর অক্টোবরে তাদের ‘গ্রে’ তালিকাভুক্ত করেছিল এই সংস্থা। এই তালিকায় যদি কোনো ভাবেই পাকিস্তান উন্নীত না হয় তা হলে ধীরে ধীরে বিশ্বব্যাঙ্ক, আন্তর্জাতিক মানিটারি ফান্ড, এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাঙ্কের দেওয়া ঋণের অঙ্ক ক্রমশ কমতে থাকবে। আর যদি কালো তালিকাভুক্ত করা হয়, তা হলে আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলি থেকে আর কোনো আর্থিক সাহায্যই পাবে না পাকিস্তান। সে ক্ষেত্রে চরম আর্থিক সংকটে ভোগা এই দেশটির সমস্যা আরও বেড়ে যাবে।

মাসুদ আজহার, হাফিজ সঈদ-সহ রাষ্ট্রপুঞ্জ স্বীকৃত আন্তর্জাতিক জঙ্গিদের বিরুদ্ধে পাকিস্তান কোনো ব্যবস্থাই নিচ্ছে না, এই অভিযোগে এফএটিএফে অভিযোগ করে ভারত-সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশ। সেই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এফএটিএফের তরফ থেকে একটি বিবৃতি দিয়ে বলা হয়েছে, “২০১৯-এর অক্টোবরের মধ্যে সব ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য পাকিস্তানকে আর্জি জানানো হচ্ছে। সেটা না হলে, পরবর্তী পদক্ষেপের জন্য আমরা ভাবতে বাধ্য হব।”

আরও পড়ুন ৩০ আগস্ট পর্যন্ত জমা দেওয়া যাবে জিএসটি বার্ষিক রিটার্ন

গত ফেব্রুয়ারিতে পুলওয়ামা হামলার ঠিক পরেই পাকিস্তানকে দ্রুত কালো তালিকায় নিয়ে আসার জন্য এফএটিএফের কাছে আবেদন করে ভারত। তবে তখন ভারতের আবেদনে এফএটিএফ সাড়া দেয়নি। তারা বলেছিল, সব কিছু পদ্ধতি মেনেই হবে। অর্থাৎ, পাকিস্তানকে কালো তালিকাভুক্ত করতে হলে, তা অক্টোবরেই করতে হবে।

উল্লেখ্য, আর্থিক কেলেঙ্কারির ওপরে নজর রাখার জন্য ১৯৮৯ সালে তৈরি হয়ে এই নজরদারি সংস্থাটি। ২০০১ থেকে এই সংস্থা তাদের পরিধি আরও কিছুটা বাড়িয়ে জঙ্গি কার্যকলাপে আর্থিক লেনদেনের দিকটিও দেখছে।

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.


*


This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.